"ভুল ব্যাখ্যা দেবেন না": প্রধানমন্ত্রী মোদির "ট্রাম্প সরকার" মন্তব্যের বিষয়ে বললেন এস জয়শঙ্কর

২০২০ সালে মার্কিন নির্বাচনে ট্রাম্পের হয়ে প্রচার করতেই "আব কি বার, ট্রাম্প সরকার" স্লোগান দিয়েছেন Narendra Modi

 Share
EMAIL
PRINT
COMMENTS

হিউস্টনে "হাউডি, মোদি!" অনুষ্ঠানে Donald Trump-এর সঙ্গে দেখা যায় প্রধানমন্ত্রী মোদিকে


ওয়াশিংটন: 

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi) "হাউডি, মোদি!" অনুষ্ঠানে ডোনাল্ড ট্রাম্পের (Donald Trump) হয়ে প্রচার করতেই "আব কি বার ট্রাম্প সরকার" শব্দটি ব্যবহার করেছিলেন বিরোধীরা এই দাবি তুলেছে। কিন্তু সেই দাবি নস্যাৎ করে কেন্দ্রীয় বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর স্পষ্ট বললেন, এই মন্তব্যটির ভুল ব্যাখ্যা করা উচিত নয়। জয়শঙ্কর, বর্তমানে ৩ দিনের ওয়াশিংটন ডিসি সফরে রয়েছেন। কেন্দ্রীয় বিদেশমন্ত্রী (S Jaishankar) জানান যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ঘরোয়া রাজনীতি সম্পর্কে ভারতের "অত্যন্ত নিরপেক্ষ" দৃষ্টিভঙ্গিই রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী মোদির দীর্ঘ মার্কিন সফরে হিউস্টনে একটি মেগা ইভেন্টে যোগ দেন তিনি। সেখানে মোদির সঙ্গে যোগ দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও। একজন রকস্টারের মতো সেখানে স্বাগত জানানো হয় প্রধানমন্ত্রী মোদিকে। পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী মোদি মার্কিন প্রেসিডেন্টকে নিজস্ব ভঙ্গীমায় উপস্থাপন করেন ৫০,০০০ এরও বেশি ভারতীয়-আমেরিকানদের সঙ্গে।

"বন্ধুরা, আমরা ভারত থেকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে ভালভাবেই যোগাযোগ রেখেছি, কিন্তু এবার আমি বলব প্রার্থী ট্রাম্পের কথা। আব কি বার ট্রাম্প সরকার ফের প্রতিধ্বনিত হবে ..." বলেন প্রধানমন্ত্রী মোদি। এরপরেই বিরোধীরা অভিযোগ করেন যে ২০২০ সালে মার্কিন নির্বাচনে ট্রাম্পের হয়ে প্রচার করতেই "আব কি বার, ট্রাম্প সরকার" স্লোগান দিয়েছেন নরেন্দ্র মোদি, যদিও বিরোধীদের এই দাবিকে নস্যাৎ করলেন কেন্দ্রীয় বিদেশমন্ত্রী।

ভারত-মার্কিন সম্পর্ক এই মুহূর্তে ঠিক কেমন, জানালেন বিদেশমন্ত্রী জয়শঙ্কর

"না, তিনি তা বলেননি," প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য সম্পর্কে ভারতীয় সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে দৃঢ়ভাবে বলেন কেন্দ্রীয় বিদেশমন্ত্রী। "আমার মনে হয়, দয়া করে প্রধানমন্ত্রী ঠিক কী বলেছিলেন তা খুব মনোযোগ সহকারে শুনুন আপনারা। প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন যে প্রার্থী ট্রাম্প এই স্লোগানটি ব্যবহার করেছিলেন ("আব কি বার ট্রাম্প সরকার")। সুতরাং এটা পরিষ্কার যে, প্রধানমন্ত্রী অতীতের কথা বলেছেন।

"আমি মনে করি না যে আমাদের এভাবে কথার ভুল ব্যাখ্যা করা উচিত। আমি মনে করি না যে আপনি এরকম করে কারও সেবা করছেন", বিদেশমন্ত্রী সাংবাদিকদের উদ্দেশে প্রকৃত কথাটি তুলে ধরার হওয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন।

"আমি বলতে চাইছি, তিনি (প্রধানমন্ত্রী মোদি) কী বিষয়ে কথা বলছিলেন তা বেশ স্পষ্ট ছিল। তিনি বলছিলেন, আপনি (ডোনাল্ড ট্রাম্প) প্রার্থী হিসাবে এটাই বলেছেন, যা প্রমাণ করে যে আপনি চেষ্টা করছেন, (এমনকি প্রার্থী হিসাবে ভারত এবং এর জনগণের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন)" বলেন জয়শঙ্কর ।

"পাকিস্তানের সঙ্গে কথা বলতেই পারি, কিন্তু টেররিস্তানের সঙ্গে কথা নয়": ভারত

কেন্দ্রীয় বিদেশমন্ত্রী বলেন,"আমাদের খুব নিরপেক্ষ (মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় রাজনীতিবিদদের) দৃষ্টিভঙ্গি রয়েছে। সুতরাং, এই দেশে যা কিছু ঘটে সে সম্পর্কে আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি অন্যরকম, তাঁদের রাজনীতি, আমাদের রাজনীতি এক নয়"।

মোদি ভারতে ফিরে আসার পর কংগ্রেস ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশংসার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে আক্রমণ করে বলেছিল যে তিনি ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসাবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে  গিয়েছিলেন, ট্রাম্পের হয়ে প্রচার চালাতে নয়।

"মিঃ প্রধানমন্ত্রী, আপনি অন্য দেশের অভ্যন্তরীণ নির্বাচনে হস্তক্ষেপ না করার বিষয়ে ভারতীয় বিদেশনীতির সময়-সম্মানিত নীতি লঙ্ঘন করেছেন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক দ্বিপাক্ষিক, রিপাবলিকান এবং ডেমোক্র্যাটদের কারও পক্ষ নিয়ে নয়"লেখেন কংগ্রেস নেতা আনন্দ শর্মা। তিনি আরও যোগ করেন," ট্রাম্পের হয়ে আপনার সক্রিয়ভাবে প্রচার চালানো সার্বভৌম দেশ এবং গণতন্ত্র হিসাবে ভারত এবং আমেরিকা উভয়েরই নীতি লঙ্ঘন"টুইট কংগ্রেসের প্রবীণ নেতা আনন্দ শর্মার।

দেখে নিন সেরা খবরগুলি:



পশ্চিমবঙ্গের খবর, কলকাতার খবর , আর রাজনীতি, ব্যবসা, প্রযুক্তি, বলিউড আর ক্রিকেটের সকল বাংলা শিরোনাম পড়তে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

NDTV Beeps - your daily newsletter

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................

................................ Advertisement ................................