EPFO: চাকরিজীবীদের জন্যে সুখবর, এখন ইপিএফের টাকা তোলা এবং স্থানান্তরকরণ আরও সহজ

Employees' Provident Fund Organisation অনলাইনে চালু করেছে নতুন পরিষেবা যার ফলে কেউ চাকরি ছেড়ে দেওয়ার পরে ঘরে বসেই কাজের শেষ দিন আপডেট করতে পারবেন

EPFO: চাকরিজীবীদের জন্যে সুখবর, এখন ইপিএফের টাকা তোলা এবং স্থানান্তরকরণ আরও সহজ

EPF: তবে চাকরি ছাড়ার তারিখটি পূর্ববর্তী নিয়োগকর্তার দ্বারা প্রদত্ত সর্বশেষ অবদানের ২ মাস পরে আপডেট করা যাবে

হাইলাইটস

  • ইপিএফের টাকা তোলা বা স্থানান্তকরণ এখন আরও সহজ
  • অনলাইনে নিজেই নিজের চাকরি ছাড়ার তথ্য আপডেট করতে পারবেন
  • তবে চাকরি ছাড়ার ২ মাস পরে ওই কাজ করতে পারবেন তিনি

পুরনো সংস্থার চাকরি ছেড়ে দিয়ে অন্য সংস্থায় গেলে অনেক সময়ই কর্মচারী প্রভিডেন্ট ফান্ডে গচ্ছিত অর্থ ট্রান্সফার বা টাকা তোলা নিয়ে চিন্তায় থাকেন মানুষজন। অনেকেরই এই প্রক্রিয়া সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা থাকে না। এর আগে বিভিন্ন কারণে এমপ্লয়িজ প্রভিডেন্ট ফান্ড (EPF) থেকে টাকা তুলতে গেলে ফর্ম পূরণের ঝক্কি পোহাতে হত। কিন্তু, সময় বদলেছে। এখন সবই সম্ভব অনলাইনেই। এমনকি এবার কর্মচারী প্রভিডেন্ট ফান্ড সংস্থার (Employees' Provident Fund Organisation) উদ্যোগে অনলাইনে চালু হল নতুন পরিষেবা যার ফলে কেউ চাকরি ছেড়ে দেওয়ার পরেও ঘরে বসেই কাজের শেষ দিন (Date of Exit) সহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় তথ্য আপডেট করতে পারবেন । তবে চাকরি ছাড়ার তারিখটি পূর্ববর্তী নিয়োগকর্তার দ্বারা প্রদত্ত সর্বশেষ অবদানের ২ মাস পরে আপডেট করা যাবে। এর আগে শুধুমাত্র নিয়োগকর্তাই চাকরি ছাড়ার দিন সংক্রান্ত তথ্য আপডেট করতে পারতেন। এখন নতুন এই নিয়ম সংস্থাটি (EPFO) চালু করায় অনেকটাই দুশ্চিন্তা দূর হল চাকরিজীবীদের।

শীঘ্রই জমা পড়ছে প্রভিডেন্ট ফান্ড, জানুন অনলাইনে ইপিএফ ব্যালেন্স ও পাসবই চেক করার নিয়ম

EPFO: ঠিক যে উপায়ে আপনি আপনার চাকরি ছাড়ার দিন সংক্রান্ত তথ্য নথিভুক্ত করতে পারেন:

 UAN পোর্টালে লগ ইন করুন (ইউনিভার্সাল অ্যাকাউন্ট নম্বর এবং পাসওয়ার্ড সহ)

এবার 'Manage'-এ যান

'Mark Exit"-এ ক্লিক করুন

'select employment'-এ গিয়ে আপনার পূর্ববর্তী ইপিএফ অ্যাকাউন্ট নম্বরটি নির্বাচন করুন

'Date'-এ গিয়ে চাকরি ছাড়ার দিনটি উল্লেখ করুন 

'Reason for exit'-এ গিয়ে চাকরি ছাড়ার কারণ উল্লেখ করুন

সুখবর! EPF –এ সুদের হার বাড়ল

আপনিই আসল ব্যক্তি কিনা তা জানার জন্যে এরপর আপনার ইপিএফ অ্যাকাউন্ট ও আধার নম্বরের সঙ্গে সংযুক্ত মোবাইল নম্বরে একটি ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড (OTP) আসবে। সেই ওটিপি দিয়েই আপনার এই তথ্য নথিভুক্ত করার কাজ সম্পন্ন করা সম্ভব হবে। 

More News