This Article is From Nov 26, 2019

"আমরাই জিতবো", মহারাষ্ট্রের আস্থা ভোট প্রসঙ্গে বললেন সনিয়া গান্ধি

Maharashtra floor test: বুধবার মহারাষ্ট্রে আস্থা ভোটের নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট, শীর্ষ আদালতের ওই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানালেন কংগ্রেস সভানেত্রী

Maharashtra floor test: কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধি বলেন, "আস্থা ভোটে আমরাই জিতবো"

নয়া দিল্লি:

আগামিকাল (বুধবার) মহারাষ্ট্রে আস্থা ভোটের (Maharashtra floor test) নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। শীর্ষ আদালতের ওই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানালেন কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধি। "আমরাই জিতবো", মহারাষ্ট্রের আস্থা ভোট প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের লক্ষ্য করে বলেন তিনি (Sonia Gandhi) । শরদ পাওয়ার ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টি (এনসিপি), সনিয়া গান্ধির দল কংগ্রেস তাঁদের মতাদর্শ বিরোধী দল শিবসেনার সঙ্গে জোট বেঁধে মহারাষ্ট্রে (Maharashtra) সরকার গঠনের চেষ্টা করছে, সেই লক্ষ্যে তাঁরা একটি নতুন জোটও তৈরি করেছে, যার নামকরণ করা হয়েছে "মহারাষ্ট্র বিকাশ আঘাদি"। মহাজোটের কাছে ১৬২ জন বিধায়কের সমর্থন রয়েছে বলে দাবি করেছে শিবসেনা-এনসিপি-কংগ্রেস, যেখানে মহারাষ্ট্রে সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণের জন্যে ১৪৫ জন বিধায়কের সমর্থন প্রয়োজন। মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্ট আস্থা ভোটের বিষয়ে আদেশ দেওয়ার পরে মহারাষ্ট্রে সরকার গঠনের বিষয়ে তাই আশাবাদী "মহারাষ্ট্র বিকাশ আঘাদি" অর্থাৎ ওই ৩ দলের জোট।

বুধবার মহারাষ্ট্রে আস্থা ভোট, বিজেপি বিরোধী জোটের সঙ্গে একমত হয়ে নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের

"এমন পরিস্থিতি যদি তৈরি হয় যে, আস্থা ভোট করাতে দেরি হলে ঘোড়া কেনাবেচার সম্ভাবনা রয়েছে, তবে গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ রক্ষায় আদালতের দিক থেকে এই পদক্ষেপ নেওয়া আশু দায়িত্ব হয়ে পড়ে। সেক্ষেত্রে তাৎক্ষণিক ভাবে সংখ্যাগরিষ্ঠতার পরীক্ষা, সবচেয়ে কার্যকর হতে পারে", বলে দেশের সর্বোচ্চ আদালত।

বুধবার সন্ধে ৫ টার মধ্যে সমস্ত নবনির্বাচিত বিধায়কদের শপথ গ্রহণের বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্য সুপ্রিম কোর্ট রাজ্যপাল ভগৎ সিং কোশিয়ারিকে নির্দেশ দিয়েছে। এর পরেই আস্থা ভোট অনুষ্ঠিত হবে বলে তিন বিচারকের বেঞ্চ জানিয়েছে।

‘‘বিজেপির খেলা শেষ'': শীর্ষ আদালতের নির্দেশের পর এনসিপি নেতা নবাব মালিক

কংগ্রেস, শিবসেনা এবং ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টি (এনসিপি) সম্মিলিতভাবে এনসিপির অজিত পাওয়ারকে সঙ্গে নিয়ে যেভাবে রীতিমতো এক গোপনীয় শপথ অনুষ্ঠানে দেবেন্দ্র ফড়নবিশ ক্ষমতা গ্রহণ করেছিলেন তার বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করে ছিল।

এদিকে কিছুদিন আগেই এনসিপি নেতা অজিত পাওয়ারের বিরুদ্ধে সেচ কেলেঙ্কারি সহ মোট ৯ টি দুর্নীতি মামলার তদন্ত বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। মঙ্গলবার সেই সিদ্ধান্তকেও চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয় শিবসেনা-এনসিপি-কংগ্রেস জোট। গত শনিবারই এনসিপি প্রধান শরদ পাওয়ারের ভাইপো অজিত পাওয়ার বিজেপির পাশে এসে দাঁড়ানোয় শনিবার সকাল ৮টা নাগাদ তাঁকে পাশে নিয়ে নতুন সরকার গড়েন দেবেন্দ্র ফড়নবিশ। শুধু তাই নয়, গোটা দেশ অবাক হয়ে দেখে, অজিত পাওয়ারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির তদন্তের নির্দেশ দেওয়া বিজেপিই তাঁকে মহারাষ্ট্রের উপ মুখ্যমন্ত্রী পদে আসীন করেছে। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতেই একে-একে দুই করে শীর্ষ আদালতের কাছে কেন অজিত পাওয়ারের বিরুদ্ধে সেচ দুর্নীতি মামলার তদন্ত বন্ধ করে দেওয়া হল তা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দ্বারস্থ হয় মহারাষ্ট্রের ৩ দলের (Shiv Sena-NCP-Congress) জোট। 

প্রতি মুহূর্তে নজর রাখুন মহারাষ্ট্র সহ দেশের খবরের দিকে: