‘টিক টক’ ভিডিও বানিয়ে ভোটের প্রচার! চমকে দিলেন শিখ প্রার্থী, ভিডিও ভাইরাল

গত সপ্তাহে ১৫ সেকেন্ডের ওই ভিডিও শেয়ার করেন তিনি। সেখানে নিজের প্রচারের বার্তা সকলের কাছে পৌঁছে দিতে র‌্যাপের আশ্রয় নিলেন তিনি।

‘টিক টক’ ভিডিও বানিয়ে ভোটের প্রচার! চমকে দিলেন শিখ প্রার্থী, ভিডিও ভাইরাল

ভিডিও হয়ে গিয়েছে ভাইরাল, ‘ভিউ’ ছাপিয়ে গিয়েছে ৩০ লক্ষ!

ওট্টাওয়া:

ভোটের প্রচারে ‘টিক টক' (TikTok Videos)! এখনও ভারতের কোনও রাজনৈতিক নেতা এমন আইডিয়া প্রয়োগ করার কথা না ভাবলেও কানাডার নিউ ডেমোক্র্যাটিক পার্টির নেতা জগমিত সিংহ (Jagmeet Singh) ভেবে ফেলেছেন। সোমবার কানাডার (Canada) সাধারণ নির্বাচন। প্রথম পাগড়ি পরিহিত শিখ হিসেবে অন্টারিওর বিধায়কের পদে দাঁড়ানো জগমিত সিংহ তরুণ ভোটারদের কাছে পৌঁছনোর জন্য আশ্রয় নিলেন ভিডিও শেয়ারিং অ্যাপ ‘টিক টক'-এর। রবিবার সিবিসি নিউজের সূত্রে জানা গিয়েছে, জগমিত তরুণদের কাছে পৌঁছনোকে অগ্রাধিকার দিয়েছে, যা অন্য রাজনৈতিক নেতারা ভাবেননি। গত সপ্তাহে ১৫ সেকেন্ডের ওই ভিডিও শেয়ার করেন তিনি। সেখানে নিজের প্রচারের বার্তা সকলের কাছে পৌঁছে দিতে র‌্যাপের আশ্রয় নেন তিনি। ভিডিও হয়ে গিয়েছে ভাইরাল। ‘ভিউ' ছাপিয়ে গিয়েছে ৩০ লক্ষ!

পাকিস্তান ভারত থেকে ডাক পরিষেবা বন্ধ করেছে, জানালেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ: সংবাদ সংস্থা পিটিআই

জগমিত সিংহ জানিয়েছেন, টিক টক ভিডিওর মাধ্যমে তিনি তাঁর প্রচারের বার্তা সকলের কাছে পৌঁছে দিতে চেয়েছেন। রংবেরঙের পাগড়ি পরার জন্য জনপ্রিয় তিনি। তাঁর প্রচারের প্রধান ফোকাস ছিল পরিবেশ সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত ও সরকারের তহবিলের সাহায্যে সকলের জন্য ওষুধের ব্যবস্থা।

রবিবার তিনি বল‌েন, তরুণ ভোটাররা তাঁকে জানিয়েছিলেন, তাঁরা রাজনৈতিক নেতা এবং সরকারি সিদ্ধান্ত গ্রহণকারীদের দ্বারা অবহেলিত। 

তিনি জানিয়েছেন, সেই কারণেই তিনি তাঁর প্রচারকার্যের একটা বড় অংশ রাখেন তরুণ প্রজন্মের কাছে পৌঁছনোর জন্য।

নির্বাচনের প্রাক্কালে তিনি সিবিসি নিউজকে জানান, ‘‘একটা জিনিস আমি গোটা প্রচারকার্যের সময় বুঝেছি এবং আমার জীবন জুড়েও বুঝেছি যে, আপনাকে মানুষের সঙ্গে কথা বলতে হবে, সে যেখানে থাকে, সেখানে গিয়ে।''

তিনি আরও বলেন, ‘‘যেখানেই আপনি থাকুন, যদি আপনি তাঁদের সঙ্গে কথা বলতে পারেন এবং আপনার কোনও বার্তা থাকে তাঁদের জীবনকে সুন্দর করার, তাহলে সেই মঞ্চকে ব্যবহার করুন।''

রবিবার ছিল প্রচারের শেষ দিন। এদিন জগমিতের কর্মসূচি ছিল হালকা।

কানাডার ৪৩তম সাধারণ ‌নির্বাচনে ৩৩৮টি রাইডিং বা আসন রয়েছে। সোমবার রাতে ফল ঘোষণা। এগজিট পোলের হিসেবে জগমিত তরুণ প্রজন্মের কাছে তাঁর বার্তা পৌঁছে দিতে সক্ষম হয়েছেন এবং তাঁর জয়ী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

More News