অরবিন্দ কেজরিওয়ালের সঙ্গে শপথগ্রহণ যে ছ’জন মন্ত্রীর

এই ছ'জন হলেন মণীশ সিসোদিয়া, সত্যেন্দ্র জৈন, গোপাল রাই, কৈলাস গেহলত, ইমরান হোসেন ও রাজেন্দ্র পাল গৌতম।

অরবিন্দ কেজরিওয়ালের সঙ্গে শপথগ্রহণ যে ছ’জন মন্ত্রীর

তৃতীয় বারের জ‌ন্য দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীর পদে শপথ নিলেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

হাইলাইটস

  • রবিবার দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল
  • তাঁর সঙ্গে এদিন শপথ নিলেন ছ’জন মন্ত্রী
  • শনিবার কেজরিওয়াল তাঁর মন্ত্রীদের একটি নৈশভোজে আমন্ত্রণ জানান
নয়াদিল্লি:

রবিবার মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের (Arvind Kejriwal) সঙ্গে শপথ নিলেন তাঁর মন্ত্রিসভার ছ'জন মন্ত্রী। তাঁদের অন্যতম ছিলেন মণীশ সিসোদিয়া (Manish Sisodia) ও গোপাল রাই। কেজরিওয়ালের পরামর্শে রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ (President Ram Nath Kovind) ছ'জন মন্ত্রীকে নিযুক্ত করেন। এই ছ'জন হলেন মণীশ সিসোদিয়া, সত্যেন্দ্র জৈন, গোপাল রাই, কৈলাস গেহলত, ইমরান হোসেন ও রাজেন্দ্র পাল গৌতম। প্রসঙ্গত, এই নিয়ে তৃতীয় বার দিল্লির মুথ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন অরবিন্দ কেজরিওয়া‌ল। নির্বাচনে ৭০ আসনের মধ্যে ৬২ আসন পেয়ে দুরন্ত জয় পেয়েছে আম আদমি পার্টি। বিজেপি পেয়েছে মাত্র আটটি। ২০১৫ সালের কাছাকাছিই ফলাফল করেছে আম আদমি পার্টি। 

যে ছ'জনকে মন্ত্রী হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছে তাঁদের অন্যতম মণীশ সিসোদিয়া। সিসোদিয়ার সাংবাদিকতায় ডিপ্লোমা রয়েছে। তিনি ২০০৬ সাল থেকে কেজরিওয়ালের সঙ্গে রয়েছেন। সাংবাদিকতা থেকে রাজনীতিতে আসা মণীশ সেই সময় কেজরিওয়াল ও আরও কয়েক জনের সঙ্গে এক অবাণিজ্যিক জনস্বার্থ গবেষণা সংস্থা স্থাপন করেছিলেন।

তৃতীয় বারের জন্য দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিলেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল: ১০ তথ্য

সত্যেন্দ্র জৈন স্থাপত্যবিদ্যার স্ন‌াতক। একসময় সরকারি আধিকারিক থাকা সত্যেন্দ্র আন্না হাজারের দুর্নীতি বিরোধী আন্দোলনে যোগ দিয়েছিলেন। তিনিই আম আদমি পার্টির প্রতিষ্ঠাতা। ২০১৩ ও ২০১৫ সালেও কেজরিওয়ালের মন্ত্রিসভায় ছিলেন তিনি।

সমাজবিদ্যায় স্নাতকোত্তর গোপাল রাই ২০১৫ সালে প্রথমবার নির্বাচনে জেতেন এবং দিল্লি মন্ত্রিসভায় যোগ দেন।

‘ফিরে এলেন নায়ক ২': রামলীলা ময়দানে দেখা গেল এই পোস্টার

রাজেন্দ্র পাল গৌতম একজন আইনের স্নাতক। তিনি ২০১৪ সালে আপে যোগ দেওয়ার আগে একজন আইনজীবী হিসেবে প্র্যাকটিস করতেন। ২০১৫ সালে তিনি বিধানসভা নির্বাচনে জয়ী হন।

কৈলাস গেহলত আইনে স্নাতকোত্তর। ২০১৫ সালের বিধানসভা নির্বাচনে তিনি  জয়ী হন। দিল্লি কোর্ট ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী কৈলাস ১৬ বছর প্র্যাকটিস করেছেন।

ইমরান হোসেন জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া থেকে স্নাতক। তিনিও ২০১৫ সালেই প্রথমবার বিধানসভা নির্বাচনে জয়ী হন।

শপথগ্রহণের আগে শনিবার কেজরিওয়াল তাঁর মন্ত্রীদের একটি নৈশভোজে আমন্ত্রণ জানান। দলীয় সূত্র অনুযায়ী, সেই সময় আগামী পাঁচ বছরের পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনা করেন তাঁরা।

২০১৫ সালে ১৪ ফেব্রুয়ারি শপথ নিয়েছিলেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল। রামলীলা ময়দানেই হয়েছিল অনুষ্ঠান। তার আগে ২০১৩ সালে তাঁর প্রথম শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানও রামলীলা ময়দানেই হয়েছিল।

(তথ্যসূত্র: আইএএনএস)

2180885

Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com