বিশ্বব্যাংক আশা করছে যে 2019-এর আর্থিক বছরে অর্থনীতিতে উন্নয়ন ঘটবে 7.3 শতাংশ

বিশ্বব্যাংক আশা করছে, বিভিন্ন প্রতিকূলতা পেরিয়ে ভারত দ্রুত বৃদ্ধিপ্রাপ্ত এবং বৃহৎ অর্থনীতি হিসাবে নিজের অবস্থান পুনর্প্রতিষ্ঠা করবে

বিশ্বব্যাংক আশা করছে যে 2019-এর আর্থিক বছরে অর্থনীতিতে উন্নয়ন ঘটবে 7.3 শতাংশ

এপ্রিল ও মে মাসে প্রকাশিত দুটি আন্তর্জাতিক সংস্থার পূর্বাভাস অবশ্য বিশ্বব্যাংকের পূর্বাভাসের থেকে সামান্য বেশি

ইউনাইটেড নেশন :-  বিশ্বব্যাংক আশা করছে, বিভিন্ন প্রতিকূলতা পেরিয়ে ভারত দ্রুত বৃদ্ধিপ্রাপ্ত এবং বৃহৎ অর্থনীতি হিসাবে নিজের অবস্থান পুনর্প্রতিষ্ঠা করার জন্য এই বছরে 7.3 শতাংশ অর্থনীতিতে উন্নয়ন ঘটালেও আগামী দু বছরে তা বাড়িয়ে 7.5 শতাংশ করবে। বিশ্বব্যাংক তার সাম্প্রতিক কালে প্রকাশিত রিপোর্ট থেকে বলেছে যে অর্থনীতিতে উন্নয়নের কারণ ব্যক্তিগত খরচ এবং বিনিয়োগ বৃদ্ধি। গত মঙ্গলবারে বিশ্বব্যাংক থেকে বিশ্ব অর্থনৈতিক সম্ভাবনার যে রিপোর্ট পেশ করা হয়েছে, তাতে লক্ষ্য করে গিয়েছে যে 2017 সালের মাঝামাঝি সময় থেকে ভারতের অর্থনীতির যে অবনতি ঘটেছিলো, 2018 থেকে বিনিয়োগের পুনরুদ্ধারের মাধ্যমে ভারত পুনরায় নিজের অবস্থান ফিরে পাচ্ছে।

ভারতীয় অর্থনীতি খারাপ অবস্থার মুখোমুখি এসে দাঁড়িয়েছিল 2017-এর মাঝামাঝি সময়ে গুডস এন্ড সার্ভিস ট্যাক্স অর্থাৎ জিএসটি-এর বাস্তবায়নের মাধ্যমে। পুনরায় শিল্প উৎপাদনের মধ্যে দিয়ে যা উন্নত হয়ে উঠবে বলে রিপোর্টে জানিয়েছে বিশ্বব্যাংক।

এতে আরো যোগ করা হয়েছে যে এই উন্নয়নের মাধ্যমে আগামী বছর গুলোতে দারিদ্রের কিছুটা অবসান ঘটতে পারে।

এপ্রিল ও মে মাসে প্রকাশিত দুটি আন্তর্জাতিক সংস্থার পূর্বাভাস অবশ্য বিশ্বব্যাংকের পূর্বাভাসের থেকে সামান্য বেশি।

ইউএন-এর অনুমান অনুসারে 2018-তে অর্থনৈতিক উন্নয়ন হবে 7.3 শতাংশ যা 2019-এ হতে পারে 7.5 শতাংশ, অন্যদিকে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল থেকে জানানো হয়েছে যে 2018-তে অর্থনৈতিক উন্নয়ন হতে পারে 7.4 শতাংশ যা 2019-এ বেড়ে হতে পারে 7.8 শতাংশ।

বিশ্বব্যাংক জানিয়েছে, ঘরোয়া চাহিদার প্রসার এবং উচ্চতর শক্তির দাম বৃদ্ধির ফলে আমদানি বেড়েছে এবং তার ফলে বাণিজ্য এবং বর্তমান অ্যাকাউন্ট ব্যালেন্সে ভারতের অবনতি ঘটেছে। 

তবে বিশ্ব অর্থনীতির যে ছবি ব্যাংকের পূর্বাভাস থেকে পাওয়া যাচ্ছে তা অবশ্য ভারতের মতো সুখকর নয়। আশা করা হচ্ছে যে 2019-এ বিশ্বব্যাপী বৃদ্ধির হার 3 শতাংশ কমতে পারে এবং 2020-তে তা আরো কমে হতে পারে 2.9 শতাংশ।

(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদিত করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে.)
More News