This Article is From Mar 19, 2019

রাত ২টোয় শপথ নিলেন গোয়ার নতুন মুখ্যমন্ত্রী প্রমোদ সাওয়ান্ত: ১০ টি তথ্য

মনোহর পাররিকরের অন্ত্যোষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার কয়েকঘন্টা পরেই সোমবার রাতেই মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন প্রমোদ সাওয়ান্ত

বিজেপির প্রমোদ সাওয়ান্ত গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে শপথ নিলেন সোমবার রাতে

পানাজি: গোয়া বিজেপির নেতা প্রমোদ সাওয়ান্ত হলেন গোয়ার নতুন মুখ্যমন্ত্রী। রাত ২টোয় শপথ নিলেন গোয়ার নতুন মুখ্যমন্ত্রী প্রমোদ সাওয়ান্ত মনোহর পাররিকরের অন্ত্যোষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার কয়েকঘন্টা পরেই সোমবার রাতেই মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন প্রমোদ সাওয়ান্ত। উপমুখ্যমন্ত্রী পদে বসতে চলেছে বিজেপির দুই জোটশরিকের এক-একজন করে নেতা।

এখানে রইল ১০'টি তথ্য

  1. বিজেপি ও তার শরিক দলগুলির মধ্যে সমঝোতার ফলে ঠিক হয়েছে মহারাষ্ট্রবাদী গোমন্তক পার্টির সুধীন ধাভালিকর এবং গোয়া ফরওয়ার্ড পার্টির বিজয় সরদেশাই হবেন রাজ্যের উপমুখ্যমন্ত্রী। 

  2. যদিও, এই দুই দলই প্রথমে মুখ্যমন্ত্রী পদের দাবি জানিয়েছিল। 

  3. কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নীতিন গডকড়ি রবিবার সন্ধেবেলাতেই মনোহর পাররিকরের প্রয়াণের খবর পেয়ে গোয়া পৌঁছে যান। বিজেপির দুই শরিক দলের সঙ্গে বৈঠক করেন ভোর সাড়ে পাঁচটা পর্যন্ত। তাতেও কোনও সমাধানসূত্র বেরোয়নি। 

  4. কে হবেন মুখ্যমন্ত্রী, তা নিয়ে দড়ি টানাটানি চলছিল বিজেপি ও শরিকদলগুলির মধ্যে। সেই সময়, যখন, গোটা রাজ্য মনোহর পাররিকরকে শেষ শ্রদ্ধা জানাচ্ছিল। 

  5. যখন জানা গেল যে, শরিকরা পিছু হঠছে না। তখনই আসরে নামের বিজেপির প্রধান সভাপতি অমিত শাহ। 

  6.  ৪০'টি আসনের গোয়া বিধানসভায় বিজেপির বিধায়ক ১২ জন। গোয়া ফরওয়ার্ড পার্টি, এমজিপি এবং নির্দলের কাছে রয়েছে তিনজন করে বিধায়ক। অর্থাৎ, সবমিলিয়ে ২১ জন বিধায়ক রয়েছে বিজেপি জোটের।  

  7.  কংগ্রেসের রয়েছে ১৫ জন বিধায়ক। সংখ্যাগরিষ্ঠতার থেকে ৪ জন কম। মনোহর পাররিকরের মৃত্যুর পর এখন মোট চারটি বিধানসভা আসন খালি হয়ে গেল। দুটি বিজেপির আসন। দুটি কংগ্রেসের আসন।

  8. ২০১৭ এর গোয়া বিধানসভা নির্বাচনে হাং বিধানসভা হয়ে যায় কংগ্রেস বৃহত্তম দল হিসাবে জেতার পর। ওই সময়েই আসরে নেমে জোট গঠন করে বিজেপি সরকার গঠন করান নীতিন গডকড়ি। 

  9. গোয়াতে বিজেপির সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ মুখ ছিলেন মনোহর পাররিকর।  \

  10. ফের গোয়াতে বিজেপি ও কংগ্রেসের মধ্যে লড়াই শুরু হতে চলেছে। গত দু'দিনে দু'বার রাজ্যপালকে চিঠি তাদের সরকার গড়ার অনুমতি দেওয়ার আবেদন করেছে কংগ্রেস। 



.