২০১৯-২০ অর্থবর্ষের শেষ ত্রৈমাসিকে জিডিপি ৪.২%! ১১ বছরে সর্বনিম্ন বৃদ্ধি, দেখুন ১০ পয়েন্টে

লকডাউন, সংক্রমণের মতো বিষয়গুলোর প্রভাব পড়েছে বৃদ্ধির হারে। ২০১৮-১৯ অর্থবর্ষে জিডিপি ছিল ৬.১%

জানুয়ারি থেকে মার্চ চতুর্থ ত্রৈমাসিকে (Quarter) ৩.১% বেড়েছে ভারতের জিডিপি (GDP)।যদিও গত ৮ বছরের নিরিখে এই বৃদ্ধি শ্লথ। এমনটাই দাবি অর্থমন্ত্রকের (Finance Ministry)।শুক্রবার প্রকাশিত এই পরিসংখ্যান ঘিরে কিছুটা উচ্ছ্বসিত অর্থমন্ত্রক। কারণ বিশেষজ্ঞদের তরফে দাবি করা হয়েছিল, গত অর্থবর্ষের শেষ ত্রৈমাসিকে জিডিপি থাকে ৪-এর নীচে। কিন্তু পরিসংখ্যান বলছে,২০১৯-২০ অর্থবর্ষ (FY 2019-20) শেষ হয়েছে ৪.২% জিডিপি নিয়ে। ২০১৮-১৯ অর্থবর্ষে জিডিপির বৃদ্ধি দাঁড়িয়েছিল ৪.১% হারে। সেই তুলনায় শ্লথ হলেও সঙ্কটের মুহূর্তে এই বৃদ্ধি আশাব্যাঞ্জক। এমনটাই মত বিশেষজ্ঞদের। এদিকে করোনা সংক্রমণের জেরে প্রায় ৩ মাস দেশে চলছে লকডাউন। ঘাটতি ব্যবসায়। মন্দা বাজারে। প্রায় কয়েক লক্ষ তরুণ ক্রমে কর্মহীন হয়ে পড়বেন। এমন ইঙ্গিত দিয়েছেন বাজার বিশেষজ্ঞরা। তার মধ্যে চলতি অর্থবর্ষের প্রথম ত্রৈমাসিকে জিডিপি নিয়ে উদ্বেগে অর্থমন্ত্রক।

১০ পয়েন্টে দেখুন প্রকাশিত জিডিপি পরিসংখ্যান:

  1. সংবাদ সংস্থা রয়টার্স সম্প্রতি একটা সমীক্ষা চালিয়েছিল ভারতের বাজারের ওপর। সেখানে অধিকাংশ অর্থনীতিবিদ পূর্বাভাস দিয়েছিলেন, "গত অর্থবর্ষের শেষ ত্রৈমাসিকে ভারতের জিডিপি বৃদ্ধি ২.১% হারে থাকবে। ৪.৫%-এর ওপরে কিংবা ঋণাত্মক ১.৫% এর মধ্যে থাকবে জিডিপি

  2. শুক্রবার প্রকাশিত পরিসংখ্যানে উল্লেখ, ৩১ মার্চ শেষ হওয়া অর্থবর্ষে ভারতের জিডিপি ৪.২%। লকডাউন, সংক্রমণের মতো বিষয়গুলোর প্রভাব পড়েছে বৃদ্ধির হারে। ২০১৮-১৯ অর্থবর্ষে জিডিপি ছিল ৬.১%

  3. শুক্রবার প্রকাশিত পরিসংখ্যানে দেখা গিয়েছে, গত আর্থিক বর্ষে প্রায় সব ত্রৈমাসিকে কমেছে জিডিপি বৃদ্ধির হার। ৩১ ডিসেম্বরে, ২০১৯-এ শেষ হওয়া তৃতীয় ত্রৈমাসিকে জিডিপি বৃদ্ধির হার ছিল ৪.১%। যা ২০১৮-১৯ অর্থবর্ষের তুলনায় .৬% কম

  4. জাতীয় পরিসংখ্যান দফতর থেকে এদিন প্রকাশিত পরিসংখ্যান প্রসঙ্গে যুক্তি দিতে গিয়ে জানিয়েছে, যেহেতু মার্চ মাস থেকে প্রকোপ বাড়ে করোনার। বন্ধ করা হয় অনেক বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান তাই শ্লথ ছিল জিডিপি বৃদ্ধির গতি।" 

  5. জাতীয় পরিসংখ্যান দফতরের আরও দাবি, "চতুর্থ লকডাউনের আবহেও অনেক সরকারি প্রতিষ্ঠান বন্ধ। ফলে বাণিজ্যিক তথ্য আদান-প্রদান সম্পূর্ণ হয়নি। তাই পারিপার্শ্বিক তথ্যের ওপর ভিত্তি করে এই পরিসংখ্যান প্রকাশ করা হয়েছে

  6. এদিকে চলতি মাসের প্রথমে ২১ লক্ষ কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করেছিলেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। লকডাউন আবহে বাজারের গতি সচল রাখতে এই সিদ্ধান্ত

  7. সরকারি তরফে প্রচেষ্টা থাকলেও অর্থনীতিবিদদের উলটো সুর। তাঁরা চলতি অর্থবর্ষের প্রথম দুটি ত্রৈমাসিকের জন্য আর্থিক মন্দার পূর্বাভাস দিয়ে রেখেছেন

  8. অনেকের মতে, "এপ্রিল-জুন মাসের ত্রৈমাসিক হিসেব করলেই আগামী দিনের চিত্রটা কী? স্পষ্ট হয়ে যাবে সরকারের কাছে।" 

  9. এদিকে মার্কিন আর্থিক সমীক্ষা সংস্থা গোল্ডম্যান সাচস, চলতি অর্থবর্ষে ভারতের জিডিপি ৫% পূর্বাভাস দিয়েছে

  10. জানা গিয়েছে, মোট জিডিপির ৫৫% পরিষেবা ক্ষেত্র থেকে আসে। তাই প্রায় ৩ মাস পরিষেবা ক্ষেত্র বন্ধ থাকায় প্রভাবিত হবে জিডিপি বৃদ্ধির হার