This Article is From Aug 18, 2019

‘‘ভাবনা-উদ্দীপক’’: প্রধানমন্ত্রীর স্বাধীনতা দিবসের ভাষণ প্রসঙ্গে শত্রুঘ্ন সিনহা

শত্রুঘ্ন সিনহা বহু বার প্রধা‌নমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কড়া সমালোচনা করেছেন। এবার তিনি ভূয়সী প্রশংসায় ভরিয়ে দিলেন স্বাধীনতা দিবসে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণকে।

‘‘ভাবনা-উদ্দীপক’’: প্রধানমন্ত্রীর স্বাধীনতা দিবসের ভাষণ প্রসঙ্গে শত্রুঘ্ন সিনহা

পাটনার সাহিব লোকসভা কেন্দ্রের প্রাক্তন সাংসদ শত্রুঘ্ন বছরের শুরুতে কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন। (ফাইল)

নয়াদিল্লি:

অভিনেতা-রাজনীতিবিদ শত্রুঘ্ন সিনহা (Shatrughan Sinha) টুইটারে বহু বার প্রধা‌নমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির (PM Modi) কড়া সমালোচনা করেছেন। কিন্তু রবিবার তিনি ভূয়সী প্রশংসায় ভরিয়ে দিল‌েন ৭৩তম স্বাধীনতা দিবসে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণকে। জানালেন, এই ভাষণ ছিল ‘‘সাহসী, গবেষণালব্ধ ও ভাবনা উদ্দীপক।'' পাটনার সাহিব লোকসভা কেন্দ্রের প্রাক্তন সাংসদ শত্রুঘ্ন বছরের শুরুতে কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন। বরাবরই তিনি মোদি-বিরোধী। এর আগে তিনি বলেছিলেন বিজেপি ‘‘টু ম্যান আর্মি, ওয়ান ম্যান শো।'' সেই শত্রুঘ্নর গলায় রবিবার ভিন্ন সুর। তিনি টুইট করেন এদিন সকালে। লেখেন, ‘‘আমি সত্যি বলার জন্য বিখ্যাত বা কুখ্যাত। এটা স্বীকার করছি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, ১৫ আগস্ট, ২০১৯ আপনার লালকেল্লার ভাষণ ছিল অত্যন্ত সাহসী, গবেষণালব্ধ ও ভাবনা উদ্দীপক। দেশের প্রধান সমস্যাগুলিকে দারুণ ভাবে তুলে ধরেছেন।''

‘‘তরুণ হয়ে ওঠার জন্য এর চেয়ে ভাল সময় হতে পারে না'': ভুটানের ছাত্রদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী

শত্রুঘ্ন দ্বিতীয় কংগ্রেস নেতা যিনি মোদির সেদিনের ভাষণের প্রশংসা করলেন। এর আগে বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা ও প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদাম্বরম বলেছিলেন, ‘‘আমাদের উচিত স্বাধীনতা দিবসে প্রধানমন্ত্রীর করা তিনটি ঘোষণাকে স্বাগত জানানো।''

‘প্রধানমন্ত্রীকে অপমান করবেন না'': সিওলে পাক সমর্থকদের সামনে প্রতিবাদ বিজেপি নেত্রীর

মোদির ভাষণে উঠে আসা তিনটি বিষয় হল জনবিস্ফোরণ, প্লাস্টিক দূষণ এবং দেশের সম্পদ নির্মাতাদের সন্দেহের চোখে না দেখা।

চিদাম্বরম আর একটা টুইটে লেখেন, ‘‘আমি আশা করি অর্থমন্ত্রী এবং তাঁর অধীনস্থ কর আধিকারিকরা প্রধানমন্ত্রীর দ্বিতীয় পরামর্শটি পরিষ্কার ও জোরালো ভাবে শুনতে পেয়েছেন।''

ক'দিন আগেই ‘ক্যাফে কফি ডে'র প্রতিষ্ঠাতা ভিজি সিদ্ধার্থ মৃত্যুর আগে সিনিয়র আয়কর আধিকারিকদের দ্বারা নিগৃহীত হওয়াকে দায়ী করেছিলেন। এছাড়াও ‘বায়োকন'-এর চেয়ারপার্সন কিরণ মজুমদার শ এবং ‘ইনফোসিস'-এর প্রাক্তন অধিকর্তা মোহনদাস পাই-ও এমন অভিযোগ জান‌িয়েছেন।