তথ্য রাখার জন্যে ভারতীয় দৃষ্টিভঙ্গী থেকে ফের ইতিহাস লেখা দরকার: অমিত শাহ

মহারাষ্ট্রের বিধানসভা নির্বাচন উপলক্ষে দলের ইস্তাহারে বলা হয় যে দেশের সর্বোচ্চ অসামরিক সম্মান বীর সাভারকরকে দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়েছে বিজেপি

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS
তথ্য রাখার জন্যে ভারতীয় দৃষ্টিভঙ্গী থেকে ফের ইতিহাস লেখা দরকার: অমিত শাহ

Indian History: অমিত শাহ বারাণসীতে 'গুপ্তবংশীয় বীর: স্কন্দগুপ্ত বিক্রমাদিত্য' শীর্ষক সেমিনারের উদ্বোধন করেন


বারাণসী: 

ভারতের দৃষ্টিকোণ থেকে নতুন করে ইতিহাস লেখার (Rewrite Indian History) প্রয়োজনীয়তার উপর জোর দিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ আজ (বৃহস্পতিবার) বলেন, ১৮৫৭ সালের প্রথম স্বাধীনতা যুদ্ধটি বীর সাভারকারের পক্ষে না হলে সেটিকে ব্রিটেনের দৃষ্টিকোণ থেকেই দেখা হত। এর আগে মহারাষ্ট্রের বিধানসভা নির্বাচন উপলক্ষে দলের ইস্তাহারে বলা হয় যে দেশের সর্বোচ্চ অসামরিক সম্মান বীর সাভারকরকে দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়েছে বিজেপি। এই ইস্তাহার  প্রকাশের দু'দিন পরে ফের বীর সাভারকরের নাম উল্লেখ করে ওই মন্তব্য করলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। বিনায়ক দামোদর সাভারকরই বীর সাভারকর নামে বহুল পরিচিত।

"অবসন্নতায় ভুগছে সরকার..": অর্থমন্ত্রীর মন্তব্যের পাল্টা জবাব মনমোহন সিংয়ের

"যদি বীর সাভারকর না থাকতেন তবে ১৮৫৭ সালের 'স্বাধীনতার যুদ্ধ' (বিপ্লব) আজ ইতিহাসে পরিণত হত না এবং আমরা এটিকে তখন ব্রিটিশ দৃষ্টিকোণ থেকেই দেখতাম", বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী । তিনি আরও বলেন যে, "১৮৫৭ সালের 'গণ জাগরণ' (বিপ্লব)-কে 'স্বাধীনতার প্রথম যুদ্ধ' বানিয়েছিলেন সাভারকরই, না হলে আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম এটিকে কেবল বিদ্রোহ হিসাবেই জানত"।

অমিত শাহ বারাণসীতে 'গুপ্তবংশীয় বীর: স্কন্দগুপ্ত বিক্রমাদিত্য' শীর্ষক দুই দিনের সেমিনারের উদ্বোধন করেন।

শ্রোতাদের এবং মঞ্চে বিশিষ্ট ঐতিহাসিকদের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, "সকলের কাছে আমার অনুরোধ, কাউকে দোষ না দিয়ে ভারতীয় দৃষ্টিভঙ্গি থেকে কিন্তু দেশের ইতিহাস পুনরায় লেখার কথা ভাবুন কেননা এর সত্যিই দরকার আছে।"

 "আমাদের ইতিহাস লেখার দায়িত্ব আমাদেরই। আমরা আর কতকাল ব্রিটিশদের দোষারোপ করব? আমাদের ওই বিষয়গুলির বিরোধ করতে হবে না, কেবল আসল সত্যটি তুলে ধরতে হবে ... আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি কী, এবং এটি সময়ের পরীক্ষাতেই প্রমাণ হবে", বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

পাশাপাশি অমিত শাহ আফশোস করেন যে যথেষ্ট প্রমাণের অভাবের কারণে আজকের প্রজন্ম স্কন্দগুপ্ত, বিক্রমাদিত্য এবং অন্যান্য অনেক মহান ভারতীয়দের অবদান এবং বীরত্ব সম্পর্কে খবর রাখে না।

দায়িত্ব ছাড়বেন অমিত শাহ, ডিসেম্বরে বিজেপির নয়া সভাপতির পদে কে? বাড়ছে জল্পনা!

গুপ্ত রাজবংশের শাসক, স্কন্দগুপ্ত বিক্রমাদিত্যের ভূমিকা ও প্রাসঙ্গিকতার বিষয়ে আলোচনা করার সময়, তিনি জাতির রাজনৈতিক ভবিষ্যতের বিষয়েও বক্তব্য রাখেন এবং এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির প্রশংসা করার সুযোগও হাতছাড়া করেননি তিনি। বিশ্বের দরবারে ফের দেশের সম্মান প্রতিষ্ঠিত করতে পারেন নরেন্দ্র মোদিই, একথাও বলতে শোনা যায় অমিত শাহকে।

"তার আমলে আমাদের দেশের প্রতি সামগ্রিক শ্রদ্ধা বেড়েছে। বিশ্ব আমাদের দৃষ্টিভঙ্গির প্রতি মনোযোগ দেয়। প্রধানমন্ত্রী যখন কোনও আন্তর্জাতিক উন্নয়নের বিষয়ে কথা বলেন, তখন গোটা বিশ্ব শোনে", বলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

দেখুন ১৬.১০.২০১৯-এর সেরা খবর:



পশ্চিমবঙ্গের খবর, কলকাতার খবর , আর রাজনীতি, ব্যবসা, প্রযুক্তি, বলিউড আর ক্রিকেটের সকল বাংলা শিরোনাম পড়তে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................