কথা রেখে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির পুজোয় সস্ত্রীক রাজ্যপাল

পূর্ব নির্ধারিত সেই কথা রেখে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে পা রাখলেন সস্ত্রীক রাজ্যপাল জগদীপ ধনকার। ধর্মে যে রাজনীতির জায়গা নেই সেই কথাই যেন আরও একবার স্মরণ করালেন তিনি।

কথা রেখে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির পুজোয় সস্ত্রীক রাজ্যপাল

মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির দেবী কালীকা

কলকাতা:

দীপাবলির আগেই জানিয়েছিলেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) বাড়ির কালীপুজোয় উপস্থিত থাকবেন তিনি। পূর্ব নির্ধারিত সেই কথা রেখে মমতার বাড়িতে পা রাখলেন সস্ত্রীক রাজ্যপাল জগদীপ ধনকার (West Bengal governor)। শাসকদলের সঙ্গে রাজভবনের যতই মানসিক দূরত্ব থাক, ধর্মে যে রাজনীতির জায়গা নেই সেই কথাই যেন আরও একবার স্মরণ করালেন তিনি। প্রসঙ্গত, এর আগে রেড রোড দুর্গাপূজা কার্নিভালে উপস্থিত থাকার পর রাজ্যপালের অনুযোগ ছিল, যথাযোগ্য মর্যাদা পাননি তিনি। ধনকারের এই কথায় স্বাভাবিক ভাবেই ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন শাসকদলের নেতা-মন্ত্রীরা। বিতর্ক শুরু হয়েছিল রাজ্য রাজনীতিতেও। সেই সবই আজ ম্লান মমতার বাড়িতে ধনকারের উপস্থিতিতে।

কেন মাত্র ৩৬-এই আত্মহত্যা করেছিলেন 'ঘোরতর সংসারী',পান্নালাল ভট্টাচার্য?

রাজনৈতিক বিভেদ ভুলেছেন মুখ্যমন্ত্রীও। সস্ত্রীক রাজ্যপাল তাঁর বাড়িতে আসতেই তিনি নিজে হাসিমুখে আপ্যায়ন করেন তাঁদের। বেশ কিছুক্ষণ কথাও হয় উভয়ের মধ্যে। দেখুন সেই ভিডিও:

খবর, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্বয়ং তাঁর বাড়ির ৪০ বছরের পুরনো কালীপুজোয় আমন্ত্রণ জানান ফার্স্ট লেডি সুদেশ ধনকারকে। এরপরেই তাঁর বাড়িতে যাওয়ার ইচ্ছাপ্রকাশ করেন রাজ্যপাল। মমতাকে বোনের সম্মান দিয়ে তাঁর হাত থেকে ভাইফোঁটা নেবেন বলেও জানান। এরপরেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আমন্ত্রণলিপি পাঠান তাঁকে।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ির কালীপুজোয় যোগ দিচ্ছেন রাজ্যপাল

প্রসঙ্গত, ৩০ জুলাই পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল হিসেবে শপথ নেন জগদীপ ধনকার। গত সেপ্টেম্বরে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় হেনস্থা হলে তখনও শাসক ও বিরোধী দলের মধ্যে মধ্যস্থতাকারী হিসেবে দেখা যায় তাঁকে।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)
More News