অমানবিক! সম্পত্তির বিবাদে ইলেকট্রিক শক দিয়ে মারা হল প্রতিবেশীর ৬টি পোষা কুকুরকে!

Electrocuted To Death: পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, ওই বিবাদের কারণেই প্রতিবেশীকে শিক্ষা দিতে তাঁর আদরের ৬টি কুকুরকে অমানবিকভাবে হত্যা করা হয়েছে

অমানবিক! সম্পত্তির বিবাদে ইলেকট্রিক শক দিয়ে মারা হল প্রতিবেশীর ৬টি পোষা কুকুরকে!

Kolkata: ফের অমানবিক ভাবে মেরে ফেলা হল ৬টি কুকুরকে (প্রতীকী ছবি)

কলকাতা:

সম্পত্তি নিয়ে বিবাদ, আর সেই রাগ গিয়ে পড়ল বেচারা চারপেয়েদের উপর। দক্ষিণ কলকাতার (Kolkata) নেতাজি নগর এলাকায় একসঙ্গে ৬টি পোষা কুকুরকে (Dog) ইলেকট্রিক শক দিয়ে হত্যা করার অভিযোগ উঠল ওই কুকুরগুলির মালিকের এক প্রতিবেশীর বিরুদ্ধে। জানা গেছে, বেশ কিছুদিন ধরেই ওই কুকুরগুলির মালিকের সঙ্গে তাঁর প্রতিবেশীর একটি সম্পত্তি নিয়ে ঝামেলা চলছিল। পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, ওই বিবাদের কারণেই প্রতিবেশীকে শিক্ষা দিতে তাঁর আদরের ৬টি কুকুরকে অমানবিকভাবে হত্যা করা হয়েছে। বুধবার রাতে ওই ঘটনাটি ঘটে এবং তারপর নেতাজি নগর থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয় বলে জানিয়েছেন একজন পুলিশ আধিকারিক। এক ব্যক্তি থানায় এসে অভিযোগ জানান যে, তাঁর ৬টি পোষা কুকুরকে বৈদ্যুতিক শক (Electrocuted To Death) দিয়ে হত্যা করা হয়েছে, এবং তাঁর সন্দেহ যে ওই কাজ করেছেন তাঁরই প্রতিবেশীরা। তিনি এও জানান যে সম্পত্তির বিবাদের কারণেই ওই অমানবিক কাজ করেছেন তাঁরা।

১৬টি কুকুর ছানার দেহ উদ্ধারের ঘটনায় প্রকাশ্যে এলো চাঞ্চল্যকর ভিডিয়ো

এই ঘটনাটি মনে করিয়ে দিয়েছে গত বছর কলকাতার সরকারি হাসপাতাল এনআরএসে একসঙ্গে ১৬ টি কুকুর ছানাকে মেরে ফেলার ঘটনা। সেই সময় কুকুরছানাগুলিকে মেরে ফেলে হাসপাতালের পার্কিং চত্বরে প্লাস্টিকের ব্যাগে মুড়ে ফেলে রাখা হয়েছিল। এই ঘটনায় সেই সময় ব্যাপক শোরগোল পড়েছিল। মধ্যযুগীয় বর্বরতার সাক্ষী হয়েছিল শহর কলকাতা। হাসপাতালের মধ্যেই পড়েছিল প্যাকেট গুলি। সোশ্যাল মিডিয়াতেও গোটা ঘটনার প্রতিবাদ চলতে থাকে। ভাইরাল হয়ে কুকুরগুলিকে মেরে ফেলার ভিডিও। 

সল্টলেকে পশুপ্রেমীদের বিক্ষোভে গভীর রাতে লাঠি চালানোর অভিযোগ উঠল পুলিশের বিরুদ্ধে

যদিও কলকাতার নেতাজি নগরে ইলেকট্রিক শক দিয়ে কুকুরগুলিকে মেরে ফেলার ঘটনায় এমন কোনও ভিডিও ফুটেজ এখনও পর্যন্ত পাওয়া যায়নি। তবে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। কিন্তু আবারও যেভাবে ৬টি অসহায় প্রাণীকে নৃশংসভাবে মেরে ফেলা হল তাতে তিলোত্তমা কলকাতার মানবিক মুখ নিয়েও প্রশ্ন উঠছে।

More News