কবে শেষ হবে করোনা সংক্রমণের আতঙ্ক? কী বললো WHO?

World Health Organization: ২ বছরেরও কম সময়ের মধ্যে পৃথিবী থেকে করোনা ভাইরাস পুরোপুরি নির্মূল হয়ে যাবে বলে আশা করছেন হু-এর প্রধান

কবে শেষ হবে করোনা সংক্রমণের আতঙ্ক? কী বললো WHO?

WHO: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান টেড্রোস আধানম ঘেব্রেয়েসাস (ফাইল চিত্র)

হাইলাইটস

  • ২.২৬ কোটিরও বেশি মানুষ সারা বিশ্বে করোনা সংক্রমিত হয়েছেন
  • ৭.৯৩ লক্ষ মানুষের মৃত্যু হয়েছে এই ভয়ঙ্কর রোগের কারণে
  • ভারতে ২৯ লক্ষেরও বেশি মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে
জেনেভা:

২ বছরও লাগবে না, পৃথিবী থেকে উধাও হয়ে যাবে করোনা ভাইরাস (Coronavirus), এমনই আশার কথা শোনালেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (World Health Organization) প্রধান টেড্রোস আধানম ঘেব্রেয়েসাস। এমনকী স্প্যানিশ ফ্লু (Spanish flu) যতদিন ধরে দাপট দেখিয়েছিলো এটি তার চেয়ে অনেক কম সময়ে নির্মূল হয়ে যাবে। শুক্রবার জেনেভায় হু-এর সদর দফতরে সাংবাদিকদের সামনে উপস্থিত হয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান (Tedros Adhanom Ghebreyesus) বলেন, "আমরা আশা করছি করোনা মহামারীর দাপট আগামী ২ বছরেরও কম সময়ের মধ্যে খতম হয়ে যাবে।" তিনি (WHO Chief) আরও জোর দিয়ে বলেন যে, ১৯১৮ সালে বিশ্ব যে ভয়ঙ্কর মহামারীর দাপট দেখেছিলো তার থেকে অন্তত কম শক্তিশালী করোনা, তাই ধীরে ধীরে এটি হারিয়ে যাবে। 

হু-এর প্রধান আরও বলেন, "বর্তমানে সমস্ত দেশ সময়ের চেয়ে আগে যাওয়ার দৌড়ে সামিল এবং সেই কারণেই করোনা এভাবে দ্রুত মহামারীর আকার নিয়েছে। তবে একথাও বলা দরকার যে আমরা যেভাবে সময়ের তুলনায় বিজ্ঞানের উন্নতি করেছি তাকে কাজে লাগিয়ে যদি আমরা একটি ঠিকঠাক ভ্যাকসিন আনতে পারি তাহলে সহজেই বশে আনা যাবে করোনা ভাইরাসকে।" 

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা মনে করিয়ে দিয়েছে যে এর আগে আরও মারাত্মক একটি রোগ এসেছিলো যার নাম স্প্যানিশ ফ্লু। ১৯১৮ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে ২০২০ সালের এপ্রিল পর্যন্ত এই রোগটির কারণে সারা বিশ্বে প্রায় ৫০ মিলিয়ন মানুষ মারা গেছিলো এবং প্রায় ৫০০ মিলিয়ন মানুষ সংক্রমিত হয়ে ছিলো। প্রথম বিশ্বযুদ্ধে যত মানুষের মৃত্যু হয়েছিলো তার তুলনায় পাঁচগুণ বেশি মানুষ মারা গিয়েছিলেন স্প্যানিশ ফ্লুতে। এটির প্রথম শিকার হন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মানুষরা। তারপর ধীরে ধীরে এটি গোটা ইউরোপ এবং বিশ্বের অন্যান্য দেশে ছড়িয়ে পড়ে।অন্তত স্প্যানিশ ফ্লুয়ের থেকে কম মারাত্মক করোনা, এমনটাই মনে করছে হু।

তবে এই মুহূর্তে দাঁড়িয়ে করোনা সংক্রমণ কমার যেন কোনও লক্ষণই দেখা যাচ্ছে না, বরং প্রতিদিনই তা বেড়ে চলেছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক শুক্রবার সকালে যে পরিসংখ্যান তুলে ধরেছে তাতে দেখা যাচ্ছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে ওই রোগের দ্বারা সংক্রমিত হয়েছে ৬৮,৮৯৮ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৯৮৩ জনের। এখনও পর্যন্ত ভারতে ২৯,০৫,৮২৩ জন মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। সব মিলিয়ে মৃত্যু হয়েছে ৫৪,৮৪৯ জনের। তবে বর্তমানে চিকিৎসা সহায়তায় সুস্থও হয়ে উঠছেন বহু মানুষ। ৭৪% এরও বেশি মানুষ এই রোগ (Covid-19) থেকে সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে গেছেন। ভারতে এই সুস্থতার সংখ্যা হলো ২১,৫৮,৯৪৬ জন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুসারে, করোনা মহামারীর কারণে বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম ক্ষতিগ্রস্ত দেশ ভারত। তবে গত ১৭ দিন ধরে দৈনিক কোভিড সংক্রমণের বিচারে বিশ্বের মধ্যে শীর্ষে চলে গেছে এদেশ।

Newsbeep

এদেশে এখন ৬,৯২,০২৮ জন সক্রিয় করোনা রোগী রয়েছে। ২০ অগাস্ট দেশে ৮,০৫,৯৮৫ জনের করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে। বর্তমানে দেশে করোনা পজিটিভিটির হার ৮.৫৪ শতাংশ।

করোনা ভাইরাস মহামারী রূপে ছড়ায় চিনের উহান থেকে, ভারত সহ বিশ্বের ১৮০ টিরও বেশি দেশে এই মারণ ভাইরাস আতঙ্কের সৃষ্টি করেছে। দুনিয়া জুড়ে এখনও পর্যন্ত ২.২৬ কোটিরও বেশি মানুষ এই রোগে আক্রান্ত হয়েছে। এই ভাইরাসটি ৭.৯৩ লক্ষ মানুষের প্রাণ নিয়েছে।