This Article is From Nov 01, 2018

"আমাদের বোকা বানানোর চেষ্টা করলে জেলে যেতে হবে", আম্রপালি কর্তাকে বলল আদালত

এর আগের শুনানিতেও আদালত তীব্র ভর্ৎসনা করেছিল চান্দর ওয়াধয়াকে।

আম্রপালি গ্রুপের মুখ্য অর্থনৈতিক অফিসার আয়কর দিয়েছেন দু'কোটি টাকা।

আম্রপালি গ্রুপের মুখ্য অর্থনৈতিক অফিসার প্রতি মাসে বেতন নিতেন 50,000 টাকা। কিন্তু তাঁর রিয়েলিটি ফার্মের অধীনস্থ সংস্থা তাঁর আয়কর হিসেবে দু'কোটি টাকা দিয়েছে বলে বুধবার শীর্ষ আদালতে জানায় ফরেনসিক অডিটররা। সুপ্রিম কোর্টকে আরও জানানো হয় যে, আম্রপালি গ্রুপের মুখ্য অর্থনৈতিক অফিসার চান্দর ওয়াধয়াকে গ্রুপের পক্ষ থেকে একটি 43 লক্ষ টাকার বিলাসবহুল গাড়ি উপহার দেওয়া হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের দুই বিচারপতির বেঞ্চে যাঁরা মামলাটির সময় ছিলেন সেই বিচারপতি অরুণ মিশ্র এবং ইউ ইউ ললিত এই তথ্যপ্রকাশের খবরে অবাক হয়ে যান। শুধু তাই নয়, তাঁরা রীতিমতো ভর্ৎসনা করেন চান্দর ওয়াধয়াকে। "কেন একটি সংস্থা আপনার আয়করের দু'কোটি টাকা দেবে, যেখানে আপনার বেতন মাসে মাত্র পঞ্চাশ হাজার টাকা? আপনাকে আগামীকালের মধ্যে ওই সংস্থায় আপনার ভূমিকা সম্বন্ধে সমস্ত তথ্য আদালতের কাছে জমা দিতে হবে", নির্দেশ দেয় দুই বিচারপতির বেঞ্চ। 

 

এর আগের শুনানিতেও আদালত তীব্র ভর্ৎসনা করেছিল চান্দর ওয়াধয়াকে। তিনি আদালতকে বলেছিলেন, সংস্থার পক্ষ থেকে ওই গাড়িটি তাঁকে দেওয়া হয়েছিল  2017 সালে। তিনি এ কথাও জানিয়েছিলেন যে, বেতনের পাশাপাশি তিনি একজন  পেশাদার হিসেবেও সংস্থা থেকে অর্থ নেন। " আমাদের বোকা বানানোর চেষ্টা করবেন না। আদালতকে ব্যঙ্গ করারও চেষ্টা করবেন না। আপনি যদি স্পষ্টভাবে ঠিক তথ্য দিতে না পারেন, তাহলে জেলে যেতে হবে। আমরা এইভাবে আপনাকে জিজ্ঞাসাবাদ করব না। করতে পারি না। পুরো ব্যাপারটির তদন্ত করবে ইডি", বলেছিল ওই বেঞ্চ। 

 

আদালত এটাও জানিয়ে দেয়, আম্রপালি গ্রুপ থেকে কত টাকা পেয়েছেন তিনি, তার সমস্ত হিসেবনিকেশ বৃহস্পতিবারের মধ্যে আদালতের কাছে পেশ করতে হবে। এবং, তাঁকে জানাতে হবে, কার নির্দেশে কাজ করেছিলেন তিনি। কার কাছ থেকেই বা অর্থ পেয়েছেন। ভুল তথ্য দিলে কড়া শাস্তির দাওয়াই দেওয়ার কথাও জানিয়ে দেয় সুপ্রিম কোর্ট।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদিত করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে.)
.