This Article is From Nov 14, 2019

কমবে জিনিসের দাম? অক্টোবরে পাইকারি বাজারে মুদ্রাস্ফীতি কমে ০.১৬ শতাংশে

Wholesale inflation: পাইকারি বাজারের মুদ্রাস্ফীতি পাইকারি জিনিসের দাম বৃদ্ধির হার বা পাইকারি মূল্য সূচক (WPI data) এই হিসাবে নির্ধারণ করা হয়

কমবে জিনিসের দাম? অক্টোবরে পাইকারি বাজারে মুদ্রাস্ফীতি কমে ০.১৬ শতাংশে

মধ্যবিত্তের জন্যে সামান্য হলেও স্বস্তির খবর। বাজারে যেভাবে ক্রমশই জিনিসের দাম বেড়ে যাচ্ছিল তাতে মাথায় হাত পড়েছিল সাধারণের । এমনিতেই অক্টোবরে দুর্গাপুজো হওয়ায় সাধারণ মানুষজনের ভাঁড়ার প্রায় শূন্য। তার উপর উৎসবের মরশুমে লাগাতার বেড়ে চলে ছিল নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম। তবে বৃহস্পতিবার সরকারি তথ্য অনুযায়ী দেখা গেছে, পাইকারি দ্রব্যের মূল্যস্ফীতি (Wholesale inflation) আগের মাসে ০.৩৩ শতাংশ থেকে কমে গত অক্টোবরে ০.১৬ শতাংশে এসে ঠেকেছে। পাইকারি বাজারের মুদ্রাস্ফীতি পাইকারি জিনিসের দাম বৃদ্ধির হার বা পাইকারি মূল্য সূচক (WPI data) এই হিসাবে নির্ধারণ করা হয়।

পেঁয়াজের লাগামহীন মূল্যবৃদ্ধি ঠেকাতে বিদেশ থেকে ১ লক্ষ টন পেঁয়াজ আমদানি করছে কেন্দ্র

তথ্য বলছে, খাদ্যের মূল্যস্ফীতি - ডব্লিউপিআইয়ের (WPI inflation) খাদ্য সূচকের ভিত্তিতে তৈরি পণ্য বিভাগের খাদ্য পণ্যগুলি গত মাসে ৭.৬৫ শতাংশে নেমে এসেছে। উপভোক্তাদের মূল্যস্ফীতি দেখানোর একটি রিপোর্টের একদিন পরে পাইকারি মূল্যস্ফীতি সম্পর্কিত এই তথ্য এসেছে। ওই সময় জিনিসের দাম বৃদ্ধির হার ১৬ মাসের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ৪.৬২ শতাংশে গিয়ে পৌঁছেছিল।

দাম কমাতে গেরস্থের হেঁশেলে এবার মিশর, তুর্কি, ইরান থেকে পেঁয়াজ আমদানি করাবে কেন্দ্র

এর ফলে গত ১৫ মাসের মধ্যে প্রথমবার মুদ্রাস্ফীতি ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্কের মধ্যমেয়াদী লক্ষ্যমাত্রা ৪ শতাংশ লঙ্ঘন করেছে।

আরবিআই প্রাথমিকভাবে আর্থিক নীতিমালা তৈরি করতে সবসময়ই ভোক্তাদের মূল্যস্ফীতি সম্পর্কিত তথ্য অনুসরণ করে।

.