দিল্লি হিংসা 'নরক' যন্ত্রণা! কবিতার মধ্যে দিয়ে বেদনা প্রকাশ মুখ্যমন্ত্রীর

এমন ভাষাতেই কবিতা লিখে দিল্লি হিংসায় নিজের বেদনা প্রকাশ করলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 

দিল্লি হিংসা 'নরক' যন্ত্রণা! কবিতার মধ্যে দিয়ে বেদনা প্রকাশ মুখ্যমন্ত্রীর

কবিতা লিখে দিল্লি হিংসায় নিজের বেদনা প্রকাশ করলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

হাইলাইটস

  • দিল্লি হিংসা নিয়ে কবিতা লিখলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
  • 'নরক' নাম দিয়ে সেই কবিতা লিখেছেন তিনি
  • পূর্বাঞ্চলীয় কনক্লেভে যোগ দিতে ভুবনেশ্বর গিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী
কলকাতা:

কোথায় আছি? কোথায় চলেছি? স্বর্গ পেরিয়ে নরকে! চলে গেল কত কত প্রাণ, ফিরবে না আর কোনওদিন। এমন ভাষাতেই কবিতা লিখে দিল্লি হিংসায় নিজের বেদনা প্রকাশ করলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। এর আগেও একাধিক সামাজিক ও রাজনৈতিক ইস্যুতে সরব হয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর কলম। দিল্লি হিংসার প্রেক্ষিতেও তার অন্যথা হল না। 'নরক' নামে বাংলায় লেখা এই কবিতা (Bengali Poem) নিজের ফেসবুকে পোস্ট করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বাংলার পাশাপাশি হিন্দি ও ইংলিশে অনুবাদ করা হয়েছে সেই সংকলন। ফেসবুকে পোস্ট (Facebook Post) করার পরেই প্রায় ২ হাজার লাইক ও ৫০০-র বেশি শেয়ার হয়েছে সেই কবিতা।পক্ষে ও বিপক্ষে পড়েছে একাধিক মন্তব্য।

সূত্রের খবর, জাতীয় প্রেক্ষাপটে বার্তা দিতেই বাংলার সঙ্গে বাকি দুটো ভাষায় 'নরক' অনুবাদ করা হয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের ডাকে পূর্বাঞ্চলীয় কনক্লেভে যোগ দিতে ভুবনেশ্বর উড়ে গিয়েছেন তিনি। মঙ্গলবার কলকাতা ছাড়েন মুখ্যমন্ত্রী। তার আগে বিমানবন্দরে উপস্থিত সাংবাদিকদের দিল্লির ঘটনায় নিজের উদ্বেগের কথা প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী। 

তিনি বলেছিলেন,  দিল্লিতে কী পরিস্থিতি সত্যি জানি না। তবে খুব উদ্বেগে আছি। অবিলম্বে হিংসা-দীর্ণ এলাকায় শান্তি ফেরতে তৎপর হোক প্রশাসন। এমন দাবি করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। বুধবারের বৈঠকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর কাছে সেই প্রসঙ্গ উত্থাপন করেন কিনা মুখ্যমন্ত্রী, তা নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে। 

"দিল্লি হিংসার দায় নিয়ে পদত্যাগ করুন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী," বুধবার দাবি করলেন সনিয়া গান্ধি

এদিকে, দিল্লি হিংসার ঘটনায় মৃত বেড়ে ২১। আহত প্রায় ১৫০ জন। দফায় দফায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বৈঠক করছেন দিল্লি পুলিশ ও স্বরাষ্ট্র মন্তরকের আধিকারিকরা।  দিল্লিতে সংঘর্ষ পরপর চারদিন অব্যাহত, এই পরিস্থিতিতে দেশের রাজধানীর পরিস্থিতি নিয়ে কড়া বার্তা দিল হাইকোর্ট, পরিস্থিতি শান্ত করার জন্য রাজ্য ও কেন্দ্রীয় সরকারকে একসঙ্গে কাজ করার বার্তা দিয়ে হাইকোর্টের বিচারপতি এস মুরলিধর বললেন, দেশে আগে যেমনটা হয়েছিল, সেই ভাবে আর একটা ১৯৮৪ হিংসার ঘটনা হতে দেওয়া যাবে না। বিজেপি নেতা কপিল মিশ্রের ভিডিও দেখে হাইকোর্ট, তারপরেই এই মন্তব্য করে, এর আগেও একাধিকবার উস্কানিমূলক মন্তব্য  করার অভিযোগ উঠেছে কপিল মিশ্রের বিরুদ্ধে, রবিবার বিকেলে মৌজপুরে বিতর্কিত মন্তব্য করেন তিনি।   

Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com