ব্যক্তিগত আয়করে নয়া কর কাঠামোর সুপারিশ টাস্ক ফোর্সের : খবর

Income Tax: টাস্ক ফোর্সের সুপারিশ গ্রাহ্য হলে, বাৎসরিক ৫ লক্ষ থেকে ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয়ের ক্ষেত্রে ১০ শতাংশ হারে আয়কর দিতে হবে

ব্যক্তিগত আয়করে নয়া কর কাঠামোর সুপারিশ টাস্ক ফোর্সের : খবর

New Income Tax Slabs: প্যানেলের তরফে লভ্যাংশ বিতরণ কর প্রত্যাহার করার প্রস্তাব করা হয়েছে

নয়াদিল্লি:

ব্যক্তিগত ক্ষেত্রে নয়া কর (Income Tax) কাঠামোর সুপারিশ করেছে অখিলেশ রঞ্জনের নেতৃত্বে সরকারের তৈরি প্রত্যক্ষ্ কর বিধির টাস্ক ফোর্স । ৫৮ বছরের পুরানো আয়কর আইন বদলের সুপারিশ করেছে এই টাস্ক ফোর্স। টাস্ক ফোর্সের সুপারিশ গ্রাহ্য হলে, বাৎসরিক ৫ লক্ষ থেকে ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয়ের ক্ষেত্রে ১০ শতাংশ হারে আয়কর দিতে হবে। আইএএনএস জানতে পেরেছে যে, ব্যক্তিগত আয়কর (Income Tax) কাঠামোয় আমুল পরিবর্তনের সুপারিশ করা হয়েছে। তারমধ্যে রয়েছে, বাৎসরিক ১০ লক্ষ থেকে ২০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত যে সমস্ত ব্যক্তির আয়, তাঁদের ক্ষেত্রে আয়কর কমানোর প্রস্তাব।

একক ব্র্যান্ডের খুচরো পণ্য, ডিজিটাল মিডিয়া, উৎপাদনে FDI নিয়ে বড় পদক্ষেপ কেন্দ্রের

বর্তমানে, ২.৫ লক্ষ থেকে ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয়ের ক্ষেত্রে ৫ শতাংশ আয়কর দিতে হয়, ৫ লক্ষ থেকে ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয়ের ক্ষেত্রে দিতে হয় ২০ শতাংশ আয়কর, ১০ লক্ষ টাকার ওপরে আয়ের ক্ষেত্রে দিতে হয় ৩০ শতাংশ আয়কর।

সূত্র মারফৎ জানা গিয়েছে, বর্তমানে চালু থাকা ৫ শতাংশ, ২০ শতাংশ এবং ৩০ শতাংশ আকর কাঠামোর বদল ঘটিয়ে ৫ শতাংশ, ১০ শতাংশ, ২০ শতাংশ, ৩০ শতাংশ এবং ৩৫ শতাশ আয়কর কাঠামো তৈরির সুপারিশ করা হয়েছে।

২০১৯-এর অন্তবর্তী বাজেটে অন্তবর্তী অর্থমন্ত্রী পিযুষ গোয়েলের ঘোষণা অনুযায়ী, ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত যাঁদের আয়, তাঁরা আয়করের ক্ষেত্রে ছাড় পাবেন। অর্থাৎ, যে সমস্ত ব্যক্তি বাৎসরিক ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয় করেন, তাঁদের ক্ষেত্রে আয়করের পরিমাণ হবে শূন্য।

RBI News: আর্থিক ঘাটতি কমাতে পাশে শীর্ষ ব্যাঙ্ক,সরকারকে ১.৭৬ লক্ষ কোটি টাকা দিল RBI

১৯ অগস্ট অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামনের কাছে রিপোর্ট জমা দেওয়া হয়, তবে তা এখনও প্রকাশ করা হয়নি। সূত্রের খবর, প্যানেলের তরফে সুপারিশ করা হয়েছে  যে, ২০ লক্ষ টাকা থেকে ২ কোটি টাকা পর্যন্ত আয়ের ক্ষেত্রে আগের হারে অর্থাৎ ৩০ শতাংশই আয়কর দিতে হবে।

প্যানেলের তরফে আরও সুপারিশ করা হয়েছে, ধনীদের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ হারে ৩৫ শতাংশ কর কাঠামো তৈরি করা হোক।

মধ্যবিত্তের পকেট সাশ্রয় করা এবং দেশের অর্থনীতিকে আরও গতিশীল করে তুলতেই এই নয়া এই কর কাঠামোর প্রস্তাব বলে জানা গিয়েছে।

প্যানেলের তরফে লভ্যংশ বিতরণ কর এবং সর্বনিম্ন বিকল্প কর প্রত্যাহার করার প্রস্তাব করা হয়েছে।

সারচার্জে সরকারকে এড়িয়ে চলার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে প্যানেলের তরফে।