হাফিজ সঈদ সহ ৪ জনকে নয়া আইনে সন্ত্রাসবাদী ঘোষণা, ভারতের প্রশংসায় আমেরিকা

US Commends India: ওই সন্ত্রাসবাদীরা হল মওলানা মাসুদ আজহার, হাফিজ সঈদ, জাকি-উর-রহমান লাকভি এবং দাউদ ইব্রাহিম।

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS
হাফিজ সঈদ সহ ৪ জনকে নয়া আইনে সন্ত্রাসবাদী ঘোষণা, ভারতের প্রশংসায় আমেরিকা

নতুন সন্ত্রাসবিরোধী আইনের মাধ্যমে ভারত হাফিজ সঈদ সহ ৪ জনকে নয়া আইনে সন্ত্রাসবাদী ঘোষণা করল।


ওয়াশিংটন: 

নতুন সন্ত্রাসবিরোধী আইনের মাধ্যমে কেন্দ্রীয় সরকার জইশ-ই-মহম্মদ প্রধান মাসুদ আজহার, লস্কর-ই-তৈবার প্রতিষ্ঠাতা হাফিজ মহম্মদ সঈদ (Hafiz Saeed)এবং আরও দু'জনকে সন্ত্রাসবাদী ঘোষণা করার পরে ভারতের (India) প্রশংসা করল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। "আমরা পাশে দাঁড়াচ্ছি ডব্লিউ / # ইন্ডিয়া-র এবং ৪ জন কুখ্যাত সন্ত্রাসবাদীকে পৃথক আইনের মাধ্যমে সন্ত্রাসবাদী ঘোষণা করার জন্য যে পদক্ষেপ করা হয়েছে তার প্রশংসা করছি: ওই সন্ত্রাসবাদীরা হল মওলানা মাসুদ আজহার (Masood Azhar), হাফিজ সঈদ, জাকি-উর-রহমান লাকভি এবং দাউদ ইব্রাহিম। এই নতুন আইনটির মাধ্যমে ভারত-মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের যৌথভাবে সন্ত্রাসবাদের মোকাবিলায় লড়ার সম্ভাবনার প্রসার ঘটবে", ট্যুইট করে জানিয়েছেন মার্কিন বিদেশ মন্ত্রকের দক্ষিণ ও মধ্য এশীয় বিষয়ক ব্যুরোর ভারপ্রাপ্ত সহকারী সচিব অ্যালিস ওয়েলস।

সংসদে বেআইনি ক্রিয়াকলাপ (প্রতিরোধ) সংশোধন বা ইউএপিএ আইন, 1967 এর একটি সংশোধনী পাসের প্রায় এক মাস পর কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক এই ঘোষণা করে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, "কেন্দ্রীয় সরকার মনে করে যে মওলানা মাসুদ আজহার সন্ত্রাসবাদের সঙ্গে জড়িত এবং মওলানা মাসুদ আজহারকে উক্ত আইনের আওতায় সন্ত্রাসবাদী হিসাবে এখন থেকে অবহিত করা হবে।"

গ্রেফতার মুম্বই হামলার মূল চক্রী হাফিজ সঈদ, পাঠানো হয়েছে জেলে: পাক সংবাদমাধ্যম

পাশাপাশি বলা হয়,  "কেন্দ্রীয় সরকার মনে করে যে হাফিজ মহম্মদ সঈদ সন্ত্রাসবাদের সঙ্গে জড়িত এবং হাফিজ মহম্মদ সঈদকে উক্ত আইনের আওতায় সন্ত্রাসবাদী হিসাবে এখন থেকে অবহিত করা হবে।"

২০০৮ সালের মুম্বই সন্ত্রাস হামলার নেপথ্যের মাস্টারমাইন্ড ছিল লস্কর-ই-তৈবার প্রতিষ্ঠাতা হাফিজ সঈদ, আবার সাম্প্রতিক পুলওয়ামা হামলার পাশাপাশি ২০০১ সালের পার্লামেন্টে হামলার নেপথ্যে ছিল জইশ-ই-মহম্মদ প্রধান মাসুদ আজহারের হাত।

ইউএপিএ আইনের সংশোধন, যা সরকারকে ব্যক্তিদের "সন্ত্রাসবাদী" হিসাবে মনোনীত করার ক্ষমতা দিয়েছে গত মাসে সংসদে পাস হয়েছিল। সংশোধনীর আগে, শুধুমাত্র সংস্থাগুলি এবং ব্যক্তি নয়, ভারতকে সন্ত্রাসবাদ উপাধি দেওয়া যেতে পারে। সংশোধনের আগে ছিল কেবলমাত্র সংস্থাগুলিকেই সন্ত্রাসবাদী হিসাবে ঘোষণা করতে পারে ভারত, কিন্তু কোনও ব্যক্তিকে সন্ত্রাসবাদী আখ্যা দিতে পারত না দেশ।

"সন্ত্রাসবাদের কোনও ধর্ম নেই, সন্ত্রাসবাদীরা মানবতার বিরোধী; সকলেরই এর বিরুদ্ধে আনা এই কঠোর আইনকে সমর্থন করা উচিত," নয়া বিলের বিধানগুলি ব্যক্তিগত স্বাধীনতা লঙ্ঘন করেছে, বিরোধী পক্ষের এই দাবির পরিপ্রেক্ষিতে বলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

নয়া সন্ত্রাস-বিরোধী আইনে জঙ্গি ঘোষিত হাফিজ সইদ, মাসুদ আজহার

নতুন বিলের আওতায় সরকার "সন্ত্রাসবাদী" হিসাবে মনোনীত ব্যক্তিদের উপর ভারত ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে এবং তাঁদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করতে পারে। আইনটি জাতিসংঘের সম্মেলনের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক মানের সঙ্গেও সামঞ্জস্যপূর্ণ বলে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

সন্ত্রাসবাদী হিসাবে মনোনীত ব্যক্তিরা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিবের কাছে আবেদন করতে পারেন, যাঁকে ৪৫ দিনের মধ্যে এই আবেদনের নিষ্পত্তি করতে হবে। এগুলি ছাড়াও তাঁরা একজন স্থায়ী বা অবসরপ্রাপ্ত বিচারক এবং সরকারের কমপক্ষে দুজন অবসরপ্রাপ্ত সচিব সমন্বয়ে গঠিত পর্যালোচনা কমিটির কাছেও আবেদন করতে পারেন।



পশ্চিমবঙ্গের খবর, কলকাতার খবর , আর রাজনীতি, ব্যবসা, প্রযুক্তি, বলিউড আর ক্রিকেটের সকল বাংলা শিরোনাম পড়তে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................