নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে রাজ্যে জনসচেতনতা প্রচার করবে বিজেপি

Citizenship Amendment Bill: এনআরসি এবং নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে আতঙ্কে ভুগছেন বাংলার মানুষ, তাঁরই প্রতিফলনে ভোটবাক্সে সমর্থন কমেছে গেরুয়া দলের

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে রাজ্যে জনসচেতনতা প্রচার করবে বিজেপি

West Bengal: নাগরিকত্ব (সংশোধনী) বিলের লক্ষ্য হল হিন্দু, খ্রিস্টান, শিখ, জৈন, বৌদ্ধ ও পার্সী এই ৬টি সম্প্রদায়কে ভারতীয় নাগরিকত্ব প্রদান করা

কলকাতা:

সদ্য শেষ হওয়া উপনির্বাচনের ফলাফল হতাশ করেছে রাজ্য বিজেপি তথা কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকেও। অনেকেই বলছেন কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন বিজেপি প্রস্তাবিত এনআরসি (NRC) এবং নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল  (Citizenship Amendment Bill)  নিয়ে আতঙ্কে ভুগছেন বাংলার মানুষ। তাঁরই প্রতিফলন মিলেছে উপনির্বাচনের ভোটবাক্সে, সমর্থন কমেছে গেরুয়া দলের। এই ব্যাখ্যাকে বোধহয় খুব একটা উড়িয়ে দিতে পারছে না ভারতীয় জনতা পার্টি। তাই উপনির্বাচনের ফলাফল থেকে ঘুরে দাঁড়াতে চাইছে তাঁরা। রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব তাই গেরুয়া দলের (BJP) নেতাদের রাজ্যের (West Bengal) প্রতিটি মানুষের ঘরে ঘরে গিয়ে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে জনসচেতনা গড়ে তোলার নির্দেশ দিল। কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা এই খসড়া আইনে সম্মতি দেওয়ার ফলে এবার লোকসভা এবং তারপরে রাজ্যসভায় উপস্থাপন করা হবে এই বিলটি।এই বিষয়ে তাই রাজ্যের সাধারণ মানুষকে বোঝাতে তৎপর হচ্ছে বিজেপি।

বুধবারই রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব একটি জরুরি বৈঠক করে যাতে সব কটি জেলার বিজেপি সভাপতি এবং শীর্ষ নেতারা উপস্থিত ছিলেন। বিজেপির জাতীয় সাধারণ সম্পাদক তথা পশ্চিমবঙ্গের পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীয়, প্রবীণ নেতা শিব প্রকাশ ওই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। সিএবি বা নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে আলোচনা করার পাশাপাশি দলের অন্যান্য সাংগঠনিক দিকগুলি নিয়েও আলোচনা হয়েছে বৈঠকে এবং আগামী বছরের পুর নির্বাচনকে লক্ষ্য রেখে বিজেপি নেতাদের কোমর বেঁধে নামারও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বৈঠকে। নেতাদের বলা হয়েছিল পরের বছরের নাগরিক নির্বাচনের আগে ল্যাকুনি ঠিক করতে।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় অনুমোদন পেল নাগরিকত্ব (সংশোধনী) বিল

"বিলটি উপস্থাপন ও সংসদে পাস হওয়ার পরে এ মাস থেকেই আমাদের রাজ্যের মানুষের ঘরে ঘরে গিয়ে এই বিষয়ে জনসচেতনতা প্রচার চালিয়ে যেতে বলা হয়েছে। আমাদের বলা হয়েছে এলাকার প্রতিটি পরিবার এবং ব্লকের সঙ্গে যোগাযোগ করতে এবং মানুষকে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে বুঝিয়ে বলতে। জনগণের কাছে পৌঁছানোর জন্য বিভিন্ন পথসভারও আয়োজন করব", বলেন বিজেপির এক প্রবীণ নেতা। পাশাপাশি দলের কর্মীদেরও এই বিল নিয়ে আরও ভালো করে জানাতে ও বোঝাতে কর্মশালার আয়োজন করা হবে বলে জানিয়েছেন গেরুয়া দলের অন্য একজন প্রবীণ নেতা । যদিও বরাবরই এ রাজ্যে এনআরসি এবং নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরোধিতা করেছে ক্ষমতাসীন তৃণমূল কংগ্রেস।

ভারত একটি “হিন্দু রাষ্ট্র” নাগরিকত্ব বিল নিয়ে বললেন বিজেপি সাংসদ

গত লোকসভা নির্বাচনে এ রাজ্য থেকে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের পর সদ্যসমাপ্ত করিমপুর, কালিয়াগঞ্জ ও খড়গপুর সদর বিধানসভা আসনের উপনির্বাচনের ফলাফলে বড়সড় ধাক্কা খায় বিজেপি। "উপ-নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে সমীক্ষা করার পরে আমরা দেখতে পেয়েছি যে আমাদের দলের কর্মীরাই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে ঠিকভাবে জানতেন না, ফলে এই বিষয়ে মানুষের কাছে অভয় বার্তা ছড়িয়ে দিতে ব্যর্থ হয়েছেন তাঁরা", বলেন বিজেপির এক প্রবীণ নেতা।

নাগরিকত্ব (সংশোধনী) বিলের লক্ষ্য হল হিন্দু, খ্রিস্টান, শিখ, জৈন, বৌদ্ধ ও পার্সী এই ৬টি সম্প্রদায়কে ভারতীয় নাগরিকত্ব (Indian citizenship) প্রদান করা। এই বিলে নির্বাচিত বিভাগগুলিতে অবৈধ অভিবাসীদের ছাড় দেওয়ার জন্য বিদ্যমান আইনটি সংশোধন করা হয়েছে। যদিও বিরোধীরা এই বিলটিকে মুসলমানদের বাদ দেওয়া নিয়ে দেশের ধর্মনিরপেক্ষ নীতির বিরুদ্ধে নেওয়া পদক্ষেপ হিসাবে সমালোচনা করেছে।

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল অনুমোদন পেয়েছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায়, দেখে নিন আরও খবর:



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)
More News