This Article is From Jul 08, 2019

বিলগ্নিকরণের প্রতিবাদ, রাজ্যসভায় বিক্ষোভ দেখালেন তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদরা

মধ্যাহ্নভোজনের বিরতির জন্যে রাজ্যসভার অধিবেশন স্থগিত করার আগে তৃণমূল সাংসদদের সতর্ক করে দিয়ে নাইডু বলেন, এভাবে যেন তাঁরা ওয়েলে নেমে বিক্ষোভ না দেখান।

বিলগ্নিকরণের প্রতিবাদ, রাজ্যসভায় বিক্ষোভ দেখালেন তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদরা
নয়াদিল্লি:

পাবলিক সেক্টর কোম্পানিগুলিতে বিলগ্নীকরণের প্রতিবাদে সোমবার রাজ্যসভার অধিবেশন স্থগিতের দাবিতে ওয়েলে নেমে বিক্ষোভ দেখালেন তৃণমূল সাংসদরা। ডেরেক ওব্রায়েন এবং সুখেন্দু শেখর রায়ের মতো কয়েকজন সাংসদ আবার উঠে দাঁড়িয়ে বিলগ্নীকরণের এই বিষয়টি নিয়ে জিরো আওয়ারে আলোচনা করার জন্যে অধ্যক্ষের অনুমতি দাবি করতে থাকেন। যদিও রাজ্যসভার অধ্যক্ষ এম ভেঙ্কাইয়া নাইডু এই বিষয়টি উত্থাপনের কোনও অনুমতি দেন নি। তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দেন এভাবে এইসময় কোনো বিষয় উত্থাপন করার কথা বলা যায় না এবং তিনি কিছুতেই বিরোধীদের এই চাপের কাছে নতি স্বীকার করে এই বিষয়ে অনুমতি দেবেন না। রাজ্যসভার অধ্যক্ষ এও বলেন অধিবেশনের শেষের দিকে সময় থাকলে তৃণমূল সাংসদদের বিষয়টি উত্থাপনের অনুমতি দেবেন । যদিও তারপরেও ওই একই দাবিতে শ্লোগান দিতে থাকেন তৃণমূল সাংসদরা। তবে বিজেপির কয়েকজন সাংসদকে তৃণমূলের শ্লোগান চলাকালীন প্রতিক্রিয়া দিতে দেখা যায়। এরপরেই মধ্যাহ্নভোজনের বিরতির জন্যে রাজ্যসভার অধিবেশন স্থগিত করার আগে তৃণমূল সাংসদদের সতর্ক করে দিয়ে নাইডু বলেন, এভাবে যেন তাঁরা ওয়েলে নেমে বিক্ষোভ না দেখান।

অমর্ত্য সেন নিজেকে অর্থনীতিতেই সীমাবদ্ধ রাখুন: পাল্টা তোপ দাগলেন তথাগত

সাধারণ নির্বাচনের আগে রাজ্যসভার শেষ অধিবেশন ঠিকভাবে চলতেই পারে নি। বিরোধীদের বিভিন্ন দাবি দাওয়া ও লাগাতার বিক্ষোভের জেরে অধিবেশন বারবার স্থগিত করে দিতে হয়। যদিও চলতি বাজেট অধিবেশনে এখনও পর্যন্ত বিরোধীদের কোনও বড় প্রতিবাদ বিক্ষোভের সাক্ষী হতে হয়নি রাজ্যসভাকে।

নিয়ম অনুযায়ী জিরো আওয়ারে জনস্বার্থের কোনো জরুরি বিষয় নিয়ে আলোচনা করতে গেলে আগে অধ্যক্ষের কাছ থেকে অনুমতি নিতে হয়।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদনা করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে।)