This Article is From Nov 16, 2019

কম রাজস্ব আদায় হলেও জনকল্যাণমুখী প্রকল্পে কাটছাঁট নয়, জানালেন অর্থমন্ত্রী

Nirmala Sitharaman আশা করছেন যে নভেম্বরের জিএসটির সংগ্রহ "ভাল" হবে, অক্টোবরে জিএসটি থেকে আয় হয়েছে ৯৫,৩৮০ কোটি টাকা

কম রাজস্ব আদায় হলেও জনকল্যাণমুখী প্রকল্পে কাটছাঁট নয়, জানালেন অর্থমন্ত্রী

বাজেটে বরাদ্দ করা অর্থ ব্যয় করতে সরকার সব বিভাগকেই উৎসাহিত করবে, বলেন Nirmala Sitharaman

নয়া দিল্লি:

সরকারের কম রাজস্ব আদায় হলেও কোনও জনকল্যাণমূলক (Welfare Schemes) পরিকল্পনা কমানো হবে না সাফ জানালেন মোদি সরকারের অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। তবে তিনি আশা করেছেন যে, চলতি নভেম্বরে জিএসটির সংগ্রহ (GST Numbers) "ভাল" হবে।  অক্টোবরে জিএসটি থেকে কেন্দ্রীয় সরকারের আয় হয়েছে ৯৫,৩৮০ কোটি টাকা। সরকারের আয় যাই হোক না কেন তার প্রভাব পড়বে না কোনও সরকারি জনকল্যাণমুখী প্রকল্পে। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী (Nirmala Sitharaman) জানিয়েছেন এ ক্ষেত্রে ব্যয় হ্রাস করার বিষয়ে সরকারের কোনও পরিকল্পনা নেই এবং কেন্দ্রীয় সরকার সমস্ত বিভাগকেই বাজেটে প্রদত্ত পুরো তহবিল ব্যয় করতে উৎসাহিত করবে।

IMF যে আভাসই দিক না কেন, ভারত "দ্রুত উন্নতিশীল" দেশের মধ্যেই রয়েছে: অর্থমন্ত্রী

"জনকল্যাণমুখী প্রকল্পগুলি একই রকমভাবে চালু থাকবে। আমি বাজেট নিয়ে ভাবনাচিন্তা শুরু করেছি। আর্থিক সংকট বা পরিস্থিতির বিষয়ে আমি তখনই কিছু বলতে পারবো যখন সংশোধিত হিসেবনিকেশ সম্পূর্ণ হবে। তার আগে আমি এ বিষয়ে কোনও পদক্ষেপই করবো না... এবং জনকল্যাণমুখী প্রকল্পগুলি নিয়ে করা পরিকল্পনাও বদলানো হবে না", স্পষ্ট করেই জানিয়ে দেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন।

ভারত "গণতন্ত্রকে ভালবাসে, পুঁজিবাদীদের সম্মান করে": বিনিয়োগের আহ্বান অর্থমন্ত্রীর

এমএনআরইআরজিএস, প্রধানমন্ত্রী কিষাণ সম্মান, এবং অন্যান্য কল্যাণমূলক প্রকল্পগুলির ক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় সরকার উচ্চহারে বরাদ্দ রেখেছে।

তবে এমনিতে সামগ্রিকভাবে বেশ কিছুটা ধুঁকছে দেশের অর্থনীতি। তাই চলতি অর্থবছরে কেন্দ্রীয় সরকার এখনও পর্যন্ত মোট কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ১৩.৩৫ লক্ষ কোটি টাকার বদলে মাত্র ৬ লক্ষ কোটি টাকা আদায় করতে সমর্থ হয়েছে যা ৫০ শতাংশেরও কম। বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় প্রত্যক্ষ কর আদায় বোর্ডের সভাপতি পিসি মোদি বলেছেন, চলতি অর্থবছরের জন্য এবং বাজেটে নির্ধারিত লক্ষ্য অর্জনের জন্যে চেষ্টা চলছে।

.