এলআইসির দায়বদ্ধতা, প্রশাসনের উন্নতিতেই অংশীদারি বিক্রি, জানালেন অর্থমন্ত্রী

LIC IPO: ১৯৫৬ সালে তৈরি হয় এলআইসি, দেশের বেশিরভাগ জীবনবিমার অংশীদারিই রয়েছে তাদের

এলআইসির দায়বদ্ধতা, প্রশাসনের উন্নতিতেই অংশীদারি বিক্রি, জানালেন অর্থমন্ত্রী

LIC News: অর্থমন্ত্রী জানান, কতটা অংশীদারি বাজারে ছাড়া হবে, তা এখনও স্থির করা হয়নি।

হাইলাইটস

  • অর্থমন্ত্রী: এলআইসির কতটা অংশীদারি ছাড়া হবে, তা এখনও স্থির করা হয়নি
  • সরকারের থাকা এলআইসির ১০০ শতাংশের কিছুটা অংশীদারি বিক্রির সিদ্ধান্ত
  • দেশের বেশিরভাগ জীবনবিমার অংশীদারিই রয়েছে এলআইসির

ভারতীয় জীবনবিমা নিগম (Life Insurance Corporation) বা এলআইসিকে (LIC) বিলগ্নিকরণের তালিকায় রাখার সরকারের সিদ্ধান্তে সংস্থাটির প্রশাসন এবং দায়বদ্ধতার উন্নতি ঘটাবে, শনিবার এমনটাই দাবি করলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন (Nirmala Sitharaman) । দিন কয়েক আগেই ২০২০-২১ অর্থবর্ষের বাজেট পেশ করেন তিনি, সেখানেই অর্থমন্ত্রী এলআইসির ১০০ শতাংশের মধ্যে কিছুটা অংশীদারি বিক্রির ঘোষণা করেন। ১৯৫৬ সালে তৈরি হয় এলআইসি, দেশের বেশিরভাগ জীবনবিমার অংশীদারিই রয়েছে তাদের। অর্থমন্ত্রী বলেন, “কতটা অংশীদারি বাজারে ছাড়া হবে, তা এখনও স্থির করা হয়নি”। ২০২১ এর মার্চে শেষ হতে যাওয়া আর্থিক বছরে ২.১ লক্ষ কোটি টাকা বিলগ্নিকরণের যে লক্ষ্যমাত্রা সরকার রেখেছে, এলআইসি নিয়ে সিদ্ধান্তের ফেল তা পূরণ করতে সুবিধা হবে. বর্তমান অর্থবর্ষে এই লক্ষ্যমাত্রা ১.০৫ লক্ষ কোটি টাকা।

এবার বেসরকারিকরণের পথে এলআইসি, শেয়ারের একাংশ বিক্রি করে দিচ্ছে সরকার

কেন্দ্রীয় বাজেটে, সরকার জানিয়েছে, বিভিন্ন রাষ্ট্রয়াত্ব প্রতিষ্ঠান এবং ব্যঙ্কগুলির অংশীদারি বিক্রির মাধ্যমে ৯০,০০০ কোটি টাকা আয় করা হবে, এলআইসির জন্য এখনও কোনও রোডম্যাপ তৈরি করা হয়নি।

এই সপ্তাহে বিমা সংস্থাগুলির অংশীদারি বিক্রির প্রস্তাবের বিরুদ্ধে এক ঘন্টার বিক্ষোভ করে সারা ভারত জীবনবিমা কর্মচারি সংগঠন।

সরকার জানিয়েছে, চলতি আর্থিক বছরের দ্বিতীয়ার্ধে এলআইসির বাজারে ছাড়া অংশের পরিমাণ স্থির করা হবে। আরও জানানো হয়, এর ফলে আরওও স্বচ্ছতা আসবে এবং মানুষের যোগদান বাড়বে এবং ইকুইটি মার্কেটে অংশগ্রহণ বাড়বে। 

এলআইসির চেয়ারম্যান NDTV কে জানান, যে, সরকারের এই সিদ্ধান্তে কর্মীদের কোনও সমস্যা হবে না।

More News