রাফাল চুক্তি নিয়ে মিথ্যে বলার জন্য ক্ষমা চাক তৃণমূল: দিলীপ ঘোষ

বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘‘হঠাৎ তৃণমূল কংগ্রেস চুপ করে গেল কেন? ওদের যদি সাহস থাকে তাহলে ক্ষমা চাওয়া উচিত।’’

রাফাল চুক্তি নিয়ে মিথ্যে বলার জন্য ক্ষমা চাক তৃণমূল: দিলীপ ঘোষ

তৃণমূলের উদ্দেশে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘‘ওদের যদি সাহস থাকে তাহলে ক্ষমা চাওয়া উচিত।’’

রাফাল চুক্তি (Rafale fighter jet deal) মামলায় সুপ্রিম কোর্ট রায় দিয়েছে বৃহস্পতিবার সকালে। তারপরই বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh) লোকসভা নির্বাচনের আগে এই নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের ‘‘মিথ্যে অভিযোগ''-এর দাবি করে বলেন, তৃণমূ‌ল নেতৃত্বের (TMC)  উচিত মানুষের কাছে ক্ষমা চাওয়া। পাশাপাশি রাফাল মামলার রায় নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নীরবতা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তিনি। এবং এপ্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর বিবৃতির দাবি জানান। তিন‌ি বলেন, ‘‘নির্বাচনের সময় আমরা দেখেছি কেবল কংগ্রেস নয়, তৃণমূল কংগ্রেসও সস্তা রাজনীতি করেছে ও মিথ্যে গুজব ছড়িয়েছে রাফাল চুক্তি নিয়ে। এবার সুপ্রিম কোর্টের রায় প্রকাশিত। আমি তৃণমূ‌ল নেতৃত্বকে বলতে চাই, তাঁরা কি মিথ্যে গুজব ছড়ানোর জন্য মানুষের কাছে ক্ষমা চাইবেন? ওদের (তৃণমূল ও কংগ্রেস) মিথ্যে অভিযোগ মিথ্যে প্রমাণিত হয়েছে এবং ওরা ধরা পড়ে গেছে।''

সিঙ্গুর সফর নিয়ে রাজ্যপালের সঙ্গে রাজ্যের সংঘাত চরমে

তৃণমূলকে আরও আক্রমণ করে তিনি বলেন, ‘‘হঠাৎ তৃণমূল কংগ্রেস চুপ করে গেল কেন? তারা কি এই নিয়ে (রাফালের রায়) কথা বলতে অস্বস্তি বোধ করছে? ওদের যদি সাহস থাকে তাহলে ক্ষমা চাওয়া উচিত।''

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের আগে তৃণমূল কংগ্রেস রাফাল চুক্তি প্রসঙ্গে অভিযোগ তুলে বিদ্ধ করেছিল গেরুয়া শিবিরকে।

বৃহস্পতিবার রাফায়েল বিমান মামলায় সিবিআই তদন্তের বিরুদ্ধে জমা পড়া সমস্ত পিটিশন খারিজ করে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। গত বছরের ১৪ ডিসেম্বর সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দিয়েছিল, রাফাল বিমান চুক্তির সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়াকে সন্দেহ করার কোনও কারণ ন‌েই। সরকারকে ক্লিন চিট দেয় শীর্ষ আদালত।

"রাহুল গান্ধির পিছনে কোন শক্তি কাজ করছে?": প্রশ্ন তুলল বিজেপি

কংগ্রেস রাফাল চুক্তিতে ৫৯,০০০ কোটি টাকার দুর্নীতির অভিযোগ তুলেছিল কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে।

গত ১০ মে সুপ্রিম কোর্ট পিটিশনের রায়দান স্থগিত রাখে। এর মধ্যে একটি পিটিশন ফাইল করেছিলেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী যশোবন্ত সিংহ ও অরুণ শৌরি এবং আইনজীবী প্রশান্ত ভূষণ। তাঁদের দাবি ছিল, ৩৬টি রাফায়েল যুদ্ধবিমানের সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়াকে ক্লিন চিট দেও?আর রায়কে পুনর্বিবেচনা করা হোক।

এদিন সমস্ত পিটিশন খারিজ করে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)
More News