প্রায় ৪০ হাজার পরিযায়ী নাগরিককে স্বরাজ্যে ফেরাতে বাস নামাল রাজস্থান সরকার

এর আগে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকে রাজস্থান সরকারের তরফে সুপারিশ পাঠান হয়েছিল, প্রয়োজনে ট্রেনে করে পরিযায়ী নাগরিকদের স্বরাজ্যে ফেরানো যায় কিনা

প্রায় ৪০ হাজার পরিযায়ী নাগরিককে স্বরাজ্যে ফেরাতে বাস নামাল রাজস্থান সরকার

সরকারের খাতায় প্রায় ৬ লক্ষ পরিযায়ী নাগরিকের নাম নথিভুক্ত। বিহুদিন ধরেই তাঁরা বাড়ি ফিরতে রাজস্থান সরকারের সাহায্যপ্রার্থী।

জয়পুর:

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের (Home Ministry) অনুমোদন পেয়েই পরিযায়ী নাগরিকদের প্রতি মানবিক হল রাজস্থান সরকার (Rajasthan Government)। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে আটক পরিযায়ী নাগরিকদের স্বরাজ্যে ফিরতে বিধি (Amid Lockdwon) শিথিল করল সরকার। সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত প্রায় ৪০ হাজার পরিযায়ী নাগরিককে (Migrant Citizens) নিজেদের রাজ্যে ফেরত পাঠাতে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। রাজস্থান সড়ক পরিবহণ নিগমের বাসে তাঁদের ফেরত পাঠানোর ব্যবস্থা হয়েছে। এই পরিযায়ী নাগরিকদের অধিকাংশ হরিয়ানা আর মধ্যপ্রদেশের বাসিন্দা। লকডাউন পর্ব শুরু হওয়া ইস্তক পরিযায়ী নাগরিকরা স্বরাজ্যে ফিরতে রাজস্থান সরকারের সাহায্যপ্রার্থী। জানা গিয়েছে, সরকারি খাতায় প্রায় ৬ লক্ষ পরিযায়ী নাগরিকের নাম নথিভুক্ত।

দিল্লিতে কেন্দ্রীয় ভিস্তা প্রকল্পে স্থগিতাদেশ দেওয়ার আবেদন খারিজ করল সুপ্রিম কোর্ট

প্রায় ২৬ হাজার নাগরিককে মধ্যপ্রদেশ সীমান্ত অবধি ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। ২ হাজার নাগরিককে হরিয়ানা সীমান্ত পর্যন্ত পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। মুলত পশ্চিম রাজস্থানের জেলাগুলি থেকে এঁদের বাসে তোলা হয়েছে। গ্রীষ্মের মরশুমে কৃষিকাজে সহযোগী হিসেবে এঁরা সেই জেলাগুলোতে জমায়েত করেছিলেন। দুঙ্গারপুর ও সিরোহি থেকেও একইভাবে পরিযায়ী নাগরিকদের নিজেদের রাজ্যে ফেরত পাঠানো হচ্ছে। 

পাশাপাশি রাজস্থানের কয়েকজন, যারা ভিন জেলায় কর্মরত, তাঁদেরও নিজেদের জেলায় ফিরিয়ে এনেছে সরকার। এমনটাই রাজ্য সরকারের একটা সূত্রের দাবি। রাজ্য স্বরাষ্ট্র দফতরের এক কর্তা বলেছেন, "আশ্রয় শিবিরে যারা রয়েছেন, তাঁদের আগে ফেরত পাঠানো হচ্ছে।

কোনও করোনা রোগীকেই ফেরানো যাবে না, বেসরকারি হাসপাতালগুলোকে নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর

রাজস্থানের মুখ্য সচিব ও স্বরাষ্ট্র সচিব, সংশ্লিষ্ট রাজ্যগুলোর সঙ্গে সমন্বয় রেখেছেন। সরকারি পোর্টালে যাদের নাম নথিভুক্ত, ধাপে ধাপে তাঁদের স্বরাজ্যে ফেরাচ্ছে প্রশাসন।"  এর আগে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকে রাজস্থান সরকারের তরফে সুপারিশ পাঠান হয়েছিল, প্রয়োজনে ট্রেনে করে পরিযায়ী নাগরিকদের স্বরাজ্যে ফেরানো যায় কিনা। কিন্তু সেই পরিবহণ খরচ বরাদ্দ সংক্রান্ত কোনও নিশ্চয়তা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফে মেলেনি।

শুধু পরিযায়ী নাগরিকদের স্বরাজ্যে ফেরানো যাবে, এই নির্দেশ জারি করে দায় সেরেছে তারা। এমনটাই অভিযোগ রাজস্থান স্বরাষ্ট্র দফতরের একটি সূত্রের।

চা, সিগারেটের দোকান খুলবে, তবে ভিড় করা যাবে না: ৪ মে থেকে পরিকল্পনা রাজ্যে

সেই নির্দেশিকায় উল্লেখ, বাড়ি ফেরানোর আগে সেই নাগরিককে স্ক্রিনিং করা হবে। উপসর্গ নেই এমন পরিযায়ী নাগরিককে নিজের রাজ্যে ফেরার অনুমতি দেওয়া হবে। 

সেই নির্দেশিকায় আরও স্পষ্ট বলা হয়েছে, একমাত্র বাসে করে পরিবহণ করানো যাবে। অবশ্যই উল্লিখিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে তুলতে হবে যাত্রীদের। এর আগে কোটায় আটক উত্তরপ্রদেশের পড়ুয়াদের স্বরাজ্যে ফিরিয়েছে রাজস্থান সরকার।