লকডাউনের জের, শেয়ার বাজারে মন্দা, ৪০০ পয়েন্ট নামল সেনসেক্স, নিফটি ৯,২০০ এর নীচে

Coronavirus Lockdown: প্রাথমিকভাবে ৩১,০৯৭.৫০ পয়েন্টে পৌঁছনোর পরে অবশ্য ধীরে ধীরে সামান্য উন্নতি হয়, সেনসেক্স বেড়ে পৌঁছয় ৩১,১৬১.০২ পয়েন্টে

লকডাউনের জের, শেয়ার বাজারে মন্দা, ৪০০ পয়েন্ট নামল সেনসেক্স, নিফটি ৯,২০০ এর নীচে

Stock Market: মঙ্গলবার বাজার খোলার সঙ্গে সঙ্গেই নিফটির সূচক নিম্নমুখী হয় (ফাইল চিত্র)

হাইলাইটস

  • শেয়ার বাজারেও করোনা ভাইরাসের প্রভাব
  • গোটা বিশ্ব জুড়েই বিরাট আর্থিক মন্দা
  • টানা লকডাউনের কারণে ভারতেও ধুঁকছে ব্যবসায়িক লেনদেন

করোনা সংক্রমণ রুখতে ২৫ মার্চ থেকে একটানা লকডাউন (Coronavirus Lockdown) চলছে দেশ জুড়ে। স্বাভাবিকভাবেই বন্ধ রয়েছে ব্যবসা বাণিজ্য থেকে আর্থিক লেনদেন। এই পরিস্থিতির প্রভাব পড়লো শেয়ার বাজারেও (Stock Market)। মঙ্গলবার বাজার খোলার সঙ্গে সঙ্গেই নিম্নমুখী হল শেয়ার সূচক। একধাক্কায় ৪০০ পয়েন্ট নামল সেনসেক্স (Sensex), নিফটির (Nifty) সূচকও গেল ৯,২০০ এর নীচে। গোটা বিশ্বই মারাত্মক এক আর্থিক মন্দার মুখোমুখি হয়েছে। তার জেরেই মঙ্গলবার ইক্যুইটি বেঞ্চমার্ক সেনসেক্সের সূচক (Share Market) নামল এইচডিএফসি টুইনস, রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ এবং আইসিআইসিআই ব্যাংকের লোকসানের ফলে। একবারে ৪০০ পয়েন্ট নেমে গেল সূচক। প্রাথমিকভাবে ৩১,০৯৭.৫০ পয়েন্টে পৌঁছনোর পরে অবশ্য ধীরে ধীরে সামান্য হলেও উন্নতি হয় শেয়ার বাজারের। ৩০ টি শেয়ার সূচক ৪০০.২০ পয়েন্ট বা ১.২৭ শতাংশ হ্রাস পেলেও পয়েন্ট সামান্য বেড়ে হয় ৩১,১৬১.০২ পয়েন্ট।

করোনা লকডাউনের জের? ডলারের তুলনায় টাকার দাম কমে হল ৭৫.৭৬ টাকা

একইভাবে এনএসই নিফটি ১০৩.৯৫ পয়েন্ট বা ১.১৩ শতাংশ কমে এসে দাঁড়ায় ৯,১৩৫.২৫ পয়েন্টে। এশিয়ান পেইন্টসের সেনসেক্স সবচেয়ে বেশি অর্থাৎ ৩ শতাংশেরও বেশি নেমে যায়। পরে এইচডিএফসি টুইনস, মারুতি, ওএনজিসি, এইচএল, আইসিআইসিআই ব্যাংক এবং কোটাক ব্যাংকের একই অবস্থা দাঁড়ায়। অন্যদিকে, আলট্রাটেক সিমেন্ট, টেক মাহিন্দ্রা, সান ফার্মা, আইটিসি এবং এনটিপিসির বাণিজ্যিক লেনদেন ভালো হয়েছে।

শেয়ার বাজারের বিশ্লেষকরা বলছেন, করোনা ভাইরাসের প্রভাবে বিশ্বের সব শেয়ারবাজারেই এখন টালমাটাল অবস্থা। ভারতের শেয়ার বাজারও তাই এর ব্যতিক্রম নয়। শুধু করোনা ভাইরাস আতঙ্কে সরকারের পক্ষ থেকে নানা সুবিধা দেয়ার পরও শেয়ার বাজার ঘুরে দাঁড়াতে পারছে না।

ঋণে সুদের হার ১৫ বেসিস পয়েন্ট কমাল এসবিআই! সস্তা হবে গৃহঋণ

এদিকে দেশে করোনা সংক্রমণকেও বাগে আনা যাচ্ছে না। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের সাম্প্রতিক পরিসংখ্যান মতে, ভারতে মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত মোট আক্রান্ত ৭০,৭৫৬ জন। ওই মারণ ভাইরাস এদেশে প্রাণ কেড়েছে মোট ২,২৯৩ জন মানুষের। গত ২৪ ঘণ্টাতেই মারা গেছেন ৮৭ জন করোনা রোগী। পাশাপাশি নতুন করে ওই সংক্রামক রোগে আক্রান্ত হয়েছেন ৩,৬০৪ জন। এদিকে সরকারি সূত্র থেকে যা ইঙ্গিত মিলছে তাতে ১৭ মে তারিখের পরেও ফের একবার বাড়ানো হতে পারে লকডাউনের মেয়াদ। তবে এবার যদি লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানোও হয় তবে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ নয় এমন অঞ্চলে কিছু কিছু বিধিনিষেধ আরও লাঘব করা হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

গোটা বিশ্বেও হু-হু করে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। এখনও পর্যন্ত প্রায় ৪১.৭৭ লক্ষ মানুষ ওই মারণ রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। সারা পৃথিবীতে কোভিড- ১৯ রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ২.৮৬ লক্ষে।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)