ভারতের নতুন স্টার্টআপগুলির জন্য প্রধানমন্ত্রীর বার্তা: জেনে নিন পাঁচটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়

মোদির মতে এখন শহরই নতুন ব্যবসা শুরু করার একমাত্র কেন্দ্র নয়,গ্রাম বা ছোট শহরেও শুরু করা যেতে নতুন কোনো পরিকল্পিত ব্যবসা

ভারতের নতুন স্টার্টআপগুলির জন্য প্রধানমন্ত্রীর বার্তা: জেনে নিন পাঁচটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কথায় আজকের বৃহৎ প্রতিষ্ঠানগুলি একসময় ছিল ছোট ছোট সংস্থা

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর তরফ থেকে বুধবার জানানো হয়েছে যে বর্তমানে যুব সমাজের যারা নিজস্ব ব্যবসা শুরু করতে উৎসাহী তাদের জন্য সরকার থেকে একাধিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। মোদির মতে এখন শহরই নতুন ব্যবসা শুরু করার একমাত্র কেন্দ্র নয়, গ্রাম বা ছোট শহরেও শুরু করা যেতে পারে নতুন কোনো পরিকল্পিত ব্যবসা। এমনকি দেরাদুন, গুয়াহাটি এবং রায়পুরের মতো ছোট শহরও হয়ে উঠতে পারে এর কেন্দ্র স্বরূপ।

ভারতে নতুন ব্যবসা শুরুর প্রসঙ্গে যে পাঁচটি জিনিসের কথা মোদী উল্লেখ করেছেন সেগুলি হলো :-

অর্থ ও সাহস প্রয়োজন ব্যবসা শুরুর ক্ষেত্রে :- প্রধানমন্ত্রী মোদীর কথায় নিজস্ব ব্যবসা  শুরু করে তাকে স্বাধীনভাবে এগিয়ে নিয়ে যাবার জন্য প্রাথমিক পর্বে প্রয়োজন টাকা এবং সাহস, এছাড়াও প্রয়োজন স্টার্টআপ করার মতো ব্যবসায়ী মনোভাব।

প্রযুক্তি থেকে কৃষি :- প্রধানমন্ত্রী বলছেন,একটা সময় ছিল যখন পর্যন্ত মানুষ নিজস্ব ব্যবসা শুরু করা মানেই বুঝতো কোনো নির্দিষ্ট প্রযুক্তিকে কেন্দ্র করে ব্যবসার সূত্রপাত ঘটানো কিন্তু আজ তা আর কেবল প্রযুক্তিভিত্তিক ব্যবসায় সীমাবদ্ধ নেই, তা এখন কৃষিতেও ছড়িয়ে পড়েছে। তিনি বলেছেন যে যদি এই যুবগোষ্ঠীকে সাহায্য করতে পারি তবে কৃষির মতো ক্ষেত্রতেও আমরা কোনো নতুন দিকের উদ্ভাবন ঘটাতে পারি আধুনিক চিন্তা ও ব্যবস্থা কে কাজে লাগিয়ে।

ভারতে স্টার্ট-আপ করার পরিকল্পনা: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেছেন যে দেশের নবীন উদ্যোক্তাদের উন্নীত করার জন্য সরকার 'স্টার্টআপ ইন্ডিয়া অ্যাকশন প্ল্যান' চালু করেছে। মোদী বলেন এই পরিকল্পনাটি ট্যাক্স হলিডে, ইন্সপেক্টর-রাজহীন পরিবেশ, লাভের ওপরে কর ছাড়ের মতো ব্যাপারে সাহায্য করবে। এটি ভারত সরকারের প্রথম উদ্যোগ, যার ফলে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বাড়িয়ে এবং বৃহত্তর কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করে দেশে উদ্ভাবনী শক্তি তথা স্টার্টআপগুলিকে সাহায্য করা সম্ভব হবে।

ছোট সংস্থা থেকে বৃহৎ প্রতিষ্ঠানে পরিণত হওয়া: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কথায় আজকের বৃহৎ প্রতিষ্ঠানগুলি একসময় ছিল ছোট ছোট সংস্থা। তার মতে স্টার্ট-আপ হল আমাদের উন্নতির ইঞ্জিন।তিনি সর্বদাই উন্নয়নে বিশ্বাসী। তিনি চান যে যুবগোষ্ঠীর মাধ্যমে যদি এরকম প্রকল্পের উন্নয়ন ঘটে তবে তা ভারতবর্ষকে উন্নতির শিখরে নিয়ে যেতে পারবে এবং এই স্টার্ট-আপ শুরু করার জন্য সরকার থেকে 10,000 কোটি টাকার তহবিল দেয়া হবে।

সরকারি নিয়মাবলী লাঘব: প্রধানমন্ত্রী বলেন যে প্রারম্ভে স্টার্টআপগুলি তাদের পণ্যগুলিকে সরকারকে বিক্রি করতে পারে এবং তাদের জন্য সরকার, প্রযোজ্য নিয়মগুলি লাঘব করেছে। তিনি আরো বলেন যে ভারত বিশ্বব্যাপী স্টার্টআপ প্রকল্পগুলোর মধ্যে নিজেকে আলাদাভাবে প্রতিষ্ঠা করতে পারবে।