হাসপাতালে লতাজিকে দেখতে গেলেন উদ্ধব ঠাকরে, খোঁজ নিলেন শরীরের

শপথ নেওয়ার একদিন পরেই ভারতরত্ন লতা মঙ্গেশকরকে দেখতে ব্রিচক্যান্ডি হাসপাতালে গেলেন মহারাষ্ট্রের নতুন মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে খোঁজ নিলেন স্বাস্থ্যের।

হাসপাতালে লতাজিকে দেখতে গেলেন উদ্ধব ঠাকরে, খোঁজ নিলেন শরীরের

লতার সঙ্গে বিনীত সাক্ষাৎ

মুম্বই:

শপথ নেওয়ার একদিন পরেই ভারতরত্ন লতা মঙ্গেশকরকে (Lata Mangeshkar) দেখতে ব্রিচক্যান্ডি হাসপাতালে গেলেন মহারাষ্ট্রের নতুন মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে (Uddhav Thackeray)। খোঁজ নিলেন স্বাস্থ্যের। প্রসঙ্গত, দক্ষিণ মুম্বইয়ের এই হাসপাতালে ১১ নভেম্বর শ্বাসকষ্ট নিয়ে ভর্তি হন সঙ্গীত দুনিয়ার জীবন্ত কিংবদন্তি শিল্পী। তাঁকে দ্রুত সুস্থ করতে তড়িঘড়ি মেডিকেল টিম বসানো হয় হাসপাতালে। পরে সেই টিমের চিকিৎসকেরা জানান, নিউমোনিয়া এবং ফুসফুসে সংক্রমণে ভুগছেন লতাজি। তবে আগের থেকে অবস্থার অনেকটাই উন্নতি হয়েছে। শুক্রবার লতাদিদিকে দেখতে গিয়ে তাঁর শারীরিক উন্নতির খোঁজ নেওয়ার পাশাপাশি সঠিক চিকিৎসা পাচ্ছেন কিনা সেবিষয়ে বিস্তারিত কথা বলেন চিকিৎসকদের সঙ্গে।

এখনও ICU-তে লতা; সংকট কাটেনি সুর সম্রাজ্ঞীর?

হাসপাতাল থেকে লতাজির স্বাস্থ্যের বিস্তারিত খবর না জানানো হলেও সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বোন ঊষা মঙ্গেশকর জানিয়েছেন, আগের থেকে অনেকটাই ভালো আছেন লতা দিদি। চিকিৎসকেরা তাঁকে পর্যবেক্ষণে রেখেছেন। তাই তাঁকে এখনও আইসিইউ-তে রাখা হয়েছে। যতদিন না তাঁরা অনুমতি দিচ্ছেন ততদিন তাঁকে হাসপাতালেই রাখা হবে। চিকিৎসকদের মত নিয়ে তবেই বাড়িতে নিয়ে আশা হবে তাঁকে। লতা মঙ্গেশকরের পরিবার যদিও তাঁর অবস্থার কথা নিয়মিত অনুরাগীদের জানাচ্ছেন ট্যুইট করে। লতাজির অফিসিয়াল অ্যাকাউন্ট থেকে ১৪ নভেম্বর ট্যুইট করে বলা হয়েছে, সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ। মঙ্গেশকর পরিবারের পাশে থাকার জন্য। সবার শুভেচ্ছা ধীরে ধীরে সেরে উঠছেন লতাজি। এখন আগের থেকে অনেক ভালো আছেন।

পরিবারের পক্ষ থেকে আরও বলা হয়েছে, ৯০-এও লতাজি রীতিমতো লড়ছেন নিউমোনিয়া, ফুসফুসের সংক্রমণের সঙ্গে। চিকিৎসকেরা তাঁর জন্য যথাসাধ্য করছেন। দ্রুত আরোগ্যের পথে এগোচ্ছেন তিনি। সম্পূর্ণ সুস্থ হলেই তাঁকে বাড়িতে ফিরিয়ে আনা হবে। জানানো হবে সমস্ত অনুরাগীদেরও।

লতা হাসপাতালেই, 'ধীরে' সাড়া দিচ্ছেন চিকিৎসায়

 প্রসঙ্গত, সাত দশক ধরে ৩০ হাজারেরও বেশি গান গেয়েছেন কিন্নরকণ্ঠী। ১৯৪৫ সালে মধুবালা অভিনীত 'মহল' ছবির 'আয়েগা আনেওয়ালা' সুপারহিট হয়। এরপরে আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি লতাকে। নৌশাদ সাহেবের সুরে বৈজু বাওরা, মাদার ইন্ডিয়া মুগল-এ-আজম, শঙ্কর-জয়কিশনের সুরে বরসাত ও শ্রী ৪২০, সলিল চৌধুরীর সুরে মধুমতী ছবিতে গান গেয়ে প্রথম সারির শিল্পীর আসন দখল করেন। মধুমতী ছবির গান তাঁকে প্রথমবার ফিল্মফেয়ার সেরা মহিলা নেপথ্য শিল্পীর সম্মান এনে দিয়েছিল। এরপর তিনি আরো তিনবার ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ড পান বিশ সাল বাদ, খণ্ডন এবং জিনে কি রাহ ছবিতে গান গেয়ে। তিনবার জাতীয় পুরস্কার পেয়েছেন কোরা কাগজ, লেকিন, পরিচয় ছবিতে অসাধারণ গান গেয়ে। তাঁর গাওয়া হাজারেরও বেশি হিন্দি ছবির মধ্যে কিংবদন্তি আখ্যা পেয়েছে 'পাকিজা', 'অভিমান', 'অমর প্রেম', 'আঁধি', 'সিলসিলা', 'চাঁদনি', 'সাগর', 'রুদালি' এবং 'দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে জায়েঙ্গে'।

উল্লেখ্য, এর আগে রাজনীতিতে ঋদ্ধ হলেও কখনও মুখ্যমন্ত্রীর আসনে বসেনি ঠাকরে পরিবার। উদ্ধব ঠাকরের হাত ধরে এবার সরাসরি মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীত্বের গদিতে আসিন হল শিবসেনা । বৃহস্পতিবারের সন্ধেয় শপথগ্রহণের সেই বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানে 'বন্ধু' উদ্ধবের পাশে সপরিবারে থাকতে দেখা গেছে রিলায়েন্স সংস্থার কর্ণধার মুকেশ আম্বানিকে। মুকেশ-নীতা এবং ছেলে অনন্ত আম্বানি শিবাজি পার্কের মঞ্চেই ছিলেন উদ্ধবের শপথগ্রহণ শেষ না হওয়া পর্যন্ত। প্রসঙ্গত, এনসিপি এবং কংগ্রেসের হাত ধরে একটি সম্ভাব্য জোটের নেতৃত্ব দিতে চলেছেন উদ্ধব ঠাকরে।

(তথ্যসূত্র PTI)

More News