বাজার পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে ব্যাঙ্ক কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক আরবিআই গভর্নরের

পাশাপাশি এই সঙ্কটের মুহূর্তে ব্যাঙ্কের লেনদেন সচল রাখার জন্য ব্যাঙ্ককর্তাদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি। জানা গিয়েছে, লোন মোরাটোরিয়ামের মেয়াদবৃদ্ধি নিয়েও কথা হয় বৈঠকে

বাজার পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে ব্যাঙ্ক কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক আরবিআই গভর্নরের

(ফাইল ছবি)

আর্থিক লেনদেনের পরিস্থিতি পর্যালোচনায় বৈঠক করলেন আরবিআই গভর্নর শক্তিকান্ত দাশ (RBI Governor)। শনিবার একাধিক রাষ্ট্রায়ত্ত  ও বেসরকারি ব্যাঙ্কের কর্তাদের সঙ্গে আলোচনায় বসেন আরবিআই গভর্নর (Shaktikant Das)। ভিডিও-কনফারেন্সের মাধ্যমে আয়োজিত হয় সেই বৈঠক। জানা গিয়েছে, বাজারে নগদের জোগান, নন-ব্যাঙ্কিং আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর পরিস্থিতি, মাইক্রোফিনান্স সংগঠন এবং মিউচুয়াল বিনিয়োগ নিয়ে বিস্তর আলোচনা করেন আরবিআই গভর্নর ও ব্যাঙ্ক কর্তারা (RBI-Bank Video-Conference)। পাশাপাশি এই সঙ্কটের মুহূর্তে ব্যাঙ্কের লেনদেন সচল রাখার জন্য ব্যাঙ্ককর্তাদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি। জানা গিয়েছে, লোন মোরাটোরিয়ামের মেয়াদবৃদ্ধি নিয়েও কথা হয় বৈঠকে। সূত্রের খবর, লোন মোরাটরিয়াম পরবর্তী পর্যায়ে পরিশোধ পদ্ধতিও সুদের হার নিয়ে আলোচনা হয়েছে বৈঠকে। এমনকি, চলতি অর্থ বর্ষে স্থিতাবস্থা বজায়ে ব্যাঙ্কের ভূমিকা কী, আলোচনা হয়েছে এই বিষয়ে। 

দ্বিতীয় আর্থিক প্যাকেজ? স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক প্রধানমন্ত্রীর

ইতিমধ্যে, ৪ মে থেকে তৃতীয় দফার লকডাউন লাগু হবে দেশে। ১৮ মে পর্যন্ত  চলবে এই মেয়াদ। কিন্তু সর্বত্র এই লকডাউন লাগু না করে গ্রিন জোন ও অরেঞ্জ জোনে কিছু শিথিলতা রাখতে নির্দেশ দিয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। জারি হয়েছে নতুন গাইডলাইন। এদিকে, অর্থ মন্ত্রক বাজার সচল রাখতে ১ কোটি ৭৬ লক্ষ টাকার আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করেছে। দ্বিতীয় দফায় প্যাকেজ ঘোষণা জরুরি কিনা, স্থির করতে বৈঠকে বসেলছিলেন প্রধানমন্ত্রী-অর্থমন্ত্রী। সেই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। 

ট্রাম্পের হুঙ্কারকে থোড়াই কেয়ার! ফের চিনের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হু

এদিকে, চলতি আর্থিক বছরে ভারতের জিডিপি বৃদ্ধির হার কমে ০.২ শতাংশের পূর্বাভাস দিল মান প্রদানকারী সংস্থা মুডিজ। মার্চের লক্ষ্যের থেকে এই পূর্বাভাস নিম্মমুখী, মার্চে ভারতের জিডিপি বৃদ্ধির হার ২.৫ শতাংশের পূর্বাভাস দিয়েছিল তারা। এরসঙ্গে করোনা ভাইরাস অতিমারীর এবং লকডাউনের জেরে যে সমস্ত সংস্থা ভারতের বৃদ্ধির হার কমিয়ে দেখিয়েছে তাদেরও উল্লেখ করেছে মুডিজ, গুরুত্বপূর্ণভাবে যার প্রভাব পড়েছে অর্থনীতিতে। সোমবার, চলতি বছরের জন্য দেশের অর্থনৈতিক বৃদ্ধির পূর্বাভাস পর্যালোচনা করে  ১.৯ শতাংশ করে ইন্ডিয়া রেটিংস অ্যান্ড রিসাচ্র, যা গত ২৯ বছরের সর্বনিম্ন, পাশাপাশি যোগ করা হয়, যদি মে এর পরেও লকডাউন থাকে, তাহলে অর্থনীতিতে ব্যাপক সঙ্কোচন আসতে পারে। এর আগে প্রথমে ভারতের বৃদ্ধির হার ৫.৩ শতাংশের পূর্বাভাস দেয় মুডিজ, পরে তা ২.৫ শতাংশ করে তারা, ইঙ্গিত দেয় ভারতে আয় ব্যাপকভাবে কমতে চলেছে।