সংস্থার লাভ বজায় রাখতে কর্মসংস্থান হ্রাস! ৬০০ কর্মীকে ছাঁটাই করল উবার ইন্ডিয়া

“কোভিড-১৯ এর প্রভাব এবং কবে কী পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে এই অনিশ্চয়তার ফলে উবার ইন্ডিয়া দক্ষিণ এশিয়ার কাছে কর্মীদের সংখ্যা হ্রাস ছাড়া অন্য কোনও বিকল্প নেই,” বলেন উবার ইন্ডিয়া এবং দক্ষিণ এশিয়ার সভাপতি প্রদীপ পরমেশ্বরণ।

সংস্থার লাভ বজায় রাখতে কর্মসংস্থান হ্রাস! ৬০০ কর্মীকে ছাঁটাই করল উবার ইন্ডিয়া

মঙ্গলবার অ্যাপ ক্যাব সংস্থা উবার ইন্ডিয়া জানিয়েছে যে করোনাভাইরাস মহামারীজনিত কারণে প্রায় ৬০০ পূর্ণ-সময়ের কর্মচারীদের ছাঁটাই করতে বাধ্য হচ্ছে তারা। করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের বিস্তারকে রোধ করতে দেশ লকডাউনের চতুর্থ পর্যায়ে রয়েছে। এতদিনের লকডাউনের জেরে দেশের অর্থনীতি স্থবির হয়ে পড়েছে এবং দেশজুড়ে বিভিন্ন সংস্থায় চলছে ব্যাপকহারে ছাঁটাই। এরই সঙ্গে এবার যুক্ত হল উবার ইন্ডিয়ার এই পদক্ষেপ।

উবার ইন্ডিয়া এবং দক্ষিণ এশিয়ার সভাপতি প্রদীপ পরমেশ্বরণ এক বিবৃতিতে বলেন, “ড্রাইভার এবং রাইডার সহ অন্যান্য বিভাগেও প্রায় ৬০০ জন পূর্ণ সময়ের কর্মী ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। এই ছাঁটাই এই মাসে হওয়া বিশ্বব্যাপী কর্মসংস্থান হ্রাসের একটি অংশ।”

“কোভিড-১৯ এর প্রভাব এবং কবে কী পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে এই অনিশ্চয়তার ফলে উবার ইন্ডিয়া দক্ষিণ এশিয়ার কাছে কর্মীদের সংখ্যা হ্রাস ছাড়া অন্য কোনও বিকল্প নেই,” বলেন পরমেশ্বরণ।

গত সপ্তাহে, উবার ইন্ডিয়ার মূল সংস্থা মার্কিন উবার টেকনোলজিস করোনাভাইরাস মহামারীর পরিস্থিতি সত্ত্বেও লাভজনক থাকার জন্য ২৩ শতাংশ কর্মী হ্রাস করার ঘোষণা করে।

চলতি মাসের শুরুর দিকেই উবার টেকনোলজিস জানিয়েছিল যে ৬,৭০০ টি কর্মসংস্থান ক্ষতিগ্রস্থ হবে এবং অ্যাপ-ক্যাব সহ খাদ্য সরবরাহের ক্ষেত্রে উবার নিজের মূল ব্যবসাগুলিতে মনোনিবেশ করবে।

ভারতে উবারের প্রতিদ্বন্দ্বী ওলা গত সপ্তাহেই ১,৪০০ কর্মচারীর ছাঁটাইয়ের কথা ঘোষণা করে। ওলা জানিয়েছিল করোনভাইরাস প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে লকডাউনের ফলে ওলার আয় ৯৫% হ্রাস পেয়েছে।