“জোরদার হুমকি”: মুম্বই পুলিশকে চিঠিতে অভিযোগ কর্নাটকের বিদ্রোহী বিধায়কদের

Karnataka Crisis: শুক্রবার, সুপ্রিম কোর্ট জানায় যে মঙ্গলবার পর্যন্ত বিদ্রোহী বিধায়কদের পদত্যাগ বা তাঁদের অযোগ্য ঘোষণা সম্পর্কিত কোনো সিদ্ধান্ত নেবে না

“জোরদার হুমকি”: মুম্বই পুলিশকে চিঠিতে অভিযোগ কর্নাটকের বিদ্রোহী বিধায়কদের

Karnataka Crisis:গত সপ্তাহে ডিকে শিবকুমারকে কর্নাটকের বিদ্রোহী বিধায়কদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে দেওয়া হয় নি

মুম্বই:

কংগ্রেস নেতারা তাঁদের সঙ্গে যাতে কোনওভাবেই সাক্ষাৎ করতে না পারেন সে ব্যাপারে মুম্বই পুলিশকে সুরক্ষা দেওয়ার অনুরোধ করে ফের একবার চিঠি লিখলেন কর্নাটকের বিদ্রোহী বিধায়করা (Rebel Karnataka lawmakers)।গত সপ্তাহে পদত্যাগ করার পর মুম্বইয়ের একটি হোটেলেই বর্তমানে রয়েছেন কর্নাটকের ১৪ জন বিদ্রোহী বিধায়ক। কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক মল্লিকার্জুন খাড়গে এবং কর্নাটকের উপ-মুখ্যমন্ত্রী জি পরমেশ্বরা (Congress-JDS  coalition) সোমবারই পোয়াইয়ের রেনেসাঁ হোটেলে বিদ্রোহী দলীয় সদস্যদের সঙ্গে দেখা করতে আসতে পারেন। কংগ্রেস-জনতা দল সেক্যুলার জোট সরকারকে (Karnataka Crisis) টিকিয়ে রাখতে দলের বিদ্রোহী বিধায়কদের সঙ্গে কথা বলতে চাইছেন তাঁরা। আর এই বিষয়টিই এড়াতে চাইছেন বিদ্রোহী বিধায়করা। মুম্বই পুলিশকে উদ্দেশ্য করে চিঠিতে ওই বিদ্রোহী নেতারা আরেকজন প্রবীণ কংগ্রেস নেতা গুলাম নবি আজাদের নামও নিয়েছেন।

৫৬ মিনিট আগে যান্ত্রিক সমস্যার জন্য আটকে গেল Chandrayaan 2 -এর লঞ্চিঙ্গ

চিঠিতে তাঁরা লিখেছেন, "মল্লিকার্জুন খাড়গে জি বা গোলাম নবি আজাদ জি অথবা মহারাষ্ট্র ও কর্নাটক কংগ্রেসের কোনও দলীয় নেতা বা অন্য কোনো রাজনৈতিক নেতার সঙ্গে দেখা করার আমাদের কোনও প্রয়োজন নেই... তাঁরা আমাদের বড়সড় হুমকি দেবেন বলেই আশঙ্কা করছি আমরা।" সংবাদ সংস্থা এএনআই সূত্রে খবর, এমনকি তাঁদের সঙ্গে জোর করে কংগ্রেস নেতারা দেখা করার চেষ্টা করলে তাঁদের বিরুদ্ধে শীর্ষ আদালতেও যেতে পারেন বিদ্রোহী বিধায়করা।

adihnn6o

গত সপ্তাহে, কর্নাটকের কংগ্রেস নেতা ডিকে শিবকুমার ওই বিদ্রোহী বিধায়কদের সঙ্গে মুম্বইয়ের হোটেলে গিয়ে দেখা করতে চাইলে তাঁকে গেটেই আটকে দেওয়া হয়। কেননা তার আগেই মুম্বই পুলিশকে চিঠি লিখে তাঁদের নিরাপত্তা দেওয়ার জন্যে অনুরোধ করেছিলেন বিদ্রোহী বিধায়করা।পাশাপাশি হোটেলের গেটে লেখা ছিল "ফিরে যান" স্লোগানও। কিন্তু তা সত্ত্বেও শিবকুমার ঘণ্টার পর ঘণ্টা হোটেলের গেটের সামনে ধর্ণায় বসেছিলেন। পরে পুলিশ গিয়ে তাঁকে আটক করে বেঙ্গালুরু ফেরার বিমানে উঠিয়ে দেয়।

আমরা কখনই গোর্খাল্যান্ডের প্রতিশ্রুতি দিইনি, বললেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি

ওই বিদ্রোহী বিধায়করা অভিযোগ করেন যে ইচ্ছাকৃতভাবেই তাঁদের ইস্তফা গ্রহণ করছেন না কর্নাটক বিধানসভার অধ্যক্ষ, যাতে জোটের নেতারা তাঁদের সরকার বাঁচানোর বিষয়ে আরও খানিকটা সময় পেয়ে যান।

শুক্রবারই, সুপ্রিম কোর্ট জানায় যে মঙ্গলবার পর্যন্ত বিদ্রোহী বিধায়কদের পদত্যাগ বা তাঁদের অযোগ্য ঘোষণা সম্পর্কিত কোনো সিদ্ধান্ত নেবে না এদিকে কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী এইচডি কুমারাস্বামী দাবি করেন তাঁদের সরকার ভাঙার কোনও আশঙ্কা নেই, তবে সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণের জন্যে বেশ কিছুটা সময় দাবি করেন তিনি।

মুম্বই পুলিশকে যে বিধায়করা চিঠি লিখেছেন তাঁদের মধ্যে রয়েছেন কংগ্রেস বিধায়ক এমটিবি নাগরাজও, যিনি গত শনিবার কংগ্রেস নেতা সিদ্দারামাইয়া ও এমআর কুমারাস্বামীর সঙ্গে সাক্ষাতের পর জোটে ফিরতে সম্মত হয়েছিলেন। যদিও রবিবার তাঁকে কর্নাটকের বিজেপি প্রধান বিএস ইয়েদুরাপ্পার ব্যক্তিগত সহকারী সন্তোষের সঙ্গে বিমানে উঠতে দেখা যায়। পরে মুম্বইয়ে এসে তিনি বলেন যে তাঁর ইস্তফা নিয়ে তিনি সিদ্ধান্ত বদল করেন নি।

গত সপ্তাহে জেডিএস-কংগ্রেসের জোটের ১৬ জন বিধায়ক ও ২ জন নির্দল বিধায়ক এইচডি কুমারস্বামীর নেতৃত্বাধীন জোট সরকারকে সঙ্কটের মধ্যে ঠেলে দিয়ে  পদত্যাগ করেন।