‘কী ধরনের আবেদন এটা?’, ৩৭০ রদ সংক্রান্ত শুনানিতে প্রশ্ন প্রধান বিচারপতির

ধারা ৩৭০: প্রধান বিচারপতি জানান, কেন্দ্রের ৩৭০ ধারা রদ সংক্রান্ত বিষয়ে সাতটি আবেদন রয়েছে।

‘কী ধরনের আবেদন এটা?’, ৩৭০ রদ সংক্রান্ত শুনানিতে প্রশ্ন প্রধান বিচারপতির

জম্মু কাশ্মীরের সংবিধান প্রদত্ত বিশেষ অধিকার ৩৭০ ধারা রদ করেছে কেন্দ্র

হাইলাইটস

  • সুপ্রিম কোর্ট কেন্দ্রের ৩৭০ ধারা রদের বিরুদ্ধে আবেদনের শুনানি মুলতবি করে
  • আবেদনকারী শর্মা বলেন, তিনি সংশোধীত আবেদন জমা করবেন
  • আবেদনটি আধ ঘন্টা পড়েও কিছু উদ্ধার করতে পারিনি: প্রধান বিচারপতি
নয়াদিল্লি:

জম্মু-কাশ্মীর (Jammu and Kashmir)  থেকে রদ হয়েছে ৩৭০ ধারা (Article 370)। কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে (Supreme Court) চ্যালেঞ্জ জানিয়ে আবেদন করেন এমএল শর্মা। কিন্তু সেই আবেদনের কোনও মানে নেই। পরিষ্কার জানিয়ে দিলেন দেশের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ (Chief Justice Ranjan Gogoi)। তাতে অবশ্য হতাশ হননি আবেদনকারী। জানিয়েছেন, সংশোধিত আবেদন আদালতে জমা দেবেন তিনি। শুক্রবার, কেন্দ্রে বিরুদ্ধে ৩৭০ রদ মামলার শুনানি ছিল। সেখানেই সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি গগৈ (Chief Justice Ranjan Gogoi) আবেদনকারীর উদ্দেশ্যে বলেন, ‘এটা কি ধরণের আবেদন? কেন আপনি চ্যালেঞ্জ করছেন? আপনার আর্জি কি?' আবেদন পড়েও তা উদ্ধার করতে পারেননি বলে জানান বিচারপতি গগৈ। তাঁর কথায়, ‘আধ ঘন্টা ধরে ওই আবেদন পড়ছি। কিন্তু, কিছুই বোধগম্য হয়নি।'

এদিন বিচারপতি এসএ বোবদে ও এসএ নজিরের (SA Bobde and SA Nazeer) সঙ্গে প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ, উপত্যকায় মোদি সরকারের ৩৭০ ধারা রদের বিরুদ্ধে আবেদনের শুনানি করছিলেন। একই সঙ্গে এদিন কাশ্মীর টাইমসের (Kashmir Times) সম্পাদকের করা মামলাটিরও শুনানি হয়। সংবাদ মাধ্যমের উপর নিয়ন্ত্রণ প্রত্যাহারের দাবিতে মামলাটি করা হয়।

৩৭০ ধারা রদ সংক্রান্ত সাতটি আবেদন সুপ্রিম কোর্টের (Supreme Court) কাছে রয়েছে বলে জানান প্রধান বিচারপতি। কিন্তু, তার বেশ কয়েকটি ত্রুটিপূর্ণ। ফলে অসন্তোষ প্রকাশ করতে দেখা যায় বিচারপতি গগৈকে  (Ranjan Gogoi)। শাকিল সাবির নামের এক আবেদনকারী বলেন, ‘কোর্টে তার আবেদনটির ভেরিফাই করা বাকি রযেছে।' প্রত্যুত্তরে প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘এই ধরণের ত্রটিপূর্ণ আবেদন করেছেন কেন?  রেজিস্ট্রার বলছে ছয়টি আবেদন রয়েছে। এতে বিভ্রান্তি বাড়ছে।'

এরপরই এদিনের মতো শুনানি মুলতবি (Adjourning the hearing)  করে দেন প্রধান বিচারপতি। জানান, সংবাদ মাধ্যমের উপর নিয়ন্ত্রণ শিথিলের আবেদনটির ক্ষেত্রে আরও সময় দিতে চান তিনি।

শুক্রবার সুপ্রিম কোর্টে অ্যাটর্নি জেনারেল কেকে বেণুগোপাল (Attorney General KK Venugopal)  বলেন, ‘শ্রীনগর থেকে নয়, কাশ্মীর টাইমস প্রকাশিত হয় জম্মু থেকে। প্রায় প্রত্যেকদিনই জম্মু-কাশ্মীরের পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে। নিয়ন্ত্রণও পর্যায়ক্রমে শিথিল করা হচ্ছে।'

এই সংক্রান্ত শুনানিতে আইনজীবী বৃন্দা গোভার (Vrinda Grover)  আদালতে বলেন, ‘সংবাদ মাধ্যমের কাজ কোথায় কি ঘটছে তা মানুষকে সব জানানো। যদি ল্যান্ড লাইনগুলিও খোলা থাকতো।' জবাবে, প্রধান বিচারপতি জানিয়ে দেন, ‘সংবাদ মাধ্যমই বলছে এদিন সন্ধ্যা থেকে ফোন লাইন সচল হবে। তাই অপেক্ষা করতেই হবে।'

More News