ভোটব্যাঙ্ক বাঁচাতে সংখ্যালঘু তোষণ করছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়: বিশ্ব হিন্দু পরিষদ নেতা

বিশ্ব হিন্দু পরিষদ নেতার কথায়, “কয়েকদিন আগে মমতা রথযাত্রায় অংশ নেন। তিনি বাংলার হিন্দুদের বোকা বানানোর চেষ্টা করছেন।"

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS
ভোটব্যাঙ্ক বাঁচাতে সংখ্যালঘু তোষণ করছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়: বিশ্ব হিন্দু পরিষদ নেতা
কলকাতা: 

ভোট বড় বালাই! তাই দুর্দিনে নিজের ভোট ব্যাঙ্ক বাঁচাতে সংখ্যালঘু তোষণ করছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শনিবার এই মর্মেই পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমণ করলেন বিশ্ব হিন্দু পরিষদ (ভিএইচপি) নেতা সুরেন্দ্র জৈন। সুরেন্দ্র বলেন, “নিজের ভোটব্যাঙ্ক (votebank) সুরক্ষিত রাখতে সংখ্যালঘুদের খুশি করার চেষ্টা করছেন মমতা।”

গতকালই মুখ্যমন্ত্রী দাবি করেছিলেন, পশ্চিমবাংলার মাদ্রাসায় মৌলবাদী ও সন্তাসবাদী কার্যকলাপ চলে বলে যে প্রতিবেদনে জানিয়েছে কেন্দ্র সরকার তা বিভ্রান্তিকর এবং অসত্য। মুখ্যমন্ত্রীর এই দাবির পরেই সুরেন্দ্র জৈন পালটা আক্রমণ শানিয়েছেন। 

“মানুষ মারার অস্ত্র হয়ে উঠেছে জয় শ্রী রাম”; কলকাতায় বললেন অমর্ত্য সেন

তাঁর কথায়, “কয়েকদিন আগে তিনি রথযাত্রায় অংশ নেন। তিনি বাংলার হিন্দুদের বোকা বানানোর চেষ্টা করছেন। এখন তাঁর মুখোশ খুলে সত্যিকারের চেহারাটা বেরিয়ে পড়েছে।” তাঁর আরও অভিযোগ, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দেশের জাতীয়তাবাদী সংগঠন যেমন বিশ্ব হিন্দু পরিষদ এবং বজরং দলকে চরমপন্থী সংগঠন হিসেবে তুলে ধরার চেষ্টা করছেন। কিন্তু যেখানে জাতীয়তা বিরোধী কার্যক্রম চলছে, সেই সব মাদ্রাসা নিয়ে তাঁর কোনও সমস্যা নেই। এমনকি যদি জাতীয় নিরাপত্তাও সংকটের মুখে পড়ে তাও মমতা সংখ্যালঘু তোষণ করে যাবেন।”

শুক্রবার বিজেপির নেতৃত্বাধীন কেন্দ্র সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা। বাংলার মাদ্রাসা বিষয়ে ‘বিভ্রান্তিকর প্রতিবেদন' হাজির করে সংসদে একে ‘রাজনৈতিক কর্মসূচি' করে তোলা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ, “কেন্দ্র সংসদে নিজের মতো একটা প্রতিবেদন খাড়া করেছে, এই বিষয়ে রাজ্য সরকার যে প্রতিবেদন দিয়েছিল তা সেখানে উত্থাপিতই হয়নি। 

2021 Assembly Polls: স্বমহিমায় দলকে ফোরানোর ডাক মমতার

মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী জি কিষাণ রেড্ডি (Union Minister of State for Home G Kishan Reddy) জানান, রাজ্যে রাজনৈতিক হিংসা ও সংঘর্ষের সাম্প্রতিক ঘটনাবলি নিয়ে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের কাছে নিজের উদ্বেগ প্রকাশ করেছে কেন্দ্র। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী আরও জানান, বাংলাদেশের সন্ত্রাসী গোষ্ঠী জামাত-উল-মুজাহিদিন নিজেদের মৌলবাদী কার্যকলাপ ও তাদের দলে আরও নিয়োগের কার্যক্রম চালাতে এই বাংলারই দুই জেলা বর্ধমান ও মুর্শিদাবাদের কিছু মাদ্রাসাকে ব্যবহার করছে।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)


পশ্চিমবঙ্গের খবর, কলকাতার খবর , আর রাজনীতি, ব্যবসা, প্রযুক্তি, বলিউড আর ক্রিকেটের সকল বাংলা শিরোনাম পড়তে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................