This Article is From Jul 06, 2018

মালিয়ার থেকে বকেয়া অর্থ পুনরুদ্ধারের জন্য একসঙ্গে কাজ করছে দুই দেশ: এসবিআই

বিজয় মালিয়ার সম্পত্তির থেকেই তাঁর ঋণ করা অর্থের বেশিরভাগটাই পুনরুদ্ধার করার জন্য উঠেপড়ে লেগেছে ভারতীয় ব্যাঙ্ক

মালিয়ার থেকে বকেয়া অর্থ পুনরুদ্ধারের জন্য একসঙ্গে কাজ করছে দুই দেশ: এসবিআই

বিজয় মালিয়ার সম্পত্তি নিলামে চড়িয়ে 963 কোটি টাকা পুনরুদ্ধার করেছে ব্যাঙ্ক

বিজয় মালিয়ার সম্পত্তির থেকেই তাঁর ঋণ করা অর্থের বেশিরভাগটাই পুনরুদ্ধার করার জন্য উঠে পড়ে লেগেছে ভারতীয় ব্যাঙ্ক।

এই ব্যাপারে ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে হাতে হাত মিলিয়ে কাজ করছে তারা। স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার ম্যানেজিং ডিরেক্টর অরিজিৎ বসু শুক্রবার সাংবাদিকদের এই কথা বলেন।

ব্রিটিশ আদালত ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষকে বিজয় মালিয়ার সমস্ত সম্পত্তির খোঁজে তল্লাশি চালিয়ে সেগুলি বাজেয়াপ্ত করার নির্দেশ দেওয়ার পরেই স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার ম্যানেজিং ডিরেক্টর এই বিবৃতি দেন।

“আদালতের রায়ে আমরা অত্যন্ত খুশি। এই ধরনের রায়ের ফলে নিজেদের সম্পত্তি পুনরুদ্ধার করার কাজটা অনেক সহজ হয়”, সাংবাদিক আজ বলেন তিনি। কোনও নির্দিষ্ট অঙ্কের কথা না উল্লেখ করলেও অরিজিৎ বসু সাংবাদিকদের জানান, “আমাদের অর্থের অনেকটাই পুনরুদ্ধার করতে পারব বলে আশা করছি”।

বিশ্বব্যাপী ফ্রিজিং অর্ডার দিয়ে দিয়েছে ব্রিটিশ এনফোর্সমেন্ট। যার ফলে ভারতীয় ব্যাঙ্কগুলি এখন তাদের ঋণ পুনরুদ্ধার করার ব্যাপারে অনেকটাই আশাবাদী। অরিজিৎ বসু আরও বলেন, কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করছে ভারতীয় ব্যাঙ্কগুলি। মূল্য-নির্ধারণকারীকেও এই কাজে নিয়োগ করা হয়েছে।

যে 13’টি ব্যাঙ্ক থেকে অর্থ ধার নিয়েছিলেন বিজয় মালিয়া নিজের সংস্থা অধুনা বিলুপ্ত কিংফিশার এয়ারলাইন্সের জন্য, সেই ব্যাঙ্কগুলির নেতৃত্বে রয়েছে স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া।

ভারত থেকে কতটা পুনরুদ্ধার করা গিয়েছে- এই প্রশ্নের উত্তরে অরিজিৎ বসু বলেন, ভারতে মালিয়ার সম্পত্তি নিলাম করে 13’টি ব্যাঙ্ক মোট পুনরুদ্ধার করতে পেরেছে 963 কোটি টাকা।

সম্প্রতি, ব্রিটিশ হাইকোর্টের বিচারপতি ওই 13’টি ভারতীয় ব্যাঙ্কের পক্ষে একটি এনফোর্সমেন্ট অর্ডার জারি করেছেন। বিজয় মালিয়ার ঋণ নেওয়া বিপুল অর্থের পুনরুদ্ধারের জন্যই এই রায় দেয় ব্রিটিশ হাইকোর্ট। লিকার ব্যারন বিজয় মালিয়া, কুকীর্তি সকলের সামনে এসে যাওয়ার পর যিনি ভারত থেকে রাতারাতি পালিয়ে গিয়েছিলেন ধরা পড়ার ভয়ে, তাঁর নামে প্রায় 9000 কোটি টাকা জালিয়াতি ও আর্থিক অনিয়মের মামলা চলছে।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদিত করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে.)
.