This Article is From Jul 17, 2019

আয়কর রিটার্ন (ITR) দাখিলের আগে আপনার এগুলি জানা উচিত

ITR filing:আয়কর বিভাগের নিয়মানুযায়ী আয়কর জমা না দিলে আপনার বিরুদ্ধে মামলা ও কড়া শাস্তি হতে পারে।

আয়কর রিটার্ন (ITR) দাখিলের আগে আপনার এগুলি জানা উচিত

আয়কর বিভাগের প্রাক-ভর্তি আইটিআর-1, আইটিআর-2, আইটিআর-3 এবং আইটিআর-4 ফর্মগুলি এক্সএমএল ফাইল হিসাবে ডাউনলোড করা যাবে

নিউ দিল্লি:

২০১৯-২০ তে(আর্থিক বছর ২০১৮-১৯) আয়কর জমা দেওয়ার (আইটিআর) শেষ দিন আগামী ৩১ জুলাই। এবার আয়কর বিভাগের তরফে কিছু নির্দিষ্ট শ্রেণীর আয়করদাতাদের জন্য প্রাক-ভর্তি আইটিআর (আয়কর রিটার্ন) ফর্ম চালু করেছে । আয়কর বিভাগের প্রাক-ভর্তি আইটিআর-1, আইটিআর-2, আইটিআর-3 এবং আইটিআর-4 ফর্মগুলি এক্সএমএল ফাইল হিসাবে ডাউনলোড করা যাবে। এই প্রাক-ভর্তি ফর্মগুলিতে চলতি আর্থিক বছরে করদাতাদের দ্বারা প্রদত্ত আয় এবং করের বিশদ বিবরণ দেওয়া থাকবে। আয়কর বিভাগ ব্যাংক, মিউচুয়াল ফান্ড, ক্রেডিট কার্ড কোম্পানি এবং সাব-রেজিস্ট্রার ইত্যাদি তৃতীয় পক্ষের সংস্থার কাছ থেকে এই বিবরণ সংগ্রহ করে। তবে আয়কর বিভাগের পক্ষ থেকে করদাতাদের এই আয়কর রিটার্ন দাখিল করার আগে এই তথ্যগুলি আবার পরীক্ষা করে দেখে নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছে,  কারণ এই তথ্যগুলি সরবরাহের সময় কিছু ভ্রান্তি থাকলেও থাকতে পারে, তাই ওই তথ্যগুলি ভাল করে খতিয়ে দেখেই যেন নিজেদের আয়কর রিটার্ন ফাইল করেন করদাতারা।

পাহারার মাঝেই একাগ্রে পড়াশোনা! কঠিন প্রবেশিকায় উত্তীর্ণ জেএনইউয়ের নিরাপত্তারক্ষী

কাদের এই আয়কর রিটার্ন (আইটিআর) ফাইল করতে হবে?

যে সব ব্যক্তিদের বার্ষিক আয় ২.৫ লক্ষ বা তার বেশি টাকা,  আয়কর দফতরের ওয়েবসাইট অনুযায়ী তাঁদেরই আয়কর ফেরত দেওয়ার প্রয়োজন পড়ে।ওদিকে প্রবীণ নাগরিকদের জন্যে (60 থেকে 80 বছর বয়সী ব্যক্তিদের জন্য)এই আয়কর সীমা বেড়ে ৩ লক্ষে দাঁড়ায়। আবার অতি প্রবীণ নাগরিকদের জন্যে (৮০ বছরের উপরে)এই আয়কর প্রদানের সীমা আরও বেড়ে হয় বার্ষিক ৫ লক্ষ টাকা। আয়কর বিভাগের নিয়ম অনুযায়ী নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আয়কর জমা না দিলে সেই ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা করা হবে এবং তাঁর কড়া শাস্তিও প্রাপ্য।

অসমের বন্যা পরিস্থিতিতে ক্ষতিগ্রস্ত ৫২ লক্ষ মানুষ, এখনও পর্যন্ত মৃত ২০

দেখে নিন আপনি আয়কর বিভাগের ই-ফাইলিং পোর্টাল (incometaxindiaefiling.gov.in)-এর মাধ্যমে কিভাবে অনলাইনে আয়কর জমা দেওয়ার(আইটিআর) জন্যে ফাইল করতে পারেন:

প্রথম ধাপ: যাঁরা আয়কর রিটার্ন দাখিল করতে চান তাঁদের স্থায়ী অ্যাকাউন্ট নম্বর (প্যান) ব্যবহার করে আয়কর বিভাগের ই-ফাইলিং পোর্টাল - (incometaxindiaefiling.gov.in)- এর সাথে রেজিস্টার বা নিবন্ধন করাতে হবে।

দ্বিতীয় ধাপ: এবার তাঁদের আয়কর এবং জমা সহ সুদ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য যেগুলি স্বয়ংক্রিয়ভাবে গণনা করা হয়েছে সেগুলিকে প্রস্তুত করতে হবে ও সাবমিট বা জমা করতে হবে।

তৃতীয় ধাপ: ​ আয়কর রিটার্ন জমা দেওয়ার পর ওই ব্যক্তিদের তাঁদের আয় যাচাই করে দেখতে হবে এবং সেটা ইলেক্ট্রনিক ভেরিফিকেশন কোড (ইভিসি) বা আধার ওটিপি বা ডিজিটাল স্বাক্ষর সার্টিফিকেট ব্যবহার করে করা যেতে পারে।