জিওতে ১১,৩৬৭ কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে মার্কিন ইক্যুইটি সংস্থা কেকেআর

এই নিয়ে চার সপ্তাহে পঞ্চম হিসেবে তাদের ছোটো অংশ বিক্রি করার চুক্তি করল দেশের প্রবীণতম অথচ সবচেয়ে বড় টেলিকম সংস্থা জিও

জিওতে ১১,৩৬৭ কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে মার্কিন ইক্যুইটি সংস্থা কেকেআর

ফেসবুক, সিলভার লেক পার্টনারস, ভিস্তা ইক্যুইটি এবং জেনারেল আটলান্টিকের থেকে মোট ৬৭,১৯৪.৭৫ কোটি টাকার বিনিয়োগ টেনেছে জিও।

নয়াদিল্লি:

ফেসবুকের পর এবার রিলায়েন্স ইন্ডিয়ার (Reliance Industries) ডিজিটাল অংশীদারির ২.৩২ শতাংশ কিনতে চলেছে মার্কিন বেসরকারি ইক্যুইটি সংস্থা কেকেআর অ্যান্ড কোং (KKR & Co. Inc), মোট ১১,৩৬৭ কোটি টাকায় মার্কিন সংস্থা, জিও এর এই অংশীদারি কিনতে চলেছে বলে জানানো হয়েছে মুকেশ আম্বানির (Mukesh Ambani) সংস্থার তরফে। এই নিয়ে চার সপ্তাহে পঞ্চম হিসেবে তাদের ছোটো অংশ বিক্রি করার চুক্তি করল দেশের প্রবীণতম অথচ সবচেয়ে বড় টেলিকম সংস্থা জিও। এছাড়াও ফেসবুক, সিলভার লেক পার্টনারস, ভিস্তা ইক্যুইটি এবং জেনারেল আটলান্টিকের থেকে মোট ৬৭,১৯৪.৭৫ কোটি টাকার বিনিয়োগ টেনেছে জিও। এটিই এশিয়া সবচেয়ে বড় বিনিয়োগ কেকেআরের।

করোনার প্রকোপে ১৪০০ কর্মী ছাঁটাই করবে ওলা, দেওয়া হবে তিন মাসের বেতন

সংস্থার তরফে একটি বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, “লেনদেনের অঙ্কে জিও এর ইক্যুইটি ভ্যালু ৪.৯১ লক্ষ কোটি টাকা এবং এন্টারপ্রাইস ভ্যালু ৫.১৬ লক্ষ কোটি টাকা। এশিয়ায় এটি কেকআরের সবচেয়ে বড় বিনিয়োগ এবং জিও প্লাটফর্মে তারা ২.৩২ শতাংশ শেয়ার নেবে পুরোপুরি ডাইলুট বেসিসে”।

এই চুক্তির আগে ফেসবুক তাদের ৯.৯৯ শতাংশ শেয়ার কিনেছে, ২২ এপ্রিল ফেসবুক জিওতে ৪৩,৫৭৪ কোটি টাকা বিনিয়োগ করে।

সেই চুক্তির দিনেই, বিশ্বের সবচেয়ে বড় প্রযুক্তি বিনিয়োগকারী সংস্থা ৫,৬৬৫.৭৫ কোটি টাকায় ১.১৫ শতাংশ শেয়ার কেনে।

৮ মে, ভিস্তা ইক্যুইটি পার্টনার্স ১১,৩৬৭ কোটি টাকার বিনিময়ে ২.৩২ শতাংশ শেয়ার কেনে। ১৭ মে আন্তর্জাতিক ইক্যুইটি সংস্থা জেনারেল আটলান্টিক ৬,৫৯৮ কোটির বিনিময়ে ১.৩৪ শতাংশ শেয়ার কেনে জিও এর।

করোনা সঙ্কটের মধ্যেই ১,১০০ কর্মীকে ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্ত নিল সুইগি

জিও এর তরফে বলা হয়েছে, “গত কয়েকমাসে, প্রথম সারির প্রযুক্তিক্ষেত্রের বিনিয়োগকারীরা যেমন ফেসবুক, সিলভার লেক, ভিস্তা, জেনারেল আটলান্টিক এবং কেকেআর জিও পাল্টফর্মে মোট ৭৮,৫৬২ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছে”।

জিও প্লাটফর্মে দীর্ঘমেয়াদে সবচেয়ে বড় লগ্নিকারী ডাইভার্স মার্ক, একটি আওতায় তারা একমাত্র প্রযুক্তি এবং প্লাটফর্ম কাজে লাগিয়েছে তারা। আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে আর কোথাও এই ধরণের সুবিধা নেই।

বিশ্বের প্রথমসারির এই সমস্ত বিনিয়োগকারীদের লগ্নির ফলে জিও এর বেড়ে ওঠা সহজ হবে এবং সংস্থাটি ভবিষ্যতে সফটওয়ার  ও অন্যতম প্লাটফর্ম সংস্থা হয়ে উঠবে।

তাদের তরফে জারি করা বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের নিজস্ব সংস্থা জিও প্লাটফর্ম, একটি ভবিষ্যত প্রজন্মের প্রযুক্তি প্লাটফর্ম, যারা উন্নত প্রযুক্তি এবং ভারতে সাধ্যের মধ্যে ডিজিটার পরিষেবা দিতে পারে ৩৮৮ মিলিয়ন ক্রেতাকে”।

১৯৭৬ সালে প্রতিষ্ঠা হয় কেকেআরের, প্রথম সারির আন্তর্জাতিক সংস্থা গড়ে তুলেছে তারা। প্রযুক্তিক্ষেত্রে ব্যপক বিনিয়োগ করেছে তারা, তারমধ্যে রয়েছে বিএমসি সফটওযার, বাইটড্যান্স এবং গো জেক।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)
Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com