মহার্ঘ হবে স্যানিটাইজার! অ্যালকোহল-ভিত্তিক স্যানিটাইজারের উপর ১৮% জিএসটি লাগু!

Hand Sanitisers: উপভোক্তা বিষয়ক মন্ত্রক হ্যান্ড স্যানিটাইজারকে একটি প্রয়োজনীয় পণ্য হিসাবে শ্রেণিবদ্ধ করেছিল। তবে কর্তৃপক্ষ তার রায়ে জানিয়েছে, জিএসটি আইনে ছাড়যোগ্য পণ্যের পৃথক তালিকা রয়েছে।

মহার্ঘ হবে স্যানিটাইজার! অ্যালকোহল-ভিত্তিক স্যানিটাইজারের উপর ১৮% জিএসটি লাগু!

Hand Sanitisers: কর্তৃপক্ষ তার রায়ে জানিয়েছে, জিএসটি আইনে ছাড়যোগ্য পণ্যের পৃথক তালিকা রয়েছে।

Authority for Advance Ruling বা এএআর জানিয়েছে যে সমস্ত অ্যালকোহল-ভিত্তিক হ্যান্ড স্যানিটাইজারের উপর ১৮ শতাংশ জিএসটি প্রয়োগ করা হবে কারণ এগুলি ‘অ্যালকোহল ভিত্তিক হাত স্যানিটাইজার' বিভাগের অধীনে পড়ছে। গোয়ার স্প্রিংফিল্ড ইন্ডিয়া ডিস্টিলারিজের একটি আবেদনের জবাবেই এই রায়টি দিয়েছে AAR। স্প্রিংফিল্ড ইন্ডিয়া ডিস্টিলারিজ অ্যালকোহল ভিত্তিক স্যানিটাইজার তৈরিতে উদ্যোগ নিয়েছে।

হ্যান্ড স্যানিটাইজারের শ্রেণিবদ্ধকরণের বিষয়ে স্পষ্ট জানতে এবং এই স্যানিটাইজারগুলিকে জিএসটি থেকে ছাড় দেওয়া হবে কিনা তা জানতে স্প্রিংফিল্ড ইন্ডিয়া ডিস্টিলারিজ AAR-এর গোয়া বেঞ্চের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিল। কারণ গ্রাহক বিষয়ক মন্ত্রক হ্যান্ড স্যানিটাইজারকে কিন্তু প্রয়োজনীয় পণ্য হিসাবেই শ্রেণিবদ্ধ করেছে।

কর্তৃপক্ষ বলছে, “আবেদনকারীর দ্বারা উত্পাদিত হ্যান্ড স্যানিটাইজারগুলি অ্যালকোহল-ভিত্তিক স্যানিটাইজারের বিভাগে পড়ে এবং এইচএসএন-এর ৩৮০৮ বিভাগের অধীনে শ্রেণিবদ্ধ করা আছে যেখানে জিএসটি প্রয়োগের হার ১৮ শতাংশ হবে।"

উপভোক্তা বিষয়ক মন্ত্রক হ্যান্ড স্যানিটাইজারকে একটি প্রয়োজনীয় পণ্য হিসাবে শ্রেণিবদ্ধ করেছিল। তবে কর্তৃপক্ষ তার রায়ে জানিয়েছে, জিএসটি আইনে ছাড়যোগ্য পণ্যের পৃথক তালিকা রয়েছে।

স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ বিশ্বব্যাপী অ্যালকোহল ভিত্তিক হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করার পরামর্শ দিচ্ছে, যাতে কমপক্ষে ৬০ শতাংশ অ্যালকোহল থাকবেই। যতদিন না ভ্যাকসিন তৈরি হয়ে যাচ্ছে ততদিন ভয়াবহ কোভিড ১৯ ভাইরাসকে দমিয়ে রাখতে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবহার বাড়াতেই হবে।