হিন্দু ধর্ম কারও মুখের উপর দরজা বন্ধ করতে শেখায় না: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

"ধর্ম সংস্কৃতি, ধর্ম ঐক্য, ধর্ম প্রেম, ধর্মই গরিবদের শক্তিশালী করে তোলে, হিন্দু ধর্ম কারও ক্ষেত্রে দরজা বন্ধ করে দেয় না", বলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী

হিন্দু ধর্ম কারও মুখের উপর দরজা বন্ধ করতে শেখায় না: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

Hinduism: হিন্দুত্ববাদ একতার কথা বলে, বিভেদের কথা নয়, বললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

হাইলাইটস

  • হিন্দু ধর্মের উদারতার কথা তুলে ধরলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
  • "হিন্দু ধর্ম কারও মুখের উপর দরজা বন্ধ করে দেয় না", বলেন তিনি
  • মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, "আমরা ঐক্যবদ্ধ ভাবে ভারতকে দেখতেই ভালোবাসি"
কলকাতা:

হিন্দু ধর্ম (Hinduism) কখনও কারও মুখের উপর দরজা বন্ধ করতে শেখায় না, বরং একাত্মতায় বিশ্বাস করে হিন্দুধর্ম, এমনটাই বললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। "ধর্ম সংস্কৃতি, ধর্ম ঐক্য, ধর্ম প্রেম, ধর্মই গরিবদের শক্তিশালী করে তোলে, হিন্দু ধর্ম কারও ক্ষেত্রে দরজা বন্ধ করে দেয় না", ভারত সেবাশ্রম আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে গিয়ে একথাই বললেন তিনি (Mamata Banerjee)। বৃহস্পতিবার নেতাজি ইনডোর স্টেডিয়ামে আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, "ধর্ম যার যার, উৎসব সবার"। ভারত সেবাশ্রম সংঘের প্রতিষ্ঠাতা যুগাচার্য স্বামী প্রণবানন্দজী মহারাজের ১২৫তম শুভ আবির্ভাব তিথি উপলক্ষে আয়োজিত ওই ধর্মীয় অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী ধর্মের ভেদাভেদের ওপর উঠে মানবতার জয়গান গাওয়ার বার্তা দেন। তৃণমূল (TMC) নেত্রী বলেন বলেন, 'হিন্দু ধর্মে সকলের জন্যই দরজা খোলা। সেখানে কারোর জন্যই দরজা বন্ধ করে দেওয়া হয় না। স্বামীজী বলেছেন, একতাই শক্তি। আমরা ঐক্যবদ্ধ ভাবে ভারতকে দেখতেই বেশি ভালোবাসি"।

এনআরসি-সিএএ নথি জোগাড়ে ব্যবহার করা হচ্ছে ব্যাঙ্ক, পোস্ট অফিস: মুখ্যমন্ত্রী

এর আগে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়েও বারবার প্রতিবাদ করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যেভাবে ধর্মের ভিত্তিতে ভারতীয় নাগরিকত্ব দেওয়ার কথা বলা হয়েছে ওই আইনে তা নিয়েও সরব হতে দেখা যায় তাঁকে। কোনওভাবেই পশ্চিমবঙ্গে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন লাগু করা যাবে না বলেও হুঙ্কার ছাড়েন তিনি। এ রাজ্যে এনআরসিও করা হবে না বলেও সরব হন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ইতিমধ্যেই এ রাজ্যে এনপিআরের কাজ বন্ধ করে দেওয়ার নির্দেশও দিয়েছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। 

১৯৪৭ সালেই মুসলিমদের পাকিস্তানে পাঠানো উচিত ছিল, বললেন গিরিরাজ সিং

ওই অনুষ্ঠান মঞ্চ থেকে ঘুরিয়ে  কেন্দ্রের মোদি সরকারকেও তীব্র আক্রমণ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 

বৃহস্পতিবারই রাজ্যের বরাদ্দ অর্থ না পাওয়ার অভিযোগ করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে একটি চিঠি লেখেন তিনি।কেন্দ্রীয় তহবিল হ্রাস করার বিষয়টি নিয়েই প্রধানমন্ত্রীকে লেখেন তিনি।

"আমি আমাদের রাজ্যে যেভাবে ক্রমশই কেন্দ্রীয় তহবিলের পরিমাণ কমছে তা নিয়েই লিখছি এবং কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে আমাদের টাকা পেতে যথেষ্ট দেরি হচ্ছে। এই অহেতুক দেরি হওয়ার কারণে অত্যন্ত উদ্বিগ্ন আমি। তাই এই বিষয়টি নিয়ে আপনাকে লিখছি", চিঠিতে লেখেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রী আরও জানান, কেন্দ্রের থেকে জানুয়ারি পর্যন্ত ৫০,০০০ কোটি টাকা বকেয়া রাজ্যের। এই অস্বাভাবিক পরিস্থিতি রাজ্যের উন্নয়নের বাধার কারণ হয়ে উঠছে বলেও জানান তিনি।

Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com