সুপ্রিম কোর্টের রায়ে সেনাবাহিনীতে কী কী পরিবর্তন মহিলাদের

সেনাবাহিনীতে মহিলা আধিকারিকরা (Women Army Officers) কমান্ড পদের জন্য বিবেচিত হবেন বলে ঘোষণা করল সুপ্রিম কোর্ট (Supreme Court)। সোমবার ঐতিহাসিক রায়ে এমনটাই জানাল সুপ্রিম কোর্ট।

সুপ্রিম কোর্টের রায়ে সেনাবাহিনীতে কী কী পরিবর্তন মহিলাদের

শীর্ষ আদালতের বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড় ও বিচারপতি অজয় রাস্তোগির বেঞ্চ এই ঐতিহাসিক রায় দিল।

হাইলাইটস

  • সেনাবাহিনীতে কমান্ড পদের জন্য বিবেচিত হবেন মহিলারা
  • শীর্ষ আদালত সোমবার এই ঐতিহাসিক রায় দিল
  • বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড় ও বিচারপতি অজয় রাস্তোগির বেঞ্চ এই রায় দেয়
নয়াদিল্লি:

সেনাবাহিনীতে মহিলা আধিকারিকরা (Women Army Officers) কমান্ড পদের জন্য বিবেচিত হবেন বলে ঘোষণা করল সুপ্রিম কোর্ট (Supreme Court)। সোমবার ঐতিহাসিক রায়ে এমনটাই জানাল সুপ্রিম কোর্ট। সেনাবাহিনীর শর্ট সার্ভিস কমিশনে (এসএসসি) ১৪ বছর চাকরি করা মহিলাদের স্থায়ী কমিশনের বিকল্প দেওয়া হবে কিনা এই প্রসঙ্গেও সেনা আধিকারিকদের পক্ষে রায় দেয় শীর্ষ আদালত। এই প্রসঙ্গে সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে, এসএসসিতে ১৪ বছরের চাকরির সময়কালে সীমাবদ্ধ রাখা নয়, সকল মহিলা অফিসারকে স্থায়ী কমিশন দিতে হবে। শীর্ষ আদালতের বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড় ও বিচারপতি অজয় রাস্তোগির বেঞ্চ এই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে কেন্দ্রের দেওয়া ‘শারীরিক সীমাবদ্ধতা ও সামাজিক নিয়ম'-এর যুক্তিকে বৈষম্যমূলক ও বিরক্তিকর বলে উল্লেখ করে জানিয়েছে, এই যুক্তিতে মহিলা সেনা আধিকারিকদের কমান্ড পোস্টিং ও স্থায়ী কমিশন না দেওয়া হলে তা সাম্যের ধারণার বিরোধী হবে ও লিঙ্গ বৈষম্যের ধারণাকেই মান্যতা দেবে।

"চিরাচরিত ভাবনা" থেকে বেরিয়ে ভারতীয় সেনা বাহিনীতে মহিলাদের নেতৃত্বে সায় দিল সুপ্রিম কোর্ট

জেনে নিন শীর্ষ আদালত মহিলা সেনাদের সম্পর্কে কী নির্দেশ দিল।

মহিলারা এবার থেকে পূর্ণ সেনাপ্রধান ও অন্য উচ্চ পদে আসীন হতে পারবেন সেনা পরিষেবা দল, অধ্যাদেশ, বিচারক অ্যাডভোকেট জেনারেল, গোয়েন্দা, ইঞ্জিনিয়ার, সিগন্যাল, ইলেকট্রিক্যাল ও মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে।

তবে যুদ্ধের ক্ষেত্রে মহিলাদের অবস্থান বদল হচ্ছে না। সুতরাং পদাতিক ও সাঁজোয়া বাহিনীতে তাঁরা থাকতে পারবেন না।

এক জন মহিলা সেনাপ্রধান এবার থেকে ৮৫০ জন পুরুষ বাহিনীর প্রধান হতে পারবেন এবং তাঁর ক্ষমতা অনুযায়ী ব্রিগেডিয়ার, মেজর জেনারেল, লেফটেন্যান্ট জেনারেল এমনকী সেনাবাহিনীর প্রধানও হতে পারবেন। যদিও এটা কার্যকরী ভাবে অসম্ভব। কেননা এগুলির ক্ষেত্রে বিভিন্ন যুদ্ধক্ষেত্রের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে, যা এখনও মহিলা সেনা আধিকারিকদের দেওয়া হয় না।

এবার থেকে মহিলারা ভারতীয় সেনাবাহিনীর মুখ্য ইঞ্জিনিয়ার, গোয়েন্দাবাহিনীর প্রধান ইত্যাদি পদে আসীন হতে পারবেন।

নিঃসন্দেহে সুপ্রিম কোর্টের রায় ঐতিহাসিক রায়।

Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com