This Article is From Sep 24, 2019

চিন্ময়ানন্দের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ আনা তরুণীকে আটক করল পুলিশ

নিগৃহীতাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ (Uttar Pradesh Police)। তাঁর বিরুদ্ধে জোরপূর্বক আদায়ের অভিযোগ আনা হয়েছে।

ওই তরুণীর বিরুদ্ধে জোরপূর্বক আদায়ের অভিযোগ আনা হয়েছে।

লখনউ:

প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও বিজেপি নেতা চিন্ময়ানন্দের (Chinmayanand) বিরুদ্ধে দিনের পর দিন ধর্ষণ ও যৌন নিগ্রহের অভিযোগ তোলা নিগৃহীতাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ (Uttar Pradesh Police)। তাঁর বিরুদ্ধে জোরপূর্বক আদায়ের অভিযোগ আনা হয়েছে। উত্তরপ্রদেশ পুলিশ সূত্রে একথা জানা গিয়েছে। ওই তরুণী শাহজাহানপুরের স্থানীয় আদালতে গ্রেফতারি থেকে সুরক্ষা চাইতে যাচ্ছিলেন। সেই সময় পুলিশ তাঁর পথ আটকায়। তাঁকে বাইরে নিয়ে এসে গাড়িতে তুলে থানায় নিয়ে যায় বলে ওই সূত্র জানিয়েছে। যে ভিডিও প্রকাশিত, তাতে দেখা যাচ্ছে ওই ছাত্রী আদালতের বাইরে বেরিয়ে আসছেন। তার চারপাশে প্রচুর সংখ্যক পুলিশ এবং বিশেষ তদন্তকারী দলের এক মহিলা পুলিশ আধিকারিক। ৭২ বছরের চিন্ময়ানন্দকে গত শুক্রবার জেলে পাঠানো হয়। এর ক'দিন আগেই তাঁর বিরুদ্ধে যৌন নিগ্রহ ও ব্ল্যাকমেলের অভিযোগ এনেছিল ওই তরুণী।

এক বছর ধরে ধর্ষণ করেছেন বিজেপির চিন্ময়ানন্দ, অভিযোগ উত্তরপ্রদেশের তরুণীর

তবে বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ আনা হয়নি। আনা হয়েছে ‘‘ক্ষমতার অপব্যবহার করে যৌন সঙ্গম'' বা ‘‘যৌন সঙ্গম যা ধর্ষণের সঙ্গে শ্রেণিভুক্ত নয়''। এর ফলে দোষী প্রমাণিত হলে অভিযুক্তের পাঁচ থেকে ১০ বছরের সাজা হবে। সঙ্গে জরিমানা। ধর্ষণের ক্ষেত্রে সাত বছর থেকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হতে পারে। এছাড়াও তাঁর বিরুদ্ধে পিছু নেওয়া, অন্যায়ভাবে আটকে রাখা ও ভয় দেখানোর অভিযোগও আনা হয়েছে।

বিজেপির প্রাক্তন সাংসদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ তরুণীর, শুরু তদন্ত

ওই তরুণীর সঙ্গে আরও তিনজন ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, এতে ওই তরুণীও যুক্ত। কিন্তু তারা আরও প্রমাণ জোগাড় করতে চাইছেন।

67j8en1g

গত সপ্তাহে NDTV-কে ওই তরুণী জানান, ‘‘কোন ন্যায় হল না। আমি এর আগে বিস্তারিত ভাবে বলেছি (পুলিশকে) যে আমাকে ধর্ষণ করা হয়েছে তবুও তাঁকে ধর্ষণে অভিযুক্ত করা হয়নি। ঠিক এই ভয়টাই আমি পেয়েছিলাম। আমি জানি না চিন্ময়ানন্দের গ্রেফতারির পিছনে কোন পরিকল্পনা রয়েছে। জোরপূর্বক আদায়ের মামলায় আমার কিছুই করার নেই।''

২৩ বছরের তরুণী চিন্ময়ানন্দের বিরুদ্ধে আদালতে নিজের অভিযোগ প্রমাণে ভিডিও পেশ করেন তরুণী। তিনি জানান চশমার গোপন ক্যামেরায় ভিডিও তুলেছিলেন তিনি।

গত সপ্তাহে ৫০ জন পুলিশ কর্মী পরিবৃত হয়ে আদালতে বিবৃতি রেকর্ডের জন্য আসেন ওই তরুণী।

২৩ বছরের তরুণী তিনবারের সাংসদ চিন্ময়ানন্দ পরিচালিত একটি আইন কলেজের ছাত্রী ছিলেন। তাঁর অভিযোগ, ৭২ বছরের চিন্ময়ানন্দ তাঁকে এক বছর ধরে ধর্ষণ ও শারীরিক ভাবে নিগ্রহ করেছেন। বৃহস্পতিবার দিল্লির লোধি রোডের থানায় জমা দেওয়া ১২ পাতার অভিযোগপত্রতে ওই তরুণী অভিযোগ জানান, উত্তরপ্রদেশের পুলিশকে তিনি বিশ্বাস করেন না। কেননা তাঁর পরিবার শাহজাহানপুর জেলা প্রশাসন থেকে কোনও রকম সাহায্য পায়নি।

৩০ আগস্ট রাজস্থানে তাঁকে পাওয়া যায়। এর আগে এক সপ্তাহ তাঁর কোনও খোঁজ মেলেনি। নিখোঁজ হওয়ার আগে তিনি অনলাইনে একটি ভিডিও পোস্ট করে জানান, ওই বিজেপি নেতা কীভাবে তাঁকে নিগ্রহ করেছেন ও ভয় দেখিয়েছেন। তাঁকে খুনের হুমকিও দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি। ভিডিওয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের কাছে তিনি সাহায্য প্রার্থনা করেন ওই তরুণী।

দেখুন ভিডিও