This Article is From Feb 19, 2020

তাঁকে স্বাগত জানাতে আসবেন ৭০ লক্ষ! ডোনাল্ড ট্রাম্পের দাবিতে টুইটারে ব্যঙ্গের বন্যা

মার্কিন রাষ্ট্রপতি বলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তাঁকে কথা দিয়েছেন আহমেদাবাদের বিমানবন্দরে তাঁকে স্বাগত জানাতে আসবেন ৭০ লক্ষ মানুষ।

তাঁকে স্বাগত জানাতে আসবেন ৭০ লক্ষ! ডোনাল্ড ট্রাম্পের দাবিতে টুইটারে ব্যঙ্গের বন্যা

মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের দাবি, আহমেদাবাদের বিমানবন্দরে তাঁকে স্বাগত জানাবেন ৭০ লক্ষ মানুষ।

হাইলাইটস

  • দু’দিনের ভারত সফরে আসছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প
  • তাঁর দাবি তাঁকে স্বাগত জানাবেন ৭০ লক্ষ মানুষ
  • তাঁর এমন অদ্ভুত দাবিতে অনেকেই মজা পেয়েছেন
নয়াদিল্লি:

তিনি কিঞ্চিৎ বাড়িয়ে বলেন। বিশেষ করে সংখ্যার ব্যাপারে। এমনটাই অভিযোগ এমনকী তাঁর ভক্তদেরও। মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প (Donald Trump) তাঁর অভিষেকের সময়ও উপস্থিত জনতার সংখ্যা ‘ফোটোশপ'-এর সাহায্যে সম্পাদনা করে বাড়িয়ে নিয়ে পোস্ট করেছিলেন। রাষ্ট্রপতি পদে অভিষেক থেকেই তাই সকলেরই জানা, সংখ্যা নিয়ে ট্রাম্পের দুর্বলতা। এরপর তিন বছর কেটে গিয়েছে। তাঁর প্রথম সরকারি ভারত সফরে আসছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। আর তার আগে টুইটার ব্যবহারকারীরা আবারও দাবি করলেন, সংখ্যাকে বাড়িয়ে বলার অভ্যাস আজও রয়ে গিয়েছে ডোনাল্ড ট্রাম্পের।

ওয়াশিংটনে যাওয়ার আগে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে মার্কিন রাষ্ট্রপতি বলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তাঁকে কথা দিয়েছেন আহমেদাবাদের বিমানবন্দরে তাঁকে স্বাগত জানাতে আসবেন ৭০ লক্ষ মানুষ।

তিনি বলেন, ‘‘আমাদের সঙ্গে ভারত খুব ভাল ব্যবহার করেনি। কিন্তু আমি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে খুব পছন্দ করি। উনি বলেছেন বিমানবন্দর ও ওই ইভেন্টে আসবেন ৭০ লক্ষ মানুষ।'' প্রসঙ্গত, তিনি যে ইভেন্টের কথা বলছেন সেটি হল ‘নমস্তে ট্রাম্প' নামের এক মিছিল।

তাঁর স্বভাবসিদ্ধ এমন অতিরঞ্জনকে ঘিরে টুইটারে কটূক্তি ও রসিকতার বন্যা বয়ে যায়। অনেকেই বলেন, আহমেদাবাদের জনসংখ্যা ২০১১ সালের জনগণনা অনুযায়ী ৫৫ লক্ষ। ২০২০ সালে তা বেড়ে হওয়ার কথা প্রায় ৮৬ লক্ষ। সেই হিসেবে ট্রাম্পের দাবি সত্যি হলে সেদিন শহরের ৮০ শতাংশ মানুষ মার্কিন রাষ্ট্রপতিকে স্বাগত জানাতে আসবেন!

আগামী সোমবার দু'দিনের ভারত সফরে আসছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। নানা ব্যস্ততায় ভরা সফরসূচির মধ্যে অন্যতম বিশ্বের বৃহত্তম ক্রিকেট স্টেডিয়ামের উদ্বোধন। সংবাদ সংস্থা রয়টার্সকে আহমেদাবাদ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, ট্রাম্পের সফরের জন্য তাঁদের ৮৫ কোটি টাকা খরচ হবে। এর মধ্যে ট্রাম্পের যাওয়ার পথে থাকা বস্তিকে তাঁর নজর থেকে দূরে রাখতে ৪০০ মিটার পাঁচিল তোলার খরচও রয়েছে।

গত বছর ভারতের বিদেশ মন্ত্রকের সঙ্গে ডোনাল্ড ট্রাম্পের মতানৈক্য দেখা যায় পাকিস্তান ইস্যুতে। কাশ্মীর ইস্যুতে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে মধ্যস্থতা করার আবেদন করেন ট্রাম্প। কিন্তু সেই আবেদন খারিজ করে দেয় ভারত।