ছবিতে লুকিয়ে জলজ্যান্ত টিকটিকি! খুঁজে পেয়ে চমকিত নেট দুনিয়া

ছবি জুড়ে দেখা যায় খয়েরি পাতা। তবে ছবিটির দিকে ভাল করে তাকালে দেখা যাবে, পাতার আড়ালে দৃশ্যমান রয়েছে একটি টিকটিকিও।

ছবিতে লুকিয়ে জলজ্যান্ত টিকটিকি! খুঁজে পেয়ে চমকিত নেট দুনিয়া

ছবিটি দেখে নেটিজেনরা চমকে গিয়েছেন।

ভারতীয় বন বিভাগের বর্ষীয়ান আধিকারিক রমেশ পাণ্ডে সম্প্রতি টুইটারে এমন একটি ছবি শেয়ার করেছেন যা দেখে নেটিজেনরা চমকে গিয়েছেন। ছবিটি শেয়ার করে রমেশ লেখেন, ‘‘টিকটিকিটাকে (Lizard) চিহ্নিত করুন।'' ছবিতে অবশ্য আপাত ভাবে টিকটিকি খুঁজে পাওয়া কঠিন। ছবি জুড়ে দেখা যায় খয়েরি পাতা। তবে ছবিটির দিকে ভাল করে তাকালে দেখা যাবে, পাতার আড়ালে দৃশ্যমান রয়েছে একটি টিকটিকিও। কিন্তু সে খয়েরি রঙের সঙ্গে এমন ভাবে মিশে রয়েছে সত্যিই একবারে দেখে তাকে খুঁজে পাওয়া কঠিন।

এই ছবিটি অবশ্য নতুন নয়। ২০০৯ সালে তোলা হয়েছিল ছবিটি। ‘ডেইলি মেল' সূত্রে জানা যাচ্ছে, ছবিটি মাদাগাস্কারের আন্দাজিবে-মান্টাদিয়া জাতীয় উদ্যানে তোলা। সেটি একটি বর্ষা অরণ্য। পাণ্ডে জানাচ্ছেন, এই প্রজাতির টিকিটিকির নাম ‘স্যাটানিক লিফ টেইলড লিজার্ড'। এদের লেজ অবিকল পাতার মতো। এরা গাছের সরু ডালে অনায়াসে বসতে পারে এবং অনায়াসে চারপাশের প্রকৃতির মধ্যে মিশে থাকতে পারে। আত্মরক্ষা ও টিকে থাকার জন্য এই ধরনের ‘ক্যামোফ্লেজ' নিতে হয় বহু প্রাণীকে। এই টিকটিকি তার একটা উজ্জ্বল উদাহরণ।

ছবি দেখে হতভম্ব নেটিজেনরা। শেয়ার করার তিন দিনের মধ্যে শয়ে শয়ে লাইক পড়েছে ছবিটিতে। একজন কমেন্টে লেখেন, ‘‘আমার দেখা সেরা ক্যামোফ্লেজ।'' আর একজন লেখেন, ‘‘ওয়াও, পুরো শুকনো পাতার মতো দেখতে।''

সারা বিশ্বে কেবল মাদাগাস্কারেই দেখা মেলে এদের। বিশ্বের আর কোনও দেশে এদের দেখা মেলে না। 

Click for more trending news