আমরা কখনই গোর্খাল্যান্ডের প্রতিশ্রুতি দিইনি, বললেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি

নিরজ জিম্বা আরও বলেন, “বিষয়টিতে আমরা একটি স্থায়ী রাজনৈতিক সমাধান চাই”।

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS
আমরা কখনই গোর্খাল্যান্ডের প্রতিশ্রুতি দিইনি, বললেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি

অসমের পথ ধরে এবার এ রাজ্যেও জাতীয় নাগরিকপঞ্জী চালু করা হবে বলে জানান তিনি। (ফাইল ছবি)


নাগরাকাটা: 

সদ্য সমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গে ভাল ফল করেছে বিজেপি। দার্জিলিং আসনটিও ধরে রেখেছে তারা। রবিবার বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বললেন, কখনই পৃথক গোর্খাল্যান্ড রাজ্য প্রতিষ্ঠার দেয়নি বিজেপি। অসমের পথ ধরে এবার এ রাজ্যেও জাতীয় নাগরিকপঞ্জী চালু করা হবে বলে জানান তিনি। এদিন জলপাইগুড়িতে দলীয় কর্মিসভায় যোগ দেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সভার পর সাংবাদিকদের তিনি বলেন, “আমরা গোর্খা সম্প্রদায়ের মানুষদের উন্নয়ন চাই। পৃথক গোর্খাল্যান্ডের দাবিতে আমরা সহানুভুতিশীল, তবে আমরা কখনই পৃথক রাজ্যের প্রতিশ্রুতি দিইনি”। তাঁর মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় জিএনএলএফের মুখপাত্র তথা দার্জিলিং-এর বিধায়ক নীরজ জিম্বা বলেন, “ দিলীপ ঘোষের নিজস্ব রাজনৈতিক বাধ্যবাধ্যকতা রয়েছে, তবে আমাদের পৃথক গোর্খাল্যান্ডের দাবিতে আন্দোলন, তা থামাতে পারবে না”। 

এবার ক্ষমতায় এলে গোর্খাল্যান্ড গঠন নিয়ে চিন্তা করবে বিজেপি: গুরুং

নিরজ জিম্বা আরও বলেন, “বিষয়টিতে আমরা একটি স্থায়ী রাজনৈতিক সমাধান চাই”।

লোকসভা নির্বাচনের আগে, সংবাদসংস্থা পিটিআইকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা নেতা বিমল গুরুং দাবি করেন, গোর্খাল্যান্ডের দাবি খতিয়ে দেখার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে বিজেপি। তাঁর বিরুদ্ধে বিভিন্ন বেআইনি কার্যকলাপের মামলা রুজু করা হয়েছে। তারমধ্যে রয়েছে খুন, হিংসা ছড়ানোর মতো অভিযোগ। দু বছর ধরে পলাতক বিমল গুরুং।

তিনদশক পর, পাহাড়ে নির্বাচনে ইস্যু হয়ে ওঠেনি গোর্খাল্যান্ড। বরং সেখানে উন্নয়ন, গণতন্ত্র ফেরানোর দাবিতে সরব হয়েছিল গোর্খাজনমুক্তি মোর্চা, জিএনএলএফের মতো দলগুলি। গোর্খাল্যান্ডের দাবিতে আন্দোলনের জেরে ২০১৭-এ ১০৪ দিন বনধ চলেছে পাহাড়ে।

পাহাড়ের বুক থেকে গোর্খাল্যান্ডের দাবি এখনও মুছে যায়নিঃ বিমল

এই আন্দোলনের মধ্যেই গোর্খাজনমুক্তি মোর্চায় ভাঙন ধরে। জিটিএ-এর দায়িত্বে ছিল তারাই। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতি আনুগত্য প্রকাশ করেন বিনয় তামাং এবং অনিত থাপা।

সদ্য সমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে দার্জিলিং কেন্দ্রে জয়লাভ করেন বিজেপি প্রার্থী রাজু বিস্ত।২০০৯-এ এই কেন্দ্রে জয়লাভ করেছিলেন বিজেপি প্রার্থী যশবন্ত সিং এবং ২০১৪-এ দার্জিলিং-এ পদ্ম ফোটান সুরিন্দর সিং আলুয়ালিয়া। ফলে পরপর তিনবারই পাহাড়ের আসন ধরে রেখেছে বিজেপি।

তিন দশক বাদে দার্জিলিঙের ভোটে ইস্যু নয় গোর্খাল্যান্ড

এবারের লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে ভাল ফল করেছে গেরুয়া শিবির। ৪২ আসনের মধ্যে ১৮টি আসনে জিতেছে তারা। তৃণমূল পেয়েছে ২২টি আসন। অন্যদিকে, ২০১৪ লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি এ রাজ্যে দুটি আসনে জিতেছিল। ৩৪টি আসনে ফুটেছিল জোড়াফুল।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)


পশ্চিমবঙ্গের খবর, কলকাতার খবর , আর রাজনীতি, ব্যবসা, প্রযুক্তি, বলিউড আর ক্রিকেটের সকল বাংলা শিরোনাম পড়তে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................