‘‘ওর আত্মা নিশ্চয়ই শান্তি পেল’’: তেলেঙ্গানার নিহত তরুণীর পরিবার

পুল‌িশ জানিয়েছে, অভিযুক্তরা পুলিশের কাছ থেকে আগ্নেয়াস্ত্র ছিনিয়ে ‌পালানোর চেষ্টা করছিল‌। এরপরই পুলিশ তাদের গুলি করে মারতে বাধ্য হয়।

Telangana encounter: গত সপ্তাহে ২৬ বছরের তরুণীর ভয়ঙ্কর পরিণতি দেখে শিউরে উঠেছিল গোটা দেশ।

হাইলাইটস

  • "Express my gratitude towards police": Father of Telangana woman
  • 4 men accused of raping and murdering her were shot dead
  • Police said the accused tried to run away
নয়াদিল্লি:

তেলেঙ্গানার পশু চিকিৎসককে ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনায় (Telangana Vet's Rape-Murder) অভিযুক্ত চার তরুণকে অপরাধের স্থানে নিয়ে যাওয়ার সময় তারা পালানোর চেষ্টা করলে তাদের গুলি করে মেরেছে পুলিশ (Killing Of Accused)। গত সপ্তাহে ২৬ বছরের তরুণীর ভয়ঙ্কর পরিণতি দেখে শিউরে উঠেছিল গোটা দেশ। হায়দরাবাদের কাছে টোল বুথের পার্শ্ববর্তী এলাকায় চার তরুণ ২৬ বছরের পশু চিকিৎসক তরুণীকে ধর্ষণ করে তাঁকে হত্যা করে পুড়িয়ে দেয়। চার অভিযুক্তের নাম মহম্মদ, জলু শিবা, জলু নবীন ও চিন্তাকুন্তা চেন্নাকেশবালু। এদের মধ্যে মহম্মদের বয়স ২৬। বাকিদের বয়স ২০। এদিন চার অভিযুক্তকে হায়দরাবাদের সেই হাইওয়ের কাছে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল যেখানে তারা ২৬ বছরের পশু চিকিৎসকের দেহ পুড়িয়েছিল। ঘটনাটিকে আবার সাজানোর জন্য তাদের নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। পুল‌িশ জানিয়েছে, অভিযুক্তরা পালাতে চেষ্টা করছিল। তারা এমনকী পুলিশের কাছ থেকে আগ্নেয়াস্ত্র ছিনিয়ে ‌নেওয়ারও চেষ্টা করছিল‌। এরপরই পুলিশ তাদের গুলি করে মারতে বাধ্য হয়। নিগৃহীতার পরিবার জানিয়েছে, তাঁরা মনে করছেন এবার তাঁদের পরিবারের মেয়ের আত্মা শান্তি পাবে।

তেলেঙ্গানার পশু চিকিৎসকের বাবা জানিয়েছেন, ‘‘দশ দিন হল আমার মেয়ে মারা গিয়েছে। আমি পুলিশ ও সরকারকে এর জন্য (অভিযুক্তদের এনকাউন্টার) কৃতজ্ঞতা জানাই। আমার মেয়ের আত্মা এবার নিশ্চয়ই শান্তি পাবে।''

তেলেঙ্গানা ধর্ষণ কাণ্ডের অভিযুক্তদের এনকাউন্টার, মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেশজুড়ে

গত ২৮ নভেম্বর তরুণীর দগ্ধ মৃতদেহ শনাক্ত করেন তাঁর বোন। তিনি এদিন বলেন, ‘‘আমি খুব খুশি। আমি মনে করি এটা একটা উদাহরণ হয়ে থাকবে এবং কেউ এমন করার সাহস পাবে না। আমি মনে করি রেকর্ড সময়ের মধ্যে ওরা এটা করল। ধন্যবাদ জানাতে চাই সকলকে যাঁরা আমাদের সমর্থন করেছেন, পুলিশ, সংবাদমাধ্যম ও তেলেঙ্গানা সরকারকে।''

গত ২৭ নভেম্বর একটি টোল বুথে ওই তরুণীকে নিজের স্কুটার দাঁড় করাতে দেখে অভিযুক্তরা। তখনও তারা ধর্ষণের পরিকল্পনা করে। তারা স্কুটারের টায়ার পাংচার করে দিয়ে অপেক্ষা করতে থাকে। এরপর ওই তরুণী ফিরে এলে তাঁকে একটি ফাঁকা স্থানে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে হত্যা করে। পরে তাঁর দেহটি পুড়িয়ে দেয় তারা।

তেলেঙ্গানা গণ ধর্ষণ ও খুন: অভিযুক্ত ৪ জনকেই এনকাউন্টার করে পুলিশ

এদিনের এনকাউন্টারের ঘটনায় দু'টি ভিন্ন সুরের প্রতিক্রিয়া দেখা গিয়েছে।

বর্ষীয়ান আইনজীবী করুণা নান্ডি জানিয়েছেন, ‘‘কেউ আর কখনও জানতে পারবে না যে চারজনকে পুলিশ গুলি করে মেরেছে তারা নিরপরাধ কিনা। দ্রুত অ্যাকশনের জন্য তাদের গ্রেফতার করা হয়েছিল কিনা। হয়তো চার নির্দয় ধর্ষক ঘুরে বেড়াচ্ছে।''

জাতীয় মহিলা কমিশনের পক্ষে রেখা শর্মা জানিয়েছেন, ‘‘একজন সাধারণ নাগরিক হিসেবে আমি সুখী যে এই ব্যাপারটার এরকমই সমাপ্তি আমরা চাইছিলাম। কিন্তু আইনি পদ্ধতিতে এটা শেষ হওয়া দরকার ছিল।''

Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com