পাকিস্তানকে পাশে চায় না ভারত! কাশ্মীর প্রশ্নে মার্কিন সেনেটরের প্রস্তাব ফেরালেন S Jaishankar

কাশ্মীর সমস্যা (Kashmir Issue)  সমাধানে পাকিস্তানকে (Pakistan) অন্তর্ভুক্ত করতে ভারতকে পরোক্ষে প্রস্তাব দিলেন মার্কিন সেনেটর

পাকিস্তানকে পাশে চায় না ভারত! কাশ্মীর প্রশ্নে মার্কিন সেনেটরের প্রস্তাব ফেরালেন  S Jaishankar

"একটা দেশই গণতান্ত্রিক উপায়ে কাশ্মীর সমস্যার সমাধান করবে। আর আপনারা জানেন সেই দেশ কোনটা!" লিন্ডসে গ্রাহামের প্রস্তাব ফিরিয়ে জবাব বিদেশমন্ত্রীর

হাইলাইটস

  • কাশ্মীর সমস্যার সমাধানে পড়শি পাকিস্তানকে সঙ্গী করুন
  • মার্কিন সেনেটরের এহেন প্রস্তাব মুখের ওপর ফেরালেন বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর
  • একটা দেশই সেই সমস্যা সমাধান করতে সক্ষম, এমন ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি
মিউনিখ:

কাশ্মীর সমস্যা (Kashmir Issue)  সমাধানে পাকিস্তানকে (Pakistan) অন্তর্ভুক্ত করতে ভারতকে পরোক্ষে প্রস্তাব দিলেন মার্কিন সেনেটর (A US Senator)। কিন্তু সেই প্রস্তাব মুখের ওপর খারিজ করলেন বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর (Foreign Minister)। জার্মানির মিউনিখে (Munich) এক বিতর্ক সভায় জয়শঙ্কর (S Jayshankar) রিপাব্লিকান সেনেটর লিন্ডসে গ্রাহামের উদ্দেশে বলেছেন, একটা দেশই গণতান্ত্রিক উপায়ে কাশ্মীর সমস্যার সমাধান করবে। আর আপনারা জানেন সেই দেশ কোনটা! মুলত, ওই বিতর্কসভায় সেই মার্কিন সেনেটরের প্রস্তাব ছিল; গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে কাশ্মীর সমস্যা সমাধান হলেই গণতন্ত্র বিশ্বের দরবারে আরও সমৃদ্ধ হবে। তিনি বলেন, "ভারতে আপনারা দ্রুত এগোচ্ছেন। কিছু অভ্যন্তরীণ সমস্যা আপনারা সরকার চালাতে গিয়ে সম্মুখীন হচ্ছেন। যেগুলোর সমাধান গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে করছেন। কিন্তু কাশ্মীরের প্রেক্ষিতে বলতে পারি, এই সমস্যা দূর করতে দুই গণতান্ত্রিক দেশ পৃথক ভূমিকা গ্রহণ করুক।কাশ্মীর সমস্যার সমাধান গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে হলে, আমি মনে করি সেটাই হবে গণতন্ত্রকে সমৃদ্ধ করার সঠিক দিশা।" এদিকে বিশ্লেষকদের দাবি, দুই গণতান্ত্রিক দেশকে এগিয়ে আসতে আবেদন করেছেন ওই মার্কিন সেনেটর। দুই দেশের মধ্যে একটা ভারত। তবে আরও একটা? অবশ্যই পাকিস্তান। 

"নাক গলাবেন না", কাশ্মীর ইস্যুতে তুরস্কের প্রেসিডেন্টকে কড়া বার্তা ভারতের

এই প্রস্তাবের পাল্টা দিতে গিয়ে ভারতের বিদেশমন্ত্রীর জবাব, "সেনেটর আপনি উদ্বিগ্ন হবেন না। একটা গণতান্ত্রিক দেশই এই সমস্যার সমাধান করবে। আর আপনি ভালই জানেন সেই গণতান্ত্রিক দেশ কোনটা!" এদিন এস জয়শঙ্কর বলেছেন, গণতান্ত্রিক বিশ্বের ইতিহাসকে সমৃদ্ধ করতে রাষ্ট্রসঙ্ঘকে আরও কার্যকরী ভূমিকা নিতে হবে। ৭৫-বছর হয়ে গেলেও এমন অনেক কাজ করার আছে যেগুলো আরও বেশি করে স্মরণীয় হয়ে থাকবে। 

Coronavirus: আক্রান্তদের সঙ্গে জাহাজে আটকে পড়া ভারতীয়দের উদ্ধারের চেষ্টা

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভারত সফরের আগে আন্তর্জাতিক মঞ্চে এভাবে কাশ্মীর সমস্যা উত্থাপন ভালো চোখে নেয়নি সাউথ ব্লক। জম্মু-কাশ্মীরের ওপর থেকে সংবিধানের ৩৭০ ধারা বিলোপের পর থেকেই ফের সক্রিয় পাকিস্তান। আন্তর্জাতিক মহলের কাছে একাধিকবার দরবার করেছে ইসলামাবাদ। কিন্তু সেভাবে সাড়া পাইনি। উলটে উপত্যকা ঘুরে গিয়েছেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের সাংসদরা। ভারতকে সতর্ক করে প্রস্তাব পাস ছাড়া সেভাবে আন্তর্জাতিক মহল সক্রিয় হয়নি। কিন্তু মার্কিন প্রেসিডেন্টের ভারত সফরের আগে, ট্রাম্পের দলের এক সেনেটরের এমন মধ্যস্থতায় বেশ বিড়ম্বনায় নরেন্দ্র মোদি সরকার। এমনটাই দাবি বিশ্লেষকদের।