Basant Panchami 2020: জেনে নিন সরস্বতী পুজোর শুভ সময়, উপাসনার পদ্ধতি

Saraswati Puja 2020: বসন্ত পঞ্চমীর দিন থেকেই বসন্তের হাওয়া বইতে শুরু করে, হিন্দু পুরাণ মতে, এই দিনেই দেবী সরস্বতীর জন্ম, ঘরে ঘরে তাই উপাসনার প্রস্তুতি

Basant Panchami 2020: জেনে নিন সরস্বতী পুজোর শুভ সময়, উপাসনার পদ্ধতি

Saraswati Puja: বসন্ত পঞ্চমীর দিন, বিদ্যার দেবী মা সরস্বতীর পুজো হয়

হাইলাইটস

  • আজ ঘরে ঘরে এবং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে দেবী সরস্বতীর আরাধনার আয়োজন
  • বসন্ত পঞ্চমীতেই এই আয়োজন করা হয়
  • বাগদেবীর আরাধনার পাশাপাশি আজ কামদেবের পুজোও হয়
নয়া দিল্লি:

আজ সরস্বতী পুজো (Saraswati Puja 2020)। শুক্লপঞ্চমীর পুণ্য তিথিতে (Basant Panchami) বাগদেবীর আরাধনায় মেতেছে রাজ্যবাসী। স্কুল, কলেজ থেকে প্রায় প্রতি ঘরে ঘরেই বাগদেবীর আরাধনায় ব্যস্ত মানুষজন। সরস্বতী পুজো (Basant Panchami 2020) উপলক্ষে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভিড় জমায় পড়ুয়ারা। বিদ্যার দেবীর (Saraswati Puja) আরাধনায় যাতে কোনও খামতি না থাকে তার জন্যে সকলেই ব্যস্ত থাকেন প্রথা ও রীতি মেনে পুজো করতে। এই দিনে অনেকে আবার প্রেমের দেবতা কাম দেবেরও পুজো করেন। এই উৎসব কৃষকদের জন্য বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ। বসন্ত পঞ্চমীতে (Basant Panchami 2020) হলুদ সরষে ফুলে ভরে ওঠে ক্ষেত। ছোলা, যব, জোয়ার এবং গমের ক্ষেতেও বাসন্তী হাওয়ায় মাথা দোলাতে থাকে নতুন ফসল। এই দিন থেকেই ঋতুরাজ বসন্তের আগমন হয়।

বসন্ত পঞ্চমী কবে হয়?

প্রতি বছর মাঘ মাসের শুক্লপক্ষের পঞ্চমীতে বসন্ত পঞ্চমী উদযাপিত হয়। গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার অনুসারে, বসন্ত পঞ্চমী প্রতি বছর জানুয়ারি বা ফেব্রুয়ারি মাসে পড়ে। এবার বসন্ত পঞ্চমী পড়েছে আজ অর্থাৎ ২৯ জানুয়ারি, ২০২০ সাল।

বসন্ত পঞ্চমীর তারিখ এবং শুভ সময়
বসন্ত পঞ্চমীর তারিখ:
২৯ জানুয়ারি, ২০২০
পঞ্চমী তিথি শুরু: ২৯ জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ১০:৪৫ থেকে
পঞ্চমীর তারিখ শেষ: ৩০ জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১টা ১৯ মিনিট পর্যন্ত

বসন্ত পঞ্চমীর গুরুত্ব
বসন্ত পঞ্চমীতেই আগমন হয় ঋতুরাজ বসন্তের। এই দিন থেকেই বসন্তের হাওয়া বইতে শুরু করে। হিন্দু পুরাণ মতে, এই দিনেই দেবী সরস্বতীর জন্ম হয়েছে, তাই এই দিনটিতেই উপাসনা করা হয় বিদ্যার দেবীর। এই দিনে পবিত্র নদীগুলিতে স্নানের বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। পবিত্র নদী ও তীর্থস্থানগুলির তীরে বসন্ত মেলাও অনুষ্ঠিত হয়। সরস্বতী পুজো উপলক্ষে এই দিন বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভিড় জমায় পড়ুয়ারা। বসন্তকে প্রেমের দেবতা কামদেবের বন্ধু বলে মনে করা হয়, তাই কোথাও কোথাও আবার এই দিন কামদেবেরও পুজো করা হয়। তবে বাঙালির কাছে সরস্বতী পুজো মানেই যেন প্রেমের দিন। বাঙালির ভ্যালেন্টাইন্স ডে-তে তাই সকাল থেকেই ম্যাচিং শাড়ি-পাঞ্জাবিতে সেজে রাস্তায় নেমে পড়ে যুগলের দল।

সমস্ত শিক্ষককে তাঁদের জেলাতেই পোস্টিং দেওয়া হবে: মুখ্যমন্ত্রী

কেন সরস্বতী পূজা হয় বাসন্ত পঞ্চমীতে?                                                                                          সৃষ্টির সময় প্রজাপতি ব্রহ্মা প্রাণী ও মানুষের জীবন সৃষ্টি করেছিলেন। সেই সময় তিনি অনুভব করেন যে এখানে কিছু একটা বিষয়ের অনুপস্থিতি রয়েছে। সেই সময় ব্রহ্মা জল ছিটিয়ে চার হাত সমেত এক সুন্দরী দেবীকে সৃষ্টি করেছিলেন। দেবীর এক হাতে বীণা এবং অন্য হাতে আর্শীবাদ দিতে উদ্যত ছিল। বাকী দুটি হাতে বই এবং মালা ছিল। ব্রহ্মা দেবীকে বীণা বাজানোর অনুরোধ করলেন। দেবী বীণা বাজানো মাত্রই বিশ্বের সমস্ত প্রাণী কণ্ঠস্বর পেল। জলে স্রোত এল। বাতাস বইতে শুরু করল। তখন ব্রহ্মা দেবী সরস্বতীকে নাম দিলেন বাগদেবী। প্রতি বছর বসন্ত পঞ্চমীর দিন দেবী সরস্বতীর আরাধনা করা হয়।

Basant Panchami 2019: সরস্বতী পুজো কেন করা হয়, রইল রোমাঞ্চকর তথ্য

বসন্ত পঞ্চমীতে কীভাবে দেবী সরস্বতীর পুজো করা হয়?
বসন্ত পঞ্চমীতে পশ্চিমবঙ্গ এবং বিহারে বিশেষভাবে সরস্বতী পুজো করা হয়। সরস্বতী পুজো শুধু ঘরে নয়, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেও দেবীর আরাধনার আয়োজন করা হয়। 
- বসন্ত পঞ্চমীর দিন, জ্ঞান ও বিদ্যার দেবী সরস্বতীকে ফুল দিয়ে পুজো হয়। 
- এই দিনে, যন্ত্র এবং বইয়েরও পুজো করা হয়।
- এই দিনে, ছোট বাচ্চাদের প্রথমবারের মতো বর্ণমালা শেখানো হয়, হাতেখড়ি হয় শিশুদের। 
- এই দিনে হলুদ রঙের পোশাক পরা শুভ হিসাবে বিবেচিত হয়।
- এই দিনে হলুদ রঙের খাবার খাওয়ার প্রচলন আছে । বাংলায় এই দিনে মূলত খিচুড়ি খাওয়া হয়।

More News