আগামিকাল ব্যাঙ্ক ধর্মঘট, প্রভাব পড়তে পারে এই সব ব্যাঙ্কিং পরিষেবায়

অল ইন্ডিয়া ব্যাংক এমপ্লয়িজ অ্যাসোসিয়েশন (এআইবিইএ) এবং ব্যাংক এমপ্লয়িজ ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়া (বিএফআই) ২২ অক্টোবর সর্বভারতীয় Bank Strike ডেকেছে

আগামিকাল ব্যাঙ্ক ধর্মঘট, প্রভাব পড়তে পারে এই সব ব্যাঙ্কিং পরিষেবায়

Bank strike on October 22: ইউনিয়নগুলি জানিয়েছে যে ব্যাংক সংযুক্তিকরণের বিরোধিতা করার জন্যেই এই ব্যাংক ধর্মঘটের ডাক

আগামিকাল (মঙ্গলবার) ব্যাংক ধর্মঘট। ফের ভোগান্তির শিকার হতে পারেন ব্যাংকের অসংখ্য গ্রাহক।  অল ইন্ডিয়া ব্যাংক এমপ্লয়িজ অ্যাসোসিয়েশন (এআইবিইএ) এবং ব্যাংক এমপ্লয়িজ ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়া (বিএফআই) ২২ অক্টোবর সর্বভারতীয় স্তরে ব্যাংক ধর্মঘটের (Bank Strike) ডাক দিয়েছে। সরকারের সিদ্ধান্ত অনুসারে ১০টি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংককে সংযুক্তিকরণ করে ৪টি ব্যাংক করে দেওয়ার ঘোষণার বিরুদ্ধেই এই ধর্মঘটের আহ্বান তাঁদের।ইউনাইটেড ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া এবং ওরিয়েন্টাল ব্যাংক অফ কমার্সের সঙ্গে পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংকের (পিএনবি), কানাড়া ব্যাংকের সঙ্গে সিন্ডিকেট ব্যাংক; ইন্ডিয়ান ব্যাংকের সঙ্গে এলাহাবাদ ব্যাংক, কর্পোরেশন ব্যাংক এবং ইউনিয়ন ব্যাংক অফ ইন্ডিয়ার সঙ্গে অন্ধ্র ব্যাংকের সংযুক্তিকরণের প্রতিবাদে অল ইন্ডিয়া ব্যাংক এমপ্লয়িজ অ্যাসোসিয়েশন (এআইবিইএ) এবং ব্যাংক এমপ্লয়িজ ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়া (বেইফআই) ২২ অক্টোবর এই সর্বভারতীয় ধর্মঘটের (Bank strike on October 22) প্রস্তাব দিয়েছে। 

রাষ্ট্রায়ত্ত ১০ ব্যাঙ্কের সংযুক্তিকরণের ঘোষণা নির্মলা সীতারমনের

ওরিয়েন্টাল ব্যাংক অফ কমার্স, ব্যাংক অফ মহারাষ্ট্র, সিন্ডিকেট ব্যাংক এবং ব্যাংক অফ বরোদার মতো ব্যাংকগুলি আগেই গ্রাহকদের সতর্ক করেছে যে এই ধর্মঘটের ফলে তাদের স্বাভাবিক পরিষেবা প্রভাবিত হতে পারে।

দেশের বৃহত্তম ঋণদানকারী ব্যাংক, স্টেট ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া (এসবিআই) অবশ্য বলেছে যে এই ধর্মঘটের কারণে তাদের শাখাগুলিতে ন্যূনতম প্রভাব পড়বে কারণ তাঁদের বেশিরভাগ কর্মচারীই এই ইউনিয়নের অংশ নন।

"এআইবিইএ এবং বেইফআই তাদের দাবির সমর্থনে ২২ অক্টোবর সর্বভারতীয় ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে। এই ধর্মঘট বাস্তবায়িত হলে ব্যাংকের স্বাভাবিক কাজকর্ম ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে", এক বিবৃতি দেওয়া হয় ওরিয়েন্টাল ব্যাংক অফ কমার্সের পক্ষ থেকেও।

ব্যাঙ্ক সংযুক্তির ফলে কর্মসংস্থান হারাবে না, বললেন নির্মলা সীতারামন

এদিকে ব্যাংক অফ বরোদা বলেছে যে প্রস্তাবিত ধর্মঘটের কারণে তাদের শাখা / অফিসগুলির কাজকর্ম "প্রভাবিত / বন্ধও হতে পারে। ওই রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকটি অবশ্য আশ্বাস দিয়েছে যে তারা ধর্মঘটের দিন ব্যাংকটির স্বাভাবিক কাজকর্ম চালু রাখতে প্রয়োজনীয় সমস্ত পদক্ষেপ নিচ্ছে।

ইউনিয়নগুলি একটি যৌথ বিবৃতিতে বলেছে যে এই ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়েছে ব্যাংক সংযুক্তিকরণ এবং ব্যাংকিং সংস্কার এবং গ্রাহকদের জন্য উচ্চতর জরিমানা ও পরিষেবা চার্জের বিরোধিতা করা। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, অন্যান্য নানা দাবির মধ্যে ঋণ পুনরুদ্ধার, ঋণ খেলাপিদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া এবং চাকরির সুরক্ষার মতো দাবিও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

হাইলাইটস

  • কিছু ব্যাংক জানিয়েছে, ধর্মঘটের কারণে স্বাভাবিক পরিষেবা ব্যাহত হতে পারে
  • এসবিআই অবশ্য বলেছে এই ধর্মঘটে তাদের পরিষেবায় তেমন প্রভাব পড়বে না
  • অগাস্ট, সরকার রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলির সংযুক্তির পরিকল্পনা ঘোষণা করে
More News