This Article is From Jan 26, 2020

"এটা পড়ুন": সংবিধানের প্রতিলিপি প্রধানমন্ত্রীকে পাঠাল Congress, টুইট করলো অ্যামাজনের রিসিপ্ট

দেশকে বিভাজিত করার মাঝে সময় পেলে এটা পড়বেন।সংবিধানের প্রতিলিপি প্রধানমন্ত্রী (PM) নরেন্দ্র মোদিকে পাঠিয়ে রবিবার এমন আবেদন করলো কংগ্রেস

সনিয়া গান্ধি, Rahul Gandhi ও অন্য কংগ্রেস নেতারা সাম্প্রতিক সংবিধানের মুখবন্ধ পাঠ করেন। (ফাইল)

হাইলাইটস

  • অ্যামাজন থেকে সংবিধানের প্রতিলিপি কিনে প্রধানমন্ত্রীকে পাঠাল কংগ্রেস
  • টুইট করে সেই রিসিপ্টও পোস্ট করেছে কংগ্রেস
  • দেশে বিভাজন তৈরি করতে করতে, সময় পেলে সংবিধানটা পড়ুন, পরামর্শ কংগ্রেসের
নিউ দিল্লি:

দেশকে বিভাজিত করার মাঝে সময় পেলে এটা (Constitution) পড়বেন।সংবিধানের প্রতিলিপি প্রধানমন্ত্রী (PM) নরেন্দ্র মোদিকে পাঠিয়ে রবিবার এমন আবেদন করলো কংগ্রেস। এদিন সংবিধানের প্রতিলিপি-সহ অ্যামাজনের রিসিপ্ট টুইট করেছে কংগ্রেস। সিএএ নিয়ে বিরোধী শিবির অভিযোগ করছে, এই আইন মুসলিমদের প্রতি বিদ্বেষমূলক ও সংবিধানের মৌলিক কাঠামোর পরিপন্থী। সাম্প্রতিক একটি সমাবেশে সংবিধানের মুখবন্ধ পড়েছেন সনিয়া গান্ধি, রাহুল গান্ধি-সহ অন্য কংগ্রেস নেতারা। এবার কেন্দ্র বিরোধী আক্রমণের সুর আরও চড়াতে, এদিন এই অভিনব পথে হাঁটলো কংগ্রেস। সরকারি টুইট পেজে কংগ্রেস লিখেছে, "প্রিয় প্রধানমন্ত্রী (Narendra Modi) খুব শীঘ্র সংবিধানের প্রতিলিপি আপনার কাছে পৌঁছে যাবে। দেশে বিভাজন তৈরি করতে করতে যখনই আপনি সময় পাবেন, এটা পড়বেন। ধন্যবাদান্তে কংগ্রেস।" সেই টুইটের সঙ্গে অ্যামাজনের একটা রিসিপ্ট টুইট করেছে ওই দল। যা দেখে বোঝা যাচ্ছে অনলাইনে বুক করে ওই প্রতিলিপি প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠিয়েছে কংগ্রেস (Congress)। সেই টুইটে দেখা গিয়েছে কেন্দ্রীয় সচিবালয়ের ঠিকানায় ওই প্রতিলিপি পাঠানো হয়েছে।

সেই টুইটের নীচে আরও একটা ভিডিও পোস্ট করেছে কংগ্রেস। যে ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, দলের শীর্ষ নেতৃত্ব সংবিধানের মুখবন্ধ পড়ছেন। সেই শীর্ষ নেতৃত্বর মধ্যে আছেন; দলের সভানেত্রী সনিয়া গান্ধি, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং, কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধি আর সে দলের অন্যতম সাধারণ সম্পাদিকা প্রিয়াঙ্কা গান্ধি।মহাত্মা গান্ধির সৌধ, রাজঘাটের এক অনুষ্ঠানে এই কর্মসূচি নিয়েছিলেন তাঁরা।  

পাশাপাশি কংগ্রেস সংবিধানের ১৪ ধারা ও তার মৌলিক উপধারাগুলো কী, সেটার ছবিও পোস্ট করেছে। যে উপধারায় বলা আছে, জাতি, ধর্ম, লিঙ্গভেদে সব মানুষকে সাম্যের অধিকার দিয়েছে এই সংবিধান। কিন্তু সিএএ, সেই ধারার বিরোধিতা করছে। এমন অভিযোগ টুইটারে করেছে কংগ্রেস।  

কংগ্রেসের পাশাপাশি অন্য রাজনীতিবিদরা এদিন সংবিধান রক্ষায় টুইট করেছেন। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লেখেন, "আসুন সংবিধান রক্ষায় আমরা শপথ নিই।পাশাপাশি এর সার্বভৌমত্ব, সমাজতান্ত্রিক ও ধর্মনিরেপেক্ষ কাঠামোগুলোকে রক্ষায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করি।" এদিন কেরল ৬২০ কিমি দীর্ঘ মানব বন্ধন করেছিল। রাজ্যের উত্তর থেকে দক্ষিণ প্রান্তকে জুড়েছিল ওই বন্ধন। যাতে দাবি করা হয়েছিল, অবিলম্বে সিএএ প্রত্যাহার করুক সরকার।  এদিন রাহুল গান্ধি, প্রিয়াঙ্কা গান্ধি ও সনিয়া গান্ধি দেশবাসীকে প্রজাতন্ত্র দিবসের শুভেচ্ছা বার্তা পাঠান। ব্যক্তিগত স্বার্থ ভুলে, সংবিধান রক্ষায় সকলকে এগিয়ে আসা উচিত, আবেদন করেছেন তাঁরা। সংবাদসংস্থা পিটিআই সূত্রে এমন খবর জানা গেছে।