সার্কুলার জার্নি টিকিট সম্পর্কে 5টি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

সার্কুলার জার্নি টিকিট সম্পর্কে এমন কয়েকটি তথ্য যা না জানলেই নয় 

সার্কুলার জার্নি টিকিট সম্পর্কে 5টি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

একযোগে সব মিলিয়ে  আট বার এভাবে ভেঙে ভেঙে যাতায়াত করা যায়।

গ্রাহকদের  স্বার্থ মাথায় রেখে ভারতীয় রেলে শুরু হয়েছে  সার্কুলার জার্নি টিকিট।  খুব জনপ্রিয় নয় এমন রুট গুলির ক্ষেত্রে এই টিকিটের ব্যবহার হয়। এখানে যাত্রা একই স্টেশন থেকে শুরু এবং শেষ হয়।  একযোগে সব মিলিয়ে  আট বার এভাবে ভেঙে ভেঙে যাতায়াত করা যায়।  দেখা গিয়েছে এই সার্কুলার জার্নি টিকিট কিছুটা হলেও  সস্তা হয়ে থাকে।  মানে এ ধরনের টিকিট কাটলে শুধু যে সময় বাঁচে তা নয়, কমে খরচও।  কয়েকটি ক্ষেত্রে অবশ্য জনপ্রিয় রুটেও মেলে এই সুবিধা।           

সার্কুলার জার্নি টিকিট সম্পর্কে এমন কয়েকটি তথ্য যা না জানলেই নয় 
    
1. যাত্রার রূপরেখা চূড়ান্ত হওয়ার পর যাত্রীরা ডিভিশনাল কমার্শিয়াল ম্যানেজারের সঙ্গে যোগাযোগ করে সার্কুলার জার্নি টিকিটের আবেদন জানাতে পারেন। সমস্তটা দেখে মোট কত খরচ হবে সেই পরিমাণ ঠিক করে দেন ম্যানেজার।  এরপর যাত্রীকে আবেদনপত্র পূরণ করে যাত্রা সম্পর্কে জানাতে হয় স্টেশন মাস্টারকে।    

2. যে স্টেশন থেকে যাত্রী যাত্রা শুরু করতে চান সেখানে ওই আবেদনপত্র জমা করতে হবে ।  টিকিট কেনা হয়ে গেলেই যেতে হবে রিজার্ভেশন অফিসে। প্রত্যেকটি সফরেই যাতে রিজার্ভেশন পাওয়া যায় তা সুনিশ্চিত করতে রিজার্ভেশন অফিসেই যেতেই হবে।  

3. সাউদার্ন রেলের  জনপ্রিয় রুটে এই টিকিট কাটার সুযোগ নেই।  অন্য্ রুটে অবশ্য স্বাভাবিক ভাবে টিকিট কাটা সম্ভব। 

4.একটি সার্কুলার জার্নিকে   রেল দুটি সিঙ্গল জার্নি বলে ধরে।  আর সেভাবেই  ঠিক হয় টিকেটের দাম। 

 
5. এই টিকিটে সিনিয়র সিটিজেনদের জন্য ছাড় দেওয়ার ব্যবস্থা আছে।  পুরুষরা ছাড় পান  40 শতাংশ হরে আর মহিলারা পান  50 শতাংশ হরে।  মোট 1,000 কিলোমিটার যাত্রার ক্ষেত্রে  এই ছাড় পাওয়া যায়।