টিকটক সহ ৫৯ টি চিনা অ্য়াপ নিষিদ্ধ হওয়ায় এবার জনপ্রিয় হচ্ছে দেশি অ্যাপগুলো

মোবাইলেই ভিডিও তৈরি করতে পারার ক্ষমতাসম্পন্ন TikTok নিষিদ্ধ হওয়ায় এবার সকলে ডাউনলোড করছেন দেশি ভিডিও অ্যাপ Roposo

টিকটক সহ ৫৯ টি চিনা অ্য়াপ নিষিদ্ধ হওয়ায় এবার জনপ্রিয় হচ্ছে দেশি অ্যাপগুলো

Alternative Indian Apps For Tiktok: টিকটকে নিষেধাজ্ঞার পরে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা ভারতীয় অ্যাপগুলোর দিকে ঝুঁকছে (প্রতীকী চিত্র)

হাইলাইটস

  • TikTok बैन के बाद भारतीय विकल्पों की तलाश
  • ShareChat और Roposo के लाखों में बढ़े यूजर्स
  • भारतीय ऐप्स के पास शानदार मौका
নয়া দিল্লি:

টিকটক (TikTok) সহ অন্যান্য চিনা অ্যাপ (Chinese Apps) নিষিদ্ধ করার ঘোষণা করেছে মোদি সরকার। তারপর থেকেই দেখা যাচ্ছে ভারতীয় অ্যাপগুলো (Alternative Indian Apps For Tiktok) ডাউনলোডের প্রবণতা অত্যন্ত বেড়ে গেছে। সোমবারই ৫৯টি চিনা (China) অ্যাপকে নিষিদ্ধ করার কথা ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় সরকার। এই অ্যাপগুলোর মধ্যে রয়েছে টিকটক (Tiktok Ban), উইচ্যাট এবং ইউসি ব্রাউজারের মতো জনপ্রিয় অ্যাপও।২৯ জুন তথ্য় প্রযুক্তি মন্ত্রকের তরফে জানানো হয় যে, ওই চিনা অ্য়াপগুলি দেশের সার্বভৌমত্ব, অখণ্ডতা, দেশের সুরক্ষার জন্য় ক্ষতিকারক। সেকারণেই ওই অ্য়াপগুলিকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তথ্য় প্রযুক্তি আইনের ৬৯এ ধারায় অ্য়াপগুলি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। গালওয়ান উপত্যকায় চিনা সেনার আক্রমণে ২০ জন ভারতীয় জওয়ান শহিদ হওয়ার পর থেকেই দেশে চিন-বিদ্বেষ বেড়েছে। এরই মধ্যে চিনা অ্যাপগুলো বন্ধ হয়ে যাওয়ায় মানুষজন দেশি অ্যাপের দিকেই ঝুঁকেছেন।

এখনই তো ভারতীয়দের নিজস্ব অ্যাপ তৈরির "দারুণ সুযোগ": রবিশঙ্কর প্রসাদ

সরকারের এই পদক্ষেপের পরেই স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি চিনা সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম ওয়েইবো থেকে তাঁর অ্যাকাউন্টটি ডিলিট করে দিয়েছেন।

চাইনিজ অ্যাপ নিষিদ্ধ করে "ডিজিটাল স্ট্রাইক" করা হয়েছে: রবিশঙ্কর প্রসাদ

ShareChat এবং Roposo এর মতো ভারতীয় অ্যাপে নতুন ব্যবহারকারীদের বন্যা

দেশি সংস্থা শেয়ারচ্যাট একটি বিবৃতি জারি করে জানিয়েছে যে চিনা অ্যাপগুলোর উপর নিষেধাজ্ঞা জারির পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে তাদের এই অ্যাপটি ১.৫ কোটি মানুষ নতুন করে ডাউনলোড করেছেন। কখনও কখনও এই ডাউনলোডের হারটি প্রতি ৩০ মিনিটে ৫০,০০০ ও  ডাউনলোড করা হয়েছে। সংস্থাটি জানিয়েছে যে বর্তমানে তাদের অ্যাপটির ১৫০ মিলিয়ন ব্যবহারকারী রয়েছে।

রোপোসো ভিডিও অ্যাপটিও নতুন করে প্রায় ১ কোটি মানুষ ডাউনলোড করেছেন। ইনমোবির সিইও নবীন তিওয়ারি জানিয়েছেন, চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধ হওয়ার পর থেকে তাঁর সংস্থার অ্যাপ ব্যবহারকারী সংখ্যা বেড়েছে ৭.৫ কোটি। জানিয়ে রাখি, নিষেধাজ্ঞা জারির আগে ভারতে টিকটকের প্রায় ১২ কোটি ব্যবহারকারী ছিলেন।

অনেকেই মনে করছেন যে এই চিনা অ্যাপের উপর এই নিষেধাজ্ঞার ফলে ভারতবর্ষও বিশ্বের নতুন গ্লোবাল টেক হাব হিসাবে আত্মপ্রকাশের সুযোগ পাবে। বর্তমানে এই দুনিয়ার শীর্ষে রয়েছে আমেরিকা, রাশিয়া এবং চিন।

বৃহস্পতিবারই কেন্দ্রীয় তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ বলেন, "আমরা চিনা অ্যাপগুলোয় নিষেধাজ্ঞা জারি করেছি, এই সময়ে কি আমরা ভারতীয়দের তৈরি কোনও ভাল অ্যাপ নিয়ে আসতে পারি না? আমরা চাই এই সুযোগে বিদেশি অ্যাপগুলোর উপর দেশের মানুষের নির্ভরতা বন্ধ হয়ে যাক"।