দেশে অঘোষিত জরুরি অবস্থা চলছে, দাবি তৃণমূলের

শহরে পৌঁছে অসম প্রশাসনের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিলেন তাঁরা।

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS
দেশে অঘোষিত জরুরি অবস্থা চলছে, দাবি তৃণমূলের

প্রথম থেকেই এই অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে অমস প্রশাসন।

কলকাতা: 

শিলচর থেকে কলকাতায় পৌঁছলেন তৃণমূল নেতা- নেত্রীরা। শহরে পৌঁছে অসম প্রশাসনের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিলেন তাঁরা। অভিযোগ তাঁদের সঙ্গে  অনুপ্রবেশকারীদের মতো ব্যবহার  অভিযোগ তাঁদের সঙ্গে  অনুপ্রবেশকারীদের মতো ব্যবহার করা হয়েছে । পরিস্থিতি দেখে কারও কারও মনে হয়েছে দেশে অঘোষিত জরুরি অবস্থা চলছে। তবে প্রথম থেকেই এই অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে অমস প্রশাসন। তাদের দাবি পরিস্থিতির গুরুত্ব বিবেচনা করেই নেতাদের ভেতরে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি।  

মোট আট জনের প্রতিনিধি দল গিয়েছিল অসমে। শিলচর বিমান বন্দর থেকেই তাঁদের আটকে দেওয়া হয়। প্রথম থেকেই তৃণমূলের অভিযোগ, অসম পুলিশ তাদের নেতাদের হেনস্থা করেছে। শহরে ফিরেও সেই অভিযোগেই সরব শাসক দলের নেতারা। রাজ্যসভার সাংসদ সুখেন্দুশেখর রায় বলেন, আমাদের সঙ্গে অনুপ্রবেশকারীদের মতো ব্যবহার করা হয়েছে। অকারণে ধাক্কা দিয়েছে পুলিশ। হেনস্থার শিকার হতে হয়েছে মহিলা সাংসদদের। ছ’জন সাংসদ, একজন মন্ত্রী ও একজন বিধায়কের সঙ্গে এরকম আচরণ করা হল কোন যুক্তিতে? আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে কয়েকটি নির্দেশিকা জারি করেছে অমস প্রশাসন। সুখেন্দুশেখরের দাবি সেই নির্দেশিকা তাঁরা অমান্য করেননি। তবু তাঁদের আটকে দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে বারাসতের সাংসাদ কাকলি ঘোষদস্তিদার বলেন দেশে এখন আইনের শাসন আছে কিনা তা নিয়ে আমার সন্দেহ আছে। মনে হচ্ছে দেশে অঘোষিত জরুরি অবাস্থা চলছে।                     

তবে এই অভিযোগ মানতে রাজি হয়নি অসম পুলিশ। ডিজিপি  কুলধর সইকিয়া বলছেন সিনিয়র অফিসাররা তৃণমূল সাংসদদের সঙ্গে যথাযোগ্য সম্মান দিয়ে কথা বলেছেন । কেন তাঁদের ভেতরে ঢুকতে দেওয়া যাচ্ছে না তাও ভাল ভাবে ব্যাখ্যা করা হয়েছে। তাঁর পাল্টা দাবি ধাক্কাধাক্কিতে  দুই মহিলা কনস্টেবল আহত হয়েছেন।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদিত করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে.)


পশ্চিমবঙ্গের খবর, কলকাতার খবর, আর রাজনীতি, ব্যবসা, প্রযুক্তি, বলিউড আর ক্রিকেটের সকল বাংলা শিরোনাম পড়তে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................